• শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ৯ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

আদেশ জারি আর বাতিল

প্রকাশ:  ২৭ মার্চ ২০২০, ২৩:২৭ | আপডেট : ২৭ মার্চ ২০২০, ২৩:৪৮
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় এ নিয়ে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া ও সোশ্যাল মিডিয়াসহ অন্য মাধ্যমে ‘গুজব’ ছড়ানো হচ্ছে কি না তার তদারকিতে সম্প্রতি একটি আদেশ জারি করে সরকার। দেশের ৩০টি বেসরকারি টেলিভিশন ‘মনিটরিং’ করতে মন্ত্রণালয়ের ১৫ জন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিয়ে এক আদেশ জারি করে তথ্য মন্ত্রণালয়। গুজব ছড়ালে মিডিয়া বন্ধের নির্দেশনা ছিল ওই আদেশে। এ আদেশ জারির পর দেশজুড়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় ওঠে। পরে জারি করা আদেশ বাতিল করা হয়।

এ নিয়ে নিজের ফেসবুক পেজে একটি প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন সাবেক সচিব আবু আলম মো. শহিদ খান ।

তাতে তিনি লিখেন, আদেশ জারি করার পর নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া। তারপর আদেশ বাতিল। এ নিয়ে নানান মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

দেশের টেলিভিশনগুলো ২৪ ঘন্টাই মনিটরিং করা হয়, হচ্ছে। সবাই জানেন। তথ্য মন্ত্রণালয়ও জানতো এবং জানে। তাই তাদের কর্মকর্তাদের একই দায়িত্ব ফলাও করে দেবার কোনও দরকার ছিল না।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, পরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আদেশগুলো মূর্খতা মাত্র। স্বাস্থ্য সচিব তা স্বীকার করেছেন। আমি তাকে ধন্যবাদ জানাই।

এই ভয়াল সময়ে যারা প্রশাসনিক দায়িত্বে আছেন তাদের খুব সংবেদনশীল হতে হবে। আমাদের একসাথে একজোট হয়ে জিততে হবে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে।

লেখক: আবু আলম মো. শহিদ খান , সাবেক সচিব, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।


পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

মিডিয়া মনিটরিং,তথ্য মন্ত্রণালয়,স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close