• রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

উচ্চ আদালতে জামিন আবেদন আজ, চিকিৎসায় লন্ডন যেতে চান খালেদা

প্রকাশ:  ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০১:০৯
নিজস্ব প্রতিবেদক

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন উচ্চ আদালতে দাখিলের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। আজ (সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি) দাখিল করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। জামিন পেলে চিকিৎসার জন্য লন্ডনে যেতে চান বেগম জিয়া, বিষয়টি আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতার পরিপ্রেক্ষিতে মুক্তির ইস্যুটি ফের আলোচনায় আসে। তার পরিবারের পক্ষ থেকে মেডিকেল বোর্ডের কাছে আবেদন এবং বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ফোন করার পর বিষয়টি রাজনৈতিক অঙ্গনে নতুন মোড় নেয়।

এ নিয়ে পর্দার আড়ালে সরকারের সঙ্গে সমঝোতার চেষ্টা চলছে বলেও গুঞ্জন রয়েছে। এ ক্ষেত্রে খালেদা জিয়ার প্যারোল নিয়েই বেশি আলোচনা হচ্ছে। শিগগিরই তিনি প্যারোলে মুক্তি পেয়ে লন্ডন যাচ্ছেন এমন খবরও চাওর হয়েছে। প্যারোলের আবেদন করা হলে বিষয়টি ইতিবাচকভাবে দেখা হতে পারে বলে সরকারের তরফ থেকেও আভাস মিলছে। তবে আপাতত প্যারোল বা সাজা মওকুফের আবেদনে নেতিবাচক মনোভাব খালেদা জিয়ার। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অগ্রসর হতে বলেছেন তিনি। এমন নির্দেশনার পরই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছেন তার আইনজীবীরা। এরই অংশ হিসেবে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় জামিন চেয়ে ফের হাইকোর্টে আবেদন করা হবে।

বিএনপির নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, উচ্চ আদালতের মাধ্যমে গুরুতর অসুস্থতা বিবেচনায় খালেদা জিয়ার জামিন লাভের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালানো হবে। শেষ পর্যন্ত উচ্চ আদালত আবারও আবেদন নাকচ করে দিলে তখন ভিন্ন চিন্তা করা হবে। সে ক্ষেত্রে সরকার খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার ব্যাপারে 'হস্তক্ষেপ' করবে না- এমন নিশ্চয়তার ভিত্তিতে রাজনৈতিক সমঝোতার পথে এগোবে বিএনপি। তবে নাকচ হয়ে যেতে পারে এমন সংশয় থাকলে আর আবেদন করা হবে না।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন জানান, বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে খুবই অসুস্থ। এরপরও আদালত তাকে জামিন দেননি। তার শারীরিক অবস্থার দিন দিন অবনতি হচ্ছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য আমরা আবারও আদালতে জামিন চাইব। খুব শিগগিরই এ আবেদন করা হবে। আশা করি আদালত বিষয়টি এবার গুরুত্ব সহকারে দেখবেন এবং তাকে জামিন দেবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের জামিন প্রসঙ্গে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, দেশের প্রচলিত আইনে খালেদা জিয়ার মুক্তি পেতে কোনো বাধা নেই- এটি দেশের সব মানুষই জানেন। তারপরও কেন তিনি জামিন পাচ্ছেন না তাও মানুষ জানেন। তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থার অবনতির কথা বিবেচনা করে আদালতের কাছে আবারও আবেদন করা হবে। আদালত এবার খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়ে সুবিচার করবেন বলে তিনি আশাবাদী।

এদিকে এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে বিএনপি নিজেই দ্বিধান্বিত। একদিকে আন্দোলনের ডাক দেওয়া হচ্ছে, অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে ফোন করে মুক্তি দেওয়ার অনুরোধও জানাচ্ছে। তারা আসলে কি চান, এখনও স্পষ্ট করতে পারেননি।তিনি আরও বলেন, কেবল প্যারোলে মুক্তির আবেদন করলেই সরকারের বিবেচনা করার সুযোগ থাকে। এছাড়া খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার এখতিয়ার সরকারের নেই।

আদালতের একটি সূত্র জানায়, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হক সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে আবেদনটি শুনানির জন্য উত্থাপন করা হতে পারে। এর আগে এই বেঞ্চ চ্যারিটেবল মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন সরাসরি খারিজ করে দেন।

প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ এবং চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুটি দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়া ১৭ বছরের সাজা নিয়ে কারাগারে থাকার দুই বছর পুরো হয়েছে গত ৮ ফেব্রুয়ারি। বর্তমানে তিনি কারাবন্দি হিসেবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

পূর্বপশ্চিম/ এনই

খালেদা জিয়ার জামিন,বিএনপি চেয়ারপারসন,খালেদা জিয়া অসুস্থ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close