• বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

করোনার ঝুঁকিতে মুক্তি পাচ্ছে তিন হাজার বন্দি

প্রকাশ:  ০১ এপ্রিল ২০২০, ০২:৩৬ | আপডেট : ০১ এপ্রিল ২০২০, ০২:৫৫
নিজস্ব প্রতিবেদক

বৈশ্বিক মহামারি করোনা সংক্রমণ এড়াতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতোই কারাবন্দিদের মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে সরকার। দেশের কারাগারগুলোকে করোনামুক্ত রাখতে সচেতনতামূলক কার্যক্রমের পাশাপাশি বন্দির সংখ্যা কমানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। জামিনযোগ্য ধারায় মুক্তি পেতে পারে, এমন বন্দিদের একটি তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। এতে প্রায় তিন হাজার বন্দির মুক্তির বিষয়টি বিবেচনা করতে বলা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে কারাগারগুলোতে বন্দির সংখ্যাধিক্যের কথা উল্লেখ করে কারাকতৃপক্ষের তিন হাজার বন্দি মুক্তির প্রস্তাব সম্বলিত তালিকাটি এরই মধ্যে মন্ত্রণালয়ে এসে পৌছেছে। স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রণালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে এই তালিকাটি সংশ্লিষ্ট আদালতে পাঠানো হবে। বিচারক জামিন দিলেই তারা ‍মুক্তি পাবেন।

সূত্র জানায়, আইনের আরেকটি ভিন্ন ধারার আওতায় আরও দেড় হাজার বন্দিকে মুক্তির কথাও ভাবছে সরকার। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে যারা ২০ বছরের বেশি কারাগারে রয়েছে তাদের সাধারণ ক্ষমার আওতায় মুক্তি দেওয়ার বিষয়ে আইনগত বৈধতার যাচাই বাছাই চলছে।

সরকারের নির্দেশনার তিন হাজার বন্দির একটি তালিক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর সত্যতা নিশ্চিত করে মঙ্গলবার কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল আবরার হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, প্রতিটি কারাগারে বন্দি সংখ্যা ধারণক্ষমতা বেশি। এক্ষেত্রে ভাইরাস সংক্রমন ঘটলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। এর মধ্যে বিশ্বের অনেক দেশ কারাবন্দিদের মুক্তি দিয়েছে। পরিস্থিতির কারণে তাই জামিনযোগ্য ধারায় কিছু বন্দির মুক্তির বিষয়টি নিয়ে ভাবা হচ্ছে। আমাদের পাঠানো তালিকা খতিয়ে দেখছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এরপর এটি আইন ও বিচার বিভাগে যাবে। জামিনযোগ্য ধারায় বিচারক তাদের জামিন দিলেই কারা কর্তৃপক্ষ মুক্তি দিতে পারবে।

দেশের কোনো কারাগারে কোনো কারাবন্দির মধ্যে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি জানিয়ে কারা মহাপরিদর্শক বলেন, সকল কারাবন্দিকে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষ করা হয়। কারো মধ্যেই করোনার লক্ষণ পাওয়া যায়নি। তবুও বাড়তি সতর্কতা হিসেবে করোনাভাইরাস রোধে সচেতনতামূলক নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। এই সতর্কতার অংশ হিসেবেই বন্দি কমানোর পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দেশের ৬৮টি কারাগারের ৯০ হাজারের মতো বন্দি রয়েছে।যা কারাগারগুলো ধারণক্ষমতার প্রায় তিনগুণ। প্রতিটি কারাগারেই এক জায়গায় অনেক বন্দি থাকেন। তাদের অন্যত্র যাওয়ার সুযোগও থাকে না। তাই এ ধরনের আবদ্ধ জায়গায় করোনার সংক্রমণ ঘটলে তা বিপজ্জনক হতে পারে। এই বিবেচনাতেই জামিনযোগ্য ধারার বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

পূর্বপশ্চিম- এনই

বন্দি,কারাবন্দি মুক্তি,কন্দি মুক্তি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close