• শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

যাদের ছত্রছায়ায় নেত্রী হয়ে উঠলেন পাপিয়া, জানালেন অপু উকিল

প্রকাশ:  ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১:১৭
নিজস্ব প্রতিবেদক

ক্ষমতাসীনদের ছত্রছায়ায় অন্ধকার জগতের সম্রাজ্ঞী হয়ে ওঠেন শামীমা নূর পাপিয়া। র‍্যাবের হাতে আটকের পর, একে একে বেরিয়ে আসছে নানা অপরাধে তার সংশ্লিষ্টতা। র‍্যাব বলছে, তার পেছনে রয়েছে মাসল পাওয়ার।নানা মহলে এখন আলোচিত পাপিয়া যুব মহিলা লীগের দাপুটে এ নেত্রীর নামের পাশে জড়িয়ে দখলদার, প্রতারণা, যৌনকর্মী সরবারহকারীসহ নানা তকমা।কোনো আলোচনায় না থেকেই হঠাৎ করে নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ পেয়ে যান শামীমা।এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় ক্ষমতার সিঁড়ি বেয়ে স্বল্প সময়ে হয়ে যান বিত্ত-বৈভবের মালিক বনে যান তিনি। নানা কৌশলে বড় বড় কাজ বাগিয়ে নিতেন। বড় নেতাদের খুশি করতে পাপিয়ার কাছ থেকে সুন্দরী তরুণী সংগ্রহ করত পাতি নেতারা। মজার ব্যাপার হচ্ছে পাপিয়া ধরা পড়ার পর তার পৃষ্ঠপোষকরা তার দায় নিতে নারাজ। এরইমধ্যে প্রশ্ন উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে পাপিয়ার অনুপ্রবেশ ও পদ পাওয়ার বিষয়ে। তবে এ বিষয়ে মুখ খুলেছেন যুব মহিলা লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল।

তিনি সময় সংবাদের টকশোতে এসে বলেন, ২০১৪ সালের ২৯ ডিসেম্বর আমরা যখন নরসিংদী জেলা মহিলা যুবলীগের কমিটি করেছিলাম, সেই সময় পাপিয়া সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলো। জেলা কমিটি গঠন করার আগে বেশ কিছু পূর্ব প্রস্তুতির প্রয়োজন হয়। তার মধ্যে ওয়ার্ড-ইউনিয়ন-উপজেলা কমিটি গঠন করতে হয়। তারপর আমরা জেলা সম্মেলন করি। পাপিয়া উপজেলা কমিটি করবার ক্ষেত্রে অনেক কাজ করেছিলো। তবে আমরা সাধারনত কমিটি করার ক্ষেত্রে জেলা আওয়ামী লীগের সুপারিশ ক্রমে যুব মহিলা লীগ কমিটি করে থাকি। তারা যাকে সাজেশন করে থাকে আমরা তাকেই নির্বাচিত করে থাকি। ঠিক তেমনি আমরা যখন নরসিংদী যুব মহিলা লীগের কমিটি করতে গেলাম তখন সেখানে দুটো পক্ষ ছিলো। দু’পক্ষের উত্তেজনার কারণে আমরা ঢাকায় এসে কমিটি ঘোষণা করি।

অপু বলেন, নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের তখন যে সভাপতি ছিলেন মরহুম অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান ভাই এবং আমাদের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজু উদ্দিন রাজু ভাই এবং তৎকালীন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রহিমা খাতুন সহ একটা পক্ষ পাপিয়াকে সাধারন সম্পাদক করার জন্যে বলছিলেন।

অন্য দিকে যে মেয়েটিকে সভাপতি করেছিলাম তৌহিদা রুনা তার জন্যে নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মতিন সরকার, সাবেক প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম হিরু ভাই সহ অন্যান্যরা অন্য একটি পক্ষে ছিলেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা যখন দেখলাম দু’গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা চরমে এই কমিটি ডিক্লেয়ার নিয়ে। তখন ঢাকায় নিয়ে এসে সাত দিন পরে এবং নরসিংদীর সকলের সঙ্গে কথা বলে ও সকলের ঐক্যমতে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এদিকে, বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার সময় ২২ ফেব্রুয়ারি হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ওরফে পিউ ও তার স্বামীসহ চারজনকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয় এবং আদালত পাপিয়া ও তার স্বামীর ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। মামলার অপর দুই আসামি পাপিয়ার সহযোগী সাব্বির খন্দকার ও শেখ তায়্যিবা। বর্তমানে তারা সবাই রিমান্ডে রয়েছেন। তবে এরই মধ্যে জিজ্ঞাসাবাদে পাপিয়া ওরফে পিউদের মুখ থেকে বেরিয়ে আসছে অনেক পিলে চমকানো তথ্য। বেরিয়ে আসছে অনেকের নাম। তদন্তে উঠে আসছে, অনেক প্রভাবশালীর সঙ্গে পিউর বিশেষ সম্পর্ক এবং ব্যবসার বিষয়টিও। ইতিমধ্যে র‌্যাব পিউর ঢাকার বাসা, অফিস এবং নরসিংদীর বাড়ি থেকে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ আলামত সংগ্রহ করেছে। এর কিছু তথ্য ইতিমধ্যে বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশিত হয়েছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

শামীমা নূর পাপিয়া,নরসিংদী,যুব মহিলা লীগ,অপু উকিল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close