• শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

৫ মে পর্যন্ত ছুটিতে নেই জরুরি ৪ নির্দেশনা

প্রকাশ:  ২৩ এপ্রিল ২০২০, ২২:১২ | আপডেট : ২৩ এপ্রিল ২০২০, ২২:৩১
নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বিস্তার রোধে সাধারণ ছুটি ফের বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এবার সাধারণ ও সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে ১০ দিন বেড়েছে ছুটি ৫ মে পর্যন্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) দুপুরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এ নিয়ে পঞ্চম দফায় ছুটি বাড়ালো সরকার।

২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটিতে বেশ কিছু নির্দেশনা কঠোরভাবে মানতে বলা হয়েছিল, তার মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রশমনে জনগণকে অবশ্যই ঘরে অবস্থান করতে হবে, খুব প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হতে সবাইকে অনুরোধ করা হয়, সন্ধ্যা ৬টার পর কেউ ঘরের বাইরে বের হতে পারবেন না, নির্দেশ অমান্য করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে, এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় চলাচল কঠোরভাবে সীমিত করা হয়। কিন্তু এবারের ছুটিতে সরকারের এসব কঠোর নির্দেশনা বাদ দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন বলেন, ২৫ এপ্রিলের পর থেকে বর্ধিত সরকারি ছুটির নতুন নির্দেশনা কার্যকর হবে। এবারের ছুটির প্রজ্ঞাপনে যেভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সেটাই প্রযোজ্য হবে। কিছু নির্দেশনা বাদ দেওয়া হয়েছে, আবার নতুন কিছু নির্দেশনা যুক্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত সরকারি চাকরিজীবীরা ক্ষতিপূরণ পাবেন গ্রেড ভেদে

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী জরুরি পরিষেবা যেমন বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট ইত্যাদি খাত সাধারণ ছুটির আওতায় থাকবে না। এছাড়া কৃষি পণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্প পণ্য, চিকিৎসা সরঞ্জাম, জরুরি ও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন এবং কাঁচা বাজার, খাবার, ওষুধের দোকান ও হাসপাতালও ছুটির আওতার বাইরে।

ছুটিতে জরুরি প্রয়োজনে অফিস খোলা রাখা যাবে। প্রয়োজনে ওষুধশিল্প, উৎপাদন ও রফতানিমুখি শিল্প কারখানাগুলো চালু রাখতে পারবে। জনগণের প্রয়োজন বিবেচনায় ছুটিকালীন বাংলাদেশ ব্যাংক সীমিত আকারে ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালুর যে নির্দেশনা দিয়েছে তা বহাল থাকবে।

এর আগে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে প্রথমবার ২৬ মার্চ থেকে ১০ দিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে সরকার। ওই ছুটির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সাধারণ ছুটি আরও এক সপ্তাহ বাড়িয়ে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়।

এরপর ১২ ও ১৩ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে ১৪ এপ্রিল বাংলা নববর্ষের নির্বাহী আদেশের ছুটিকেও এর সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া হয়। এর মধ্যেও করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হলে ১৫ এপ্রিল থেকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। ২৪ ও ২৫ এপ্রিল যথাক্রমে শুক্র ও শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় এই দুই দিনকেও সংযুক্ত করা হয় সাধারণ ছুটির সঙ্গে। সে হিসাবে ২৫ এপ্রিল শেষ হতো এ আগের ঘোষিত সাধারণ ছুটির মেয়াদ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close