• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৩ কার্তিক ১৪২৮
  • ||

একটি মানবিক প্রস্তাবনাকে সামাজিক রীতি হিসাবে চালু করা যায় কি?

প্রকাশ:  ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৬
এবিএম জাকিরুল হক টিটন

আমরা অনেকেই বিয়ে কিংবা জন্মদিনের অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় কিছু টাকা অথবা প্রাইজবন্ড খামে ভরে নিয়ে যাই উপহার হিসাবে। কিন্তু যদি আমরা কোনো অসুস্থ মানুষকে দেখতে যাই, তখন তেমনটি করি না। আমরা অসুস্থ মানুষকে দেখতে যাবার সময় নেহাত কিছু ফলমূল বা অন্য কোনো খাদ্য সামগ্রী নিয়ে যাই। যা বেশি ভাগ ক্ষেত্রে রোগীর কাজে আসে না। কিন্তু আমরা যদি কোনো অসুস্থ মানুষকে দেখতে যাওয়ার সময় এরকম কিছু টাকা খামে ভরে দিয়ে আসতাম, তবে কেমন হতো-তা আপনারাই বলুন তো ?

বন্ধুরা, বিয়ে বা অন্য যে কোনো অনুষ্ঠান হয় পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক। এ জন্য খরচটা কোনো না কোনোভাবে ব্যবস্থা হয়ে যায়। কিন্তু আমাদের সকলের রোগ-বালাই আসে হঠাৎ করে না বলে। রোগ মাত্রই চিকিৎসা। আর চিকিৎসা মানেই এদেশে অনেক খরচ। তাই ভেবে দেখুন রোগীর হাতে এ সময় আপনার দেওয়া টাকার খাম তার কত উপকারে আসবে।

সম্পর্কিত খবর

    তাই এই বিষয়টা যদি আমরা সামাজিক রীতি হিসাবে চালু করতে পারি তাহলে অসুস্থ ব্যাক্তিটি নিজের সম্মান বজায় রেখেই সহজেই তার চিকিৎসা খরচ নির্বাহ করতে পারবে।

    এক্ষেত্রে সমাজের বিত্তবান মানুষেরা যদি এই খাম নেওয়ার বিষয়টিকে অসম্মানের মনে করেন, তাহলে না হয় আমরা নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্তরাই এই রীতি চালু ও ধারন করতে পারি।

    আমরা অনেকেই অনেক সংঘ, সভা-সমিতি সাথেই জড়িত। ভেবে দেখুন যদি এমন কোনো ব্যাক্তি বা সদস্য অসুস্থ হয় আর আমরা যদি সকলে নন্যুতম পক্ষে ১০০ কিংবা ২০০ জন দর্শনার্থী উনাকে দেখতে যেয়ে ৫০০/১০০০ টাকার খাম দিয়ে আসি, তাহলে তার চিকিৎসা খরচের চিন্তা উনার পরিবার কিংবা এককভাবে কি কাউকে করতে হবে?

    আমি ছাত্রজীবন থেকেই রাজনীতি করি। অনেক সামাজিক সংগঠনের সাথেও জড়িত বিধায় অনেকের অনেক সমস্যায় ইচ্ছা অনিচ্ছা স্বত্বেও নিজেকে জড়িত করতে হয় এবং করি। সেই দাবী থেকে আমার সকল বন্ধু-বান্ধব, সহযোদ্ধা, অনুজ, অগ্রজ শুভানুধ্যায়িদের কাছে অনুরোধ, আপনারা কোনো রোগী দেখতে হাসপাতালে যাওয়ার সময় সার্মথ্য অনুযায়ী টাকার খাম প্রদান করাকে সামাজিক রীতি হিসাবে চালু করুন এবং এই মানবিক প্রয়াসকে স্বাগত জানান। এই বিষয়টি জানাতে ও সকলকে গ্রহণ করতে, উদ্বুদ্ধ করতে প্রচার করুন।

    এই উদ্যোগে যদি কিছু মানুষ উপকৃত হয়, তবে তাদের হাসিতে আমাদের চারপাশ হবে আলোকময়। পরিশেষে বলবো, "একা ভালো থেকে সুখ নেই, সকলকে নিয়ে ভালো থাকুন-তাতেই প্রকৃত সুখ।"

    লেখক: ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক, পূর্বপশ্চিম নিউজ

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close