• বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯
  • ||

১৩ টাকার ভাড়া ২০ টাকা আদায়, নৈরাজ্য চলছেই

প্রকাশ:  ১৪ আগস্ট ২০২২, ০০:০৬
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর মিরপুরের টেকনিক্যাল মোড় থেকে সায়েন্স ল্যাব পর্যন্ত বাসে সরকারনির্ধারিত ভাড়া যাত্রীপ্রতি ১৩ টাকা। মিরপুর ও সাভার থেকে আসা বাসগুলো টেকনিক্যাল মোড় থেকে যাত্রী তোলে। দিশারি, বাহন, ট্রান্সসিলভা, সাভার ও মৌমিতা পরিবহনে এই দূরত্বের ভাড়া নেওয়া হয় ২০ টাকা।

রাজধানীতে বাসভাড়ায় এই নৈরাজ্য বন্ধ হচ্ছে না। সরকারনির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৫ থেকে ১৫ টাকা পর্যন্ত বাড়তি আদায় করা হচ্ছে।

মালিক সমিতির ঘোষণার পরও বাতিল হয়নি ওয়েবিল-ব্যবস্থা। আর অনুমোদন না থাকলেও চালু আছে কথিত সিটিং সার্ভিস। ছাড় পেয়ে যাচ্ছে কেবল জরিমানাতেই।

সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে রাজধানীর পরিবহন কোম্পানিগুলো ওয়েবিল প্রথা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছে অনেক আগেই। কিন্তু এখনও তা কার্যকর হয়নি। বাসগুলোতে চলছে ভাড়া-নৈরাজ্য। জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর সীমা ছাড়িয়েছে যাত্রী-হয়রানি।

সরেজমিনে দেখা যায়, রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে বাস কোম্পানিগুলোর নিয়োগপ্রাপ্ত লাইনম্যানরা কাজ করছেন যথারীতি। সিটিং সার্ভিস বা ওয়েবিলের নামে যাত্রীদের কাছ থেকে নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। যদিও ক্যামেরার সামনে এসেই তা অস্বীকার করছেন তারা। কিন্তু চালক ও যাত্রীরা বলছেন, আগের মতোই চলছে ওয়েবিল।

ভাড়া-নৈরাজ্য ঠেকাতে নগরজুড়ে পরিচালনা করা হচ্ছে বিআরটিএ’র ভ্রাম্যমান আদালত। বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং ভাড়ার তালিকা না থাকায় করা হচ্ছে জরিমানা।

এমন প্রেক্ষাপটে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার আবারও নিশ্চিত করে বললেন, ওয়েবিল কিংবা সিটিং সার্ভিস বলতে কিছু নেই।

এদিকে, মিটারে যাত্রী না নেয়ায় সিএনজি অটোরিক্সা চালকদেরও এদিন জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

পূর্বপশ্চিম/ম

বাস ভাড়া
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close