• বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭
  • ||

ক্ষুধা সূচকে ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশ:  ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১৬:২৫
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

বিশ্ব ক্ষুধা সূচক ২০২০ এর তালিকায় ২০.৪ স্কোর নিয়ে ১০৭টি দেশের মধ্যে ৭৫তম স্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। ২০১৯ সালে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৮ নম্বরে।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) চলতি বছরের ‘বিশ্ব ক্ষুধা সূচক’ প্রকাশ করেছে ইন্টারন্যাশনাল ফুড পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট। সেখানে ১৩২টি দেশের ডেটা সংগ্রহ করা হলেও তালিকায় রাখা হয়েছে ১০৭টি দেশকে।

তালিকায় প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে ভারতের অবস্থান ৯৪, পাকিস্তান ৮৮, মিয়ানমার ৭৮, নেপাল ৭৩ এবং শ্রীলঙ্কা ৬৪ নম্বরে আছে।

ক্ষুধা মেটানোর নিরিখে তালিকার একেবারে উপরের দিকে রয়েছে চীন। উল্লেখযোগ্য ভাবে প্রথম ২০টি দেশের মধ্যে উঠে এসেছে ব্রাজিল, চিলি, কিউবা, আর্জেন্তিনা-সহ বেশ লাতিন আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশ।

ক্ষুধা মেটোনোর নিরিখে উদ্বেগজনক জায়গায় রয়েছে আফ্রিকার তিনটি দেশ- চাঁদ, মাদাগাস্কার এবং তিমর।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে কোন দেশের জনগণ কতটুকু ক্ষুধার্ত, তা তুলে ধরা হয় এই বিশ্ব ক্ষুধা সূচক বা গ্লোবাল হাঙ্গার ইনডেক্সে। এই সূচকে শূন্য থেকে ১০০ পয়েন্টের মাপকাঠিতে যাচাই করা হয় কোন দেশ কতটা ক্ষুধাপীড়িত। এই মাপকাঠিতে শূন্য হচ্ছে সবচেয়ে ভালো স্কোর, যার অর্থ সেই দেশটিতে ক্ষুধা নেই। আর ১০০ হচ্ছে সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা।

১০-এর কম স্কোর পাওয়ার অর্থ সেই দেশে ক্ষুধার সমস্যা কম। ২০ থেকে ৩৪ দশমিক ৯ স্কোরের অর্থ তীব্র ক্ষুধা, ৩৫ থেকে ৪৯ দশমিক ৯ অর্থ ভীতিকর ক্ষুধা আর ৫০ বা তার বেশি স্কোর বলতে বোঝায় চরমভাবে ভীতিকর ক্ষুধায় পীড়িত দেশকে।

ক্ষুধা মেটানোর নিরিখে সবচেয়ে ভাল অবস্থানে রয়েছে ১৭টি দেশ। ক্ষুধা সূচকের মাপকাঠিতে এই দেশগুলো রয়েছে ৫-এর নীচে। ৫-এর বেশি কিন্তু ১০-এর নীচে রয়েছে ৩০টি দেশ।

ক্ষুধা সূচকের মাপকাঠিতে ১০ থেকে ২০-র মধ্যে ২৬টি দেশ এবং ২০ থেকে ৫০-এর মধ্যে রয়েছে ৩৫টি দেশ।

দেখা যাচ্ছে, দক্ষিণ এশিয়া এবং আফ্রিকায় ক্ষুধা এবং অপুষ্টির মাত্রা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ক্ষুধার সূচকের মাপকাঠিতে এরা যথাক্রমে ২৬.০ এবং ২৭.৮।

ক্ষুধা সূচকের এই মাপকাঠির ১০০-এর মধ্যে বাংলাদেশের স্কোর ২০.৪। এর আগে ২০০০ সালে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৩৬, যা ক্ষুধা সূচকে ভীতিকর অবস্থাকে নির্দেশ করে । ২০১০ সালে স্কোর কিছুটা কমে হয় ৩০ দশমিক ৩। অর্থাৎ ক্ষুধা সূচকে বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে উন্নতি করে যাচ্ছে।

ভারতের স্কোর ২৭.২। ফলে 'গুরুতর' জায়গায় দাঁড়িয়ে রয়েছে ভারত। তবে ২০০০, ২০০৬ এবং ২০১২-র তুলনায় এই পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। ২০১২ সালে ভারতের স্কোর ছিল ২৯.৩, ২০০৬-এ ৩৭.৫ এবং ২০০০ সালে ৩৮.৯।

এই মাপকাঠিতে ১০০-এর মধ্যে শ্রীলঙ্কার স্কোর ১৬.৩, নেপাল ১৯.৫, এবং পাকিস্তান ২৪.৬।

অপুষ্টি, শিশুমৃত্যু, পাঁচ বছরের কমবয়সি শিশুর উচ্চতার তুলনায় কম ওজনের মতো কয়েকটি মাপকাঠিতে বিভিন্ন দেশকে বিচার করে বিশ্ব ক্ষুধা সূচক।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জেডআই

ক্ষুধা সূচক
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close