• সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

ঢাকা দুই সিটি নির্বাচন

আ. লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম

প্রকাশ:  ১৫ জানুয়ারি ২০২০, ১১:৫৪
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থীর ছড়াছড়ি। বিদ্রোহী প্রার্থী ঠেকাতে হিমশিম খাচ্ছে দলটি। এ নিয়ে অস্বস্তিতেও দলের হাইকমান্ড। নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় প্রতীক বরাদ্দ হলেও কাউন্সিলর পদে সেই বিধান নেই। এরপরও কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

তাই সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। তবে শেষ সুযোগ হিসেবে দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়ার জন্য বিদ্রোহী প্রার্থীদের আহ্বান জানিয়েছে দলের হাইকমান্ড। যারা এ সিদ্ধান্ত অমান্য করবেন তাদের বিরুদ্ধে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হবে। পাশাপাশি আওয়ামী লীগের মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি, থানা ও ওয়ার্ড কমিটিতে যাতে বিদ্রোহীরা স্থান না পান, সে বিষয়েও কঠোর থাকবে দলটি।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা উত্তর সিটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের দল থেকে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেওয়া হয়েছে। ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের ডেকে এনে এই আলটিমেটাম দেওয়া হয় বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফের নেতৃত্বে ছিলেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি প্রমুখ।

বুধবার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দক্ষিণ সিটির বিদ্রোহীদের সঙ্গে বসবেন দলের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য আমির হোসেন আমু, সভাপতিম-লীর সদস্য আবদুর রহমানসহ মহানগর দক্ষিণের শীর্ষনেতারা।

৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন। এ নির্বাচনে দলীয়ভাবে মেয়র পদে মনোনয়ন দিয়েছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। একইভাবে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী সমর্থন দিয়েছে উভয় দল। তবে কাউন্সিলর পদে অনেক ওয়ার্ডেই বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের। এ নিয়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে দলটির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির মধ্যে।

বিভিন্ন ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় ভোটারদের মধ্যেও কাজ করছে সিদ্ধান্তহীনতা। বিদ্রোহী ও দল সমর্থিত উভয় প্রার্থীই মেয়র পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়া উত্তরের আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণের ফজলে নূর তাপসের ছবি ব্যবহার করছেন।

দল সমর্থিত ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে দ্বন্দ্ব কেবল নির্বাচনী মাঠেই নয়, গড়িয়েছে মামলা-হামলা পর্যন্ত। ঢাকা দক্ষিণ সিটির ১ নম্বর ওয়ার্ডের বিদ্রোহী প্রার্থী জহিরুল ইসলাম ভুট্টো আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনিসুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রচারে বাধা দেওয়ার অভিযোগে খিলগাঁও থানায় অভিযোগ করেছেন। ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী গোলাম আশরাফ তালুকদার তাকে হুমকি ও প্রচারে বাধার অভিযোগ জানিয়ে শাহজাহানপুর থানায় জিডি করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের ধারণা, দলের মধ্যে অব্যাহত কোন্দল ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠ থেকে সরে না দাঁড়ালে কাউন্সিলর পদে অনেক ওয়ার্ডেই ভোটের ক্ষেত্রে খারাপ অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। এমন উদ্বেগের মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার ঢাকা উত্তরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে থাকা বিদ্রোহী প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচলানার দায়িত্বে থাকা নেতারা। এতে বলা হয়, অতি দ্রুত যদি বিদ্রোহী প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠ থেকে সরে না দাঁড়ান, তবে দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করতে হবে। অন্যথায় বহিষ্কার করা হবে। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালে আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের পূর্ণাঙ্গ কমিটি, বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করার বিষয়েও আলোচনা হয়। আজ বুধবার ঢাকা দক্ষিণের বিভিন্ন ওয়ার্ডের বিদ্রোহীদের সঙ্গে বৈঠক হতে পারে।

বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, আমরা বিদ্রোহী প্রার্থীদের বলেছি দলের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার জন্য। যদি তা না করেন তবে দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করে প্রার্থিতা করতে হবে।

প্রসঙ্গত, আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া নির্বাচনে দুই সিটি নির্বাচনে প্রায় ৫৮ লাখ মানুষ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। উত্তরে ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন এবং দক্ষিণে ২৭ লাখ ৬৭ হাজার ৪৮৮ জন ভোটার রয়েছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

সিটি নির্বাচন,আওয়ামী লীগ,বিদ্রোহী প্রার্থী,আলটিমেটাম
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close