• বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০, ১ শ্রাবণ ১৪২৭
  • ||

চারদিকে ধর্ষণের মহোৎসব, মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন মা-বাবা

প্রকাশ:  ১৩ জানুয়ারি ২০২০, ১২:৪৩ | আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৪:৩৪
আনিসুর রহমান
আনিসুর রহমান: ফাইল ছবি

যেই দেশে মজনুর মতো লোক ঢাকার রাজপথ থেকে ঢাবি ছাত্রীকে কোলে করে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে, এমন কোনো দিন নেই যে ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে না, সেই দেশে উন্নয়নের জোয়ার বয়ে গেলেও নারীর উন্নয়ন সন্তোষজনক নয়। এখনও তারা অনেক বেশি অনিরাপদ। তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সরকারের সবচেয়ে বড় দায়িত্ব। গত এক বছরে ধর্ষণের সংখ্যা বেড়ে প্রায় তিন গুণ হয়েছে। ভয়ংকরভাবে বেড়েছে শিশু ধর্ষণ। স্বাধীনতার অর্ধশতকে এসে পৌঁছলেও এখনো ধর্ষণ খুন কমেনি, বরং এসব অপরাধ পাল্লা দিয়ে বাড়ছে।

কেউ কেউ বলছেন ধর্ষণ এখন মহামারিতে রূপ নিয়েছে। এর কারণ কী? কারণগুলো চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে না পারলে এই ধর্ষণ-খুনে বিপন্ন হবে আমাদের স্বাধীনতা। একটা ধর্ষণের ঘটনা ঘটলে শুধু ধর্ষণের শিকার ব্যক্তিই আক্রান্ত হয় তা নয়, আক্রান্ত হয় যার ঘরে মা, বোন, মেয়ে, ভাতিজি, ভাগনি, আছে এমন প্রতিটি মানুষ। চারদিকে ধর্ষণ। ফেসবুক, পত্রিকা, টেলিভিশন খুললে পাওয়া যায় ধর্ষণের খবর। বাসার বাইরে মেয়েরা বের হলে ঘরে ফেরার আগ পর্যন্ত বাবা-মার উৎকণ্ঠা আর উদ্বেগের শেষ থাকে না। ভালো ঘুম আসে না। অনেক বাবা-মাই এমন উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন।

মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সলিশ কেন্দ্র (আসক) এর হিসাব অনুযায়ী, ২০১৯ সালে এক হাজার ৪১৩ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন৷ ২০১৮ সালে এই সংখ্যা ছিলো ৭৩২জন৷ অর্থাৎ, গত বছরের তুলনায় ধর্ষণের ঘটনা বেড়েছে দ্বিগুণ। এদিকে ২০১৯ সালে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে ৭৬জনকে৷ আর আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছেন ১০জন নারী৷

নারীর প্রতি সহিংসতার অন্য চিত্রগুলোও ভয়াবহ৷ ২০১৯ সালে যৌন হয়ানারীর শিকার হয়েছেন ২৫৮ জন নারী৷ ২০১৮ সালে এই সংখ্যা ছিলো ১৭০ জন৷

২০১৯ যৌন হয়রানীর শিকার ১৮ জন নারী আত্মহত্যা করেছেন৷ প্রতিবাদ করতে গিয়ে চারজন নারীসহ ১৭ জন হত্যার শিকার হয়েছেন৷ যৌন হয়রানীর প্রতিবাদ করতে গিয়ে ৪৪ পুরুষ নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয় হলো এসব ঘটনায় যেসব মামলা হয়েছে তার বিচার হয়েছে মাত্র কয়েকজনের। অনেক ক্ষেত্রে সাক্ষীর অভাবে মামলা এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি। আরেক তথ্য মতে, ২০১১ সাল থেকে ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত ছয়টি জেলায় ৪৩৭২টি ধর্ষণের মামলা হয়েছে, কিন্তু সাজা হয়েছে মাত্র পাঁচ জনের।

এখনই যদি জনগণ সচেতন না হয় এবং সরকার উপযুক্ত পদক্ষেপ না নেয় তাহলে ধর্ষণ খুন আরো ভয়াবহ পরিস্থিতি ধারণ করবে।

লেখক: যুগ্ম বার্তা সম্পাদক, পূর্বপশ্চিমবিডি নিউজ

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এআর

ধর্ষণ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close