• সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯
  • ||

নভেম্বরে ৪৬৩ সড়ক দুর্ঘটনায় ৫৫৪ মৃত্যু

প্রকাশ:  ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:১৫
নিউজ ডেস্ক

নভেম্বর মাসে সারা দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় সাড়ে পাঁচশ প্রাণহানি ঘটেছে। আহত হয়েছেন প্রায় সাড়ে সাতশ মানুষ। রোববার রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে।

সংস্থাটি বলছে, বিগত মাসটিতে মোট ৪৬৩টি দুর্ঘটনায় ৫৫৪ জন নিহত এবং ৭৪৭ জন আহত হয়েছেন। এর আগের অক্টোবর মাসে ৪২৭টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৪৮২ জন নিহত হয়েছিলেন। সেই হিসাবে নভেম্বরে দুর্ঘটনা বেড়েছে ৮ দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং প্রাণহানি বেড়েছে ১৪ দশমিক ৯৩ শতাংশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, নভেম্বর মাসে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ছিল ৪১ দশমিক ৯০ শতাংশ (১৯৪টি)। এতে নিহত হয়েছেন ২২৯ জন। যা মোট প্রাণহানির ৪১ দশমিক ৩৩ শতাংশ। এসব দুর্ঘটনায় ১২৩ জন পথচারী নিহত হয়েছেন। যা মোট প্রাণহানির ২২ দশমিক ২০ শতাংশ। এ ছাড়া যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ৭৯ জন।

দেশের শীর্ষ ৯টি জাতীয় দৈনিক, ৭টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও ইলেকট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন।

প্রতিবেদনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী— সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি ঘটেছে ঢাকা বিভাগে। আর সবচেয়ে কম সিলেট বিভাগে। ঢাকা বিভাগে ১৪২টি দুর্ঘটনায় ১৭৪ জন নিহত হয়েছেন। এরমধ্যে রাজধানীতে ১৮টি দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত ও ২২ জন আহত হয়েছেন। সিলেট বিভাগে ১৯টি দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ২০ জন।

এদিকে জেলা হিসেবে চট্টগ্রামে সবচেয়ে বেশি ২৭টি দুর্ঘটনা ঘটেছে এবং ময়মনসিংহ জেলায় সবচেয়ে বেশি ২৫ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সবচেয়ে কম দুর্ঘটনা ঘটেছে মানিকগঞ্জ, নড়াইল, ঝালকাঠি, লালমনিরহাট ও রাঙ্গামাটি জেলায়। এই পাঁচ জেলায় ১১টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। তবে কোনো প্রাণহানি ঘটেনি।

নভেম্বর মাসে প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছেন ১৮ দশমিক ৪৬ জন। অর্থাৎ প্রায় ১৯ জন। দুর্ঘটনায় ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সী কর্মক্ষম মানুষ নিহত হয়েছেন।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশন বলছে, ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-পিকআপসহ পণ্যবাহী দ্রুতগতির যানবাহন ও মোটরসাইকেল দুর্ঘটনাও বেড়েছে। মানসিক ও শারীরিকভাবে অসুস্থ ড্রাইভারদের বেপরোয়া গতিতে পণ্যবাহী যানবাহন চালানো এবং অপ্রাপ্ত বয়স্ক ও যুবকদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর কারণে তারা নিজেরা দুর্ঘটনায় পতিত হচ্ছেন এবং অন্যান্য যানবাহনকেও এর শিকার হতে হচ্ছে। তাই গণপরিবহন সহজ, সাশ্রয়ী ও উন্নত করে, যানজট কমিয়ে মোটরসাইকেল নিরুৎসাহিত করা জরুরি।

সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক সাইদুর রহমান বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’ বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে আন্তরিকভাবে উদ্যোগী হতে হবে।

তার দাবি, সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে মূলত সড়ক পরিবহন খাতের নৈরাজ্য ও অব্যস্থাপনার কারণে। এই অবস্থার উন্নয়নে টেকসই গণপরিবহন কৌশল প্রণয়ন করতে হবে। এ জন্য সরকারের রাজনৈতিক সদিচ্ছা প্রয়োজন।

সড়ক দুর্ঘটনা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close