• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
  • ||

বাংলাদেশের করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে আগ্রহী নেপাল

প্রকাশ:  ২২ অক্টোবর ২০২০, ১৮:২০
নিজস্ব প্রতিবেদক
নেপালের রাষ্ট্রদূত ডা. বংশীধর মিশ্র ও গ্লোবের চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ।

নভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশীয় প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেকের তৈরি টিকা ‘ব্যানকোভিড’র ক্লিনিকাল ট্রায়ালে আগ্রহী নেপাল। ট্রায়ালে সফল প্রমাণিত হলে টিকাটির ২০ লাখ (২ মিলিয়ন) ডোজ নেবে দেশটি।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) তেজগাঁওয়ে গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস প্রধান কার্যালয়ে নেপালের রাষ্ট্রদূত ডা. বঙশীধর মিশ্র এ কথা জানান। এ দিন নেপালের রাষ্ট্রদূত ডা. বঙশীধর মিশ্র ও গ্লোবের চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদের মধ্যে এক সমঝোতা হয় বলেও জানানো হয়েছে।

ডা. বংশীধর মিশ্র বলেন, “নেপাল ‘ব্যানকোভিডের’ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে আগ্রহী। এটি একটি বিরাট অর্জন। নেপালের ‘আনমোল’ নামের একটি কোম্পানি গ্লোব বায়োটেকের টিকা নেবে।”

নেপালের রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, ‘আমরা গ্লোবের ভ্যাকসিনের বিষয়ে খুবই আগ্রহী। আমাদের দুই দেশের সংস্কৃতি-আবহাওয়া একই। গ্লোবের ভ্যাকসিন সফল হলে এটা বাংলাদেশের জন্য একটা বিরাট অ্যাচিভমেন্ট হবে। আর বাংলাদেশের অ্যাচিভমেন্ট মানে এটা আমাদেরও অ্যাচিভমেন্ট।’

হারুনুর রশীদ জানান, এছাড়া আরও একটি দেশ এই ভ্যাকসিনের ২০ মিলিয়ন ডোজ নিতে চেয়েছে। তবে তিনি এই দেশটির নাম বলেননি। গ্লোব বায়োটেকের ব্যানকোভিড ভ্যাকসিনের দাম হতে পারে প্রায় পাঁচ হাজার টাকা। এটি সফল হলে বাংলাদেশের চাহিদা মেটানোর পরই বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ।

এরইমধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট তালিকায় গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের আবিষ্কৃত তিনটি ভ্যাকসিনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। শনিবার (১৭ অক্টোবর) গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যাল গ্রুপ অব কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশীদ ও গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ড. কাকন নাগ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে তারা জানায়, গত ১৫ অক্টোবর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গ্লোব বায়োটেকের আবিষ্কার করা তিনটি ভ্যাকসিনকে কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট তালিকাতে অন্তর্ভুক্ত করেছে। গ্লোবের ভ্যাকসিনের নাম ব্যানকোভিড। ভ্যাকসিন তিনটি হলো, D614G Variant mRNA vaccine, DNA plasmid vaccine এবং Adenovirus Type-5 Vector Vaccine।

আরও জানানো হয়, বাংলাদেশের গ্লোব বায়োটেক-ই বিশ্বের একমাত্র প্রতিষ্ঠান, যাদের সর্বোচ্চ তিনটি ভ্যাকসিনের নাম বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেটের তালিকায় রয়েছে।

এর আগে গত ৫ অক্টোবর গ্লোব জানায়, গ্লোব সফলভাবে প্রাণিদেহে তাদের ট্রায়াল সম্পন্ন করেছে, এখন হিউম্যান ট্রায়ালে যওয়ার জন্য প্রস্তুত। সেদিন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশীদ জানান, সব ঠিকঠাক থাকলে, সরকারের সার্বিক সহযোগিতা পেলে ডিসেম্বরের শেষে অথবা জানুয়ারির শুরুতে আসবে। তবে এজন্য তিনি সরকারের পৃষ্ঠপোষকতার জন্য আবেদন করেন।

তারও আগে গত ২ জুলাই প্রতিষ্ঠানটি তাদের ক্যারোনা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা ঘোষণা দিয়ে জানায়, গত ৮ মার্চ থেকে তারা এই টিকা আবিষ্কারের কাজ শুরু করেছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এনএন

নেপাল,ভ্যাকসিন,বাংলাদেশ,করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

ঘটনা পরিক্রমা : করোনাভাইরাস

cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close