• বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯
  • ||

দেশে ৬ মাসে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় নিহত ৩৩৩ শ্রমিক

প্রকাশ:  ০১ জুলাই ২০২২, ১৬:২৩
নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) কর্মক্ষেত্রে ২৪১টি দুর্ঘটনায় ৩৩৩ জন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে পরিবহন খাতে সবচেয়ে বেশি ১৩৮ জন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আর সম্প্রতি সীতাকুণ্ডে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৪৯ জন।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) প্রকাশিত বেসরকারি সংস্থা সেইফটি অ্যান্ড রাইটস সোসাইটির (এসআরএস) এ জরিপ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরের ওপর ভিত্তি করে এসআরএস এ জরিপ প্রতিবেদন প্রকাশ করে। গত বছরও একই সময়ে এমন একটি জরিপ প্রকাশ করেছিল সংস্থাটি। গত বছরে কর্মক্ষেত্রে ২২০টি দুর্ঘটনায় ৩০৬ জন শ্রমিক নিহত হয়েছিলেন।

জরিপ প্রতিবেদনের ফলাফলে বলা হয়, সেবামূলক প্রতিষ্ঠানগুলোতে নিহত হয়েছেন ১০০ জন। এছাড়া নির্মাণ খাতে ৪৮ জন, কারখানা ও অন্যান্য উৎপাদনশীল প্রতিষ্ঠানে ২৬ জন এবং কৃষি খাতে ২১ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। সড়ক দুর্ঘটনায় ১৫৩ জন শ্রমিক মারা যান। এছাড়া আগুনে পুড়ে ৫৭ জন, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ২৫ জন, শক্ত বা ভারি কোনো বস্তুর আঘাতে বা তার নিচে চাপা পড়ে ২৩ জন, ওপর থেকে পড়ে গিয়ে ১৯ জন, বজ্রপাতে ১৫ জন, বয়লার বিস্ফোরণে ১৫ জন, রাসায়নিক দ্রব্য বা সেপটিক ট্যাঙ্ক বা পানির ট্যাঙ্কের বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত হয়ে ৯ জন মারা যান। পাহাড়, মাটি, ব্রিজ, ভবন, স্থান বা দেয়াল ধসে ৯ জন এবং পানিতে ডুবে আট শ্রমিক নিহত হন।

জরিপ পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, অনিয়ন্ত্রিত পরিবহন ব্যবস্থা, আইন প্রয়োগে বাধা, বেপরোয়া যান চলাচল ও অদক্ষ চালক পরিবহন দুর্ঘটনার মূল কারণ। সম্প্রতি অগ্নিদুর্ঘটনায় নিহতের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে এসআরএস জানিয়েছে, কারখানায় অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থাকা, কেমিক্যাল সংরক্ষণে অদক্ষতা ও অবহেলা, কারখানা ভবনে জরুরি বহির্গমন পথ না থাকা, কারখানা নির্মাণে সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে অনুমতি না নেয়া, সেফটি বিষয়ে শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ না দেয়া। কোনোরকম নিরাপত্তা ব্যবস্থা না নিয়েই বৈদ্যুতিক লাইন সংযোগ দেয়া এবং ভেজা হাতে মোটর চালু করা, মাথার ওপরে যাওয়া বিদ্যুতের লাইনের নিচে কাজ করা, ভবনের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া বৈদ্যুতিক তারের পাশ দিয়ে লোহার রড ওঠানোকে বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে সংস্থাটি। তাছাড়া ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার না করার কারণেও কিছু দুর্ঘটনা ঘটছে।

পূর্বপশ্চিম-এনই

শ্রমিক নিহত,শ্রমিক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close