Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬
  • ||

শিশু নির্যাতনের কথা বললেন না কেন প্রধানমন্ত্রী, প্রশ্ন রিজভীর

প্রকাশ:  ০২ জুন ২০১৯, ১৭:৫৫ | আপডেট : ০২ জুন ২০১৯, ১৮:০১
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওআইসি সম্মেলনে জঙ্গিবাদ নিয়ে কথা বললেও শিশু নির্যাতন নিয়ে কেন কথা বলেননি, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ওআইসি সম্মেলনে বলেছেন বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ নির্মূল করেছেন। তার নাতিও শ্রীলঙ্কায় জঙ্গিবাদে মারা গেছে। সত্যি এটা দুঃখজনক ঘটনা। বিএনপির পক্ষ থেকেও এ ঘটনায় শোক প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু সারাদেশে এত যে শিশু নির্যাতন হচ্ছে তার আমলে এটা তিনি ওইআইসি সম্মেলনে বললেন না কেন? রোববার (২ জুন) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টারের (এনআরসি) আয়োজনে অনুষ্ঠিত ‘আঁধারের সাথে দ্বন্দ্ব’ শীর্ষক স্মৃতি স্মারক ও দেয়ালিকা প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন রিজভী।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, আপনার অসংখ্য সন্তান বিচারবহির্ভূত হত্যার শিকার হলো সেটা কিন্তু আপনি ওআইসি সম্মেলনে বললেন না। সেটা আপনি বলতে পারবেন না। একদিন আন্তর্জাতিক সম্মেলনে কেউ একজন এসব কথা বলবে। আপনি যে অন্ধকারের মধ্যে গণতন্ত্রকে মৃত্যুকূপে ঠেলে দিয়েছেন সেটা একদিন কেউ না কেউ আন্তর্জাতিক সম্মেলনে বলবে।

দেয়ালিকায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত জিয়াউর রহমানের কর্মময় জীবনের ৬০টি ছবি স্থান পেয়েছে। ছবিগুলো সিনিয়র ফটো সাংবাদিক একে এম মহসিন এবং মো. আনিসের থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে বলে জানান অনুষ্ঠানের সভাপতি এনআরসি পরিচালক বাবুল তালুকদার। তবে ছবিগুলো কে তুলেছেন সে সম্পর্কে কোনো তথ্য উল্লেখ ছিল না।

সততা ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ দিয়ে জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রনায়কের পরিচয় দিয়েছেন উল্লেখ করে রিজভী বলেন, তাকে অনুসরণ করলে আজকে কালিমাযুক্ত যে রাজনীতি তা থেকে বের হয়ে সত্যিকার গণতান্ত্রিক পরিচয় পাওয়া যাবে।

রিজভী বলেন, ফ্যাসিস্টরা কিন্তু অনেক দিন থাকে। যখন চলে যায় তখন এদের চিহ্নও থাকে না। কিন্তু যারা জনগণের পক্ষে যারা কাজ করে অল্প দিন হলেও মানুষ সেটা কখনও ভুলে না, জিয়াউর রহমান তাই। দিল্লির সুলতান শের শাহ সাড়ে তিন বছর রাজত্ব করেছেন-এর মধ্যে গ্রান্ড ট্রাক রোড, এর মধ্যে সরকারি সরাই খানা, ওই সময়ে জনকল্যাণমূলক কাজ করেছেন সুলতান। এ গ্লোবালাইজেশনেও তাকে স্মরণ করা হয়। জিয়াউর রহমান অল্প সময়ে রাষ্ট্র পরিচালনার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি যুগান্তর ঘটিয়েছেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় নেতা মো. মাইনুল ইসলাম, টিএস আইউব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


পিপিবিডি/এসএম

রুহুল কবির রিজভী,বিএনপি
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত