• শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

আস্থা রাখুন নিজের উপর

প্রকাশ:  ১৮ মে ২০২০, ১৫:১৪
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্লাজমা থেরাপির জন্য তিনজন ডোনারের রক্ত পাওয়া গেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগে। গত ১৬ মে থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্লাজমা থেরাপির যাত্রা শুরু হয়।

টাইটার রিপোর্ট পাওয়ার পর দেখা গেলো মাত্র একজনে টাইটার ১ঃ১৬০, যেটা আকাঙ্ক্ষিত চিকিৎসার জন্য। বাকী দুইজনের টাইটার ১ঃ৮০।

এখন তবে প্রশ্ন থেকে যায়?

১.আমার দানকৃত রক্ত কি তবে নষ্ট হলো?

২. আমার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কি তবে যথেষ্ট নয়?

৩. আমি কি আবারো আক্রান্ত হবো তবে?

৪. আমার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কি নেই তবে?

৫. এখন আমার কি হবে?

জি প্রশ্নগুলো খুবই স্বাভাবিক। আপনার এন্টিবডি তৈরী হয়েছে মানেই আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি।

আপনি প্লাজমা দান করলেও আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কোনো ক্ষতি হবে না। কারণ এন্টিবডি তৈরি করার কোষগুলো এখন সক্রিয় এবং সক্ষম।

নাহ আপনার প্লাজমা নষ্ট হবে না। ফ্রেশ ফ্রোজেন প্লাজমা হিসেবে অন্যান্য রোগীকে দেয়া হবে।

১ঃ১৬০ আমাদের প্রটোকল অনুযায়ী চাওয়া। কিন্তু বাংলাদেশের পরিপ্রেক্ষিতে যদি এই টাইটার পাওয়া না যায় মানে বিবিধ বিবেচনায় যদি তৈরি না হয়, সেক্ষেত্রে প্রোটোকল বিষয়ক তথ্যাদি পুনরায় পর্যালোচনার দাবি রাখে।

সকল সিদ্ধান্ত নিতেই আপনার প্লাজমার এন্টিবডি টাইটার জানা আগে জরুরি।

হয়তো বাংলাদেশের মানুষদের ১:৮০ বেশী পাওয়া যাবে। হয়তো খুব আক্রান্ত কারো ১:১৬০ পাওয়া যাবে।

আমরা তৈরী হয়ে থাকতে চাই আপনাদের টাইটার রিপোর্ট সহ।

আমেরিকাতে ব্যবহৃত টাইটার ১:১৬০

ইতালিতে ব্যবহৃত টাইটাট ১: ৬৪

আমাদের জন্য কত টাইটার কার্যকর, সেটাই এখন নির্ধারন আর গবেষণার বিষয়।

এই মুহুর্তে যার টাইটার ১:১৬০, তার প্লাজমা পরিসঞ্চালনের প্রস্তুতি চলছে ঢাকা মেডিকেল কলেজে।

আপনাদের টাইটার আমাদের চিকিৎসা ও গবেষণা.... উভয়কেই সমৃদ্ধ করবে।

আপনারা অনুগ্রহ করে নিজেদের রক্তের টাইটার জানুন। কোনো কিছুই বৃথা যাবে না। আপনার প্লাজমা অন্য আরেকজনের বাঁচার হাতিয়ার হোক। তিনি যুদ্ধক্ষেত্রে.... আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তাঁর যুদ্ধ করার অস্ত্র হোক।

লেখক: ফারহানা নীলা, চিকিৎসক ও কবি।


পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

করোনা,প্লাজমা,থেরাপি,ফারহানা নীলা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close