• শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ৮ মাঘ ১৪২৮
  • ||

পদত্যাগ পত্রেও মুরাদের ভুল

প্রকাশ:  ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৪২ | আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৫৬
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিতর্কিত তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অবশেষে পদত্যাগ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে নিজ দপ্তরে ইমেইলে তিনি এ পদত্যাগপত্র পাঠান। এখন সেটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। ডা. মুরাদের পদত্যাগ পত্রেও বড় ধরনের ভুল ধরা পড়েছে।

২০১৯ সালের ১৯ মে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে সরিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল ডা. মুরাদ হাসানকে। কিন্তু তার পদত্যাগপত্রে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের গত ১৯ মে তাকে এ দায়িত্ব দেওয়া হয়। এতে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী থেকে ডা. মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্রের কপি এরই মধ্যে সংবাদমাধ্যমের কাছে পৌঁছেছে। সেখানেই এই ভুল ধরা পড়ে।

পদত্যাগ পত্রে ‘ব্যক্তিগত কারণ’ দেখিয়ে পদত্যাগ করতে চান বলে উল্লেখ করেন। তিনি লিখেছেন আমি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে ব্যক্তিগত কারণে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে ইচ্ছুক।

এর আগে সোমবার মুরাদ হাসানকে মঙ্গলবারের মধ্যে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত কয়েকদিন ধরেই বিতর্কিত মন্তব্য ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে ফোনালাপ ফাঁস হওয়ার পর এ নির্দেশ আসে।

ডা. মুরাদ হাসান জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী উপজেলা) আসনের সংসদ সদস্য।

পূর্বপশ্চিম-এনই

ডা. মুরাদ হাসান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close