• রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
  • ||

করোনায় বাংলাদেশে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমেছে ৮৭ শতাংশ : এডিবি

প্রকাশ:  ৩০ মে ২০২০, ০০:৪১ | আপডেট : ৩০ মে ২০২০, ০০:৪৫
নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে বিশ্ব। এর প্রভাব এরই মধ্যে পড়েছে বিশ্ব অর্থনীতিতে। করোনায় এ পর্যন্ত লাখ লাখ মানুষ বেকার হয়েছেন। একইসঙ্গে কমেছে চাকরির সার্কুলার ও আবেদনের হার। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও অনেক মানুষ চাকরি হারিয়েছেন।

বাংলাদেশে ২০১৯ সালের এপ্রিলের তুলনায় চলতি বছরের এপ্রিলে অনলাইনে চাকরির সার্কুলারের হার কমেছে ৮৭ শতাংশ। সবচেয়ে বেশি চাকরির সার্কুলার কমেছে পোশাক ও শিক্ষা খাতে। সার্কুলার কমলেও খাতগুলোর মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে এনজিও।

শুক্রবার (২৯ মে) ‘কোভিড-১৯ ইমপ্যাক্ট অন জব পোস্টিংস: রিয়েল টাইম অ্যাসেসমেন্ট ইউজিং বাংলাদেশ অ্যান্ড শ্রীলঙ্কা অনলাইন জব পোর্টালস’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এডিবি। সংস্থাটির বহিঃসম্পর্ক বিভাগের টিম লিডার গোবিন্দ বার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

প্রতিবেদনে বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন জব পোর্টাল বিডিজবসের তথ্য উপাত্ত ব্যবহার করা হয়েছে। আর শ্রীলঙ্কার টপজবসডটএলকের তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে। শ্রীলঙ্কার এই পোর্টালে গত এপ্রিল মাসে অনলাইনে চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমেছে ৭০ শতাংশ।

এডিবি বলছে, দুই দেশের এই দুটি সাইটে সবচেয়ে বেশি চাকরির সার্কুলার হয়। যদিও এ দুটো সাইট ছাড়াও দুই দেশেই আরও অনেক চাকরির বিজ্ঞাপন সম্পর্কিত সাইট রয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে বাংলাদেশের জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছিল ৭ দশমিক ৯ শতাংশ, যা এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের মধ্যে সর্বোচ্চ। এ অবস্থায় ২০১৯ সালে বিডিজবস ডটকমে ৬০ হাজার চাকরির সার্কুলার হয়। এ পোর্টালে প্রতিদিন প্রায় এক মিলিয়ন পেজ ভিউ হয়।

তবে প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশের তুলনায় শ্রীলঙ্কা ভালো অবস্থানে রয়েছে। গত বছরের তুলনায় চলতি বছরের এপ্রিলে শ্রীলঙ্কায় চাকরির সার্কুলার কমেছে ৭০ শতাংশ। যেখানে বাংলাদেশে কমেছে ৮৭ শতাংশ।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিপি) করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের চাকরি খোঁজার পোর্টালে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে দেখা গেছে, গত এপ্রিল মাসে এই অনলাইন পোর্টালে আগের বছরের এপ্রিলের তুলনায় ৮৭ শতাংশ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমেছে।

অনলাইনে পোর্টালের মাধ্যমে চাকরি খোঁজা এখন দেশের তরুণ প্রজন্মের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়েছে।

এডিবি বলছে, বাংলাদেশের অনলাইন জবপোর্টালের নেতৃত্ব দেওয়া বিডিজবসে ২০১৯ সালে ৬০ হাজারের বেশি চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। পোর্টালটির ভিজিটর সংখ্যা প্রতিদিন গড়ে দুই লাখ। এডিবির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা পরিস্থিতির কারণে গত মার্চের তৃতীয় সপ্তাহ থেকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমতে থাকে। গত ডিসেম্বর ও জানুয়ারিতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির সংখ্যা তেমন একটা কমেনি। ফেব্রুয়ারি মাসে অবশ্য কিছুটা কমেছে। এডিবি বলছে, গত এপ্রিল মাসে আগের বছরের এপ্রিলের তুলনায় ৮৭ শতাংশ কম নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এসেছে। আর মার্চ মাসে তা ছিল ৩৫ শতাংশ।

কোন খাতে কত শতাংশ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি থাকে, এর চিত্রও তুলে ধরা হয়েছে এডিবির ওই প্রতিবেদনে। এডিবি বলছে, বিডিজবসে যত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়, তার মধ্যে ১৫ শতাংশ করে বস্ত্র খাত এবং বেসরকারি সংস্থার (এনজিও) চাকরিসংক্রান্ত। এছাড়া উৎপাদন খাতের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি থাকে ১৩ শতাংশ।

করোনার কারণে কোন খাতে কত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমেছে, সেটাও দেখিয়েছে এডিবি। এডিবি বলছে, গত এপ্রিল মাসে আগের বছরের একই মাসের তুলনায় বস্ত্র খাতে ৯৫ শতাংশ চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেওয়া কমেছে। উৎপাদন খাতে এই কমার প্রবণতা ৯২ শতাংশ।

এর কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রে পোশাকসহ অন্যান্য পণ্য রপ্তানিতে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে, এই শঙ্কায় এসব খাতে নতুন নিয়োগ দেয়ার চিন্তা কমেছে।

একইভাবে স্বাস্থ্য ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কমেছে যথাক্রমে ৮২ ও ৮১ শতাংশ। এনজিও খাতে নতুন লোকের সন্ধান কমেছে ৬৪ শতাংশ। এডিবি মনে করে, করোনার কারণে নানা ধরনের সহযোগিতা কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় এনজিও খাতে অন্য খাতের মতো জোরালো প্রভাব পড়েনি।

এডিবি বলছে, অনলাইনে চাকরির আবেদনের ক্ষেত্রে গত মার্চ মাসে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৬৩ শতাংশ এবং এপ্রিলে ১৯ শতাংশ কমেছে।

চাকরির সার্কুলার কমার পাশাপাশি স্বাভাবিকভাবে চাকরি আবেদনও কমেছে বলে উল্লেক করা হয়েছে প্রতিবেদনে।


পূর্বপশ্চিমমিডি/ওআর

চাকরি,নিয়োগ,এডিবি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close