Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬
  • ||

চলতি মাসেই সিলেট ছাত্রলীগের কমিটি, লবিং তুঙ্গে

প্রকাশ:  ১২ জুলাই ২০১৯, ২১:৩৮ | আপডেট : ১২ জুলাই ২০১৯, ২১:৪৩
মো. মুন্না মিয়া, সিলেট
প্রিন্ট icon

সিলেট জেলা ছাত্রলীগ দীর্ঘদিন ধরে অগোছালো রয়েছে। সিলেট জেলা ছাত্রলীগকে গোছাতে চলতি মাসে কমিটি দিতে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ। এ খবর স্থানীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে গেলে নিজ নিজ অবস্থান থেকে লবিং করে যাচ্ছেন। আবার নিজ নিজ বলয়ের নেতাদের শীর্ষ দুই পদে নিয়ে আসতে জোর তদবির চালাচ্ছেন সিলেটের জেলা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা।

ছাত্রলীগ সূত্র জানায়, দলীয় কর্মী খুনের ঘটনায় ২০১৭ সালে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। এ কমিটি ২০১৪ সালের ৮ সেপ্টেম্বর গঠিত হয়েছিল। কমিটিতে সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন শাহরিয়ার সামাদ ও সাধারণ সম্পাদক এম রায়হান চৌধুরী। সেক্রেটারি রায়হান দলীয় কর্মী ওমর মিয়াদ (২২) হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হওয়ায় জেলা কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এর পরপরই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে এবং ২০১৭ সালের ২৫ অক্টোবরের মধ্যে জেলা শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে পদপ্রত্যাশীদের ‘জীবনবৃত্তান্ত’ জমা দেওয়ার আহ্বান করা হয়৷ সেসময় প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মীরা জীবনবৃত্তান্ত জমা দিলেও 'সিন্ডিকেট' সমস্যায় কমিটি আলোর মুখ দেখেনি। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগের কমিটি হচ্ছে হচ্ছে বলে আলোচনা হলে আর হয়নি। তবে এবার বর্তমান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ সিলেটের অগোছালো ছাত্রলীগকে গোছাতে তৎপর হয়েছে। ইতিমধ্যে কয়েকটি টিম সিলেটে এসে ঘুরে গেছেন। তারা প্রত্যেকে সাংগঠনিক সফর করে গেছেন বললেও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ এনিয়ে কোনো বার্তা দেয়নি স্থানীয় নেতাকর্মীদের। স্থানীয় নেতাকর্মীরা নিজ নিজ সুবিধা অনুযায়ী ছাত্রলীগের সেন্টাল নেতাদের সঙ্গে সময় দিয়েছেন। তারা সিলেট ত্যাগ করলে আবারও আলোচনায় চলে আসে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের কথা।

দায়িত্বশীলরা পূর্বপশ্চিকে জানিয়েছেন চলতি জুলাই মাসেই হচ্ছে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি। এ লক্ষ্যে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ কাজ করছে। দফায় দফায় খসড়া তালিকা করছেন এবং জীবনবৃত্তান্ত পর্যালোচনা করছেন।

এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব খান।

তিনি জানান, আমরা ইতোমধ্য সিলেট ঘুরে গেছি। আমরা সংগঠনের সভাপতি ও সম্পাদকের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরেছি। তারা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখছেন। আশাকরি আমরা চলতি মাসেই কমিটি গঠন করতে পারব। এ লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি।

এদিকে, ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হলে শীর্ষ দুই পদ সভাপতি ও সম্পাদক হতে বেশ কিছু নেতা তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন।

তারা হচ্ছেন, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য আ.ন.ম. শফিকুল হকের ভাতিজা ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর অনুসারী তাহমিদ আহমদ নাদেল ও একই বলয়ের মুহিবুর রহমান। এরাই পূর্বে ছাত্রলীগের দায়িত্বে ছিলেন। তার মধ্যে গেল ছাত্রলীগের কমিটিতে মুহিব সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

এছাড়া আলোচনায় আছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন খাঁনের নেতৃত্বাধীন তেলিহাওর গ্রুপের জাওয়াদ ইবনে জাাহিদ খান। তিনিই তেলিহাওর ব্লকের একমাত্র প্রার্থী। তিনি বিলুপ্ত হওয়া কমিটির যুগ্ম সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া গঠিতব্য কমিটিতে শীর্ষ পদ পেতে লবিং করে যাচ্ছেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদের টিলাগড় বলয়ের জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি অনিরুদ্ধ মজুমদার পলাশ এবং জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি পংকজ পুরকায়স্থর অনুসারী আতিকুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা অ্যাডভোকেট রনজিত সরকারের বলয় থেকে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাজমুল আহমদ ও একই বলয়ের জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি হোসাইন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমানের বলয়ের জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ইশতিয়াক চৌধুরী পদ পেতে আগ্রহ প্রকাশ করে তদবির করে যাচ্ছেন। ইশতিয়াকের বিরুদ্ধে মাদকের মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/পিএস

সিলেট,ছাত্রলীগ,লবিং
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত