• মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭
  • ||

দেশে নিরাপত্তা ঝুঁকি, স্ত্রী-সন্তান ও মাকে নিউইয়র্কে রাখবেন ব্যারিস্টার সুমন!

প্রকাশ:  ০৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৩:২৯ | আপডেট : ০৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৩:৫১
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা-ব্রিজ নির্মাণ, ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন, এলাকার বিভিন্ন দুর্নীতি-অসঙ্গতি নিয়ে লাইভ প্রোগ্রামসহ ব্যতিক্রমী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আলোচনায় রয়েছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। নিউইয়র্কে ‍‌‌‌‌‌‌‌‌নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে নিজ স্ত্রী, সন্তান ও মাকে নিউইয়র্কে রেখে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমি বাংলাদেশে জীবনের সবচেয়ে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছি। তাই এবারই প্রথম সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমার দুই বাচ্চা, আমার মা এবং আমার স্ত্রীকে আমেরিকায় রেখে যাব। আমি যদি বেঁচে না থাকি আমি চাই না যে আমার পরববর্তী প্রজন্ম ওই ভাবে ভোগান্তিতে পড়ুক।

স্থানীয় সময় বুধবার (১ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় ব্রঙ্কসের বাংলাবাজার-স্টার্লিং এলাকায় আল আকসা পার্টি হলে ব্রঙ্কস-বাংলাদেশি কমিউনিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিস্টার সুমন এসব কথা বলেন।

আয়োজক কমিটির আহবায়ক শেখ জামাল হুসেনের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব রেজা আবদুল্লাহর পরিচালনায় উৎসবমুখর পরিবেশের এ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন প্রধান আলোচক মূলধারার রাজনীতিক মোহাম্মদ এন মজুমদার, রাজনীতিক আবদুর রহিম বাদশা, মার্কস হোম কেয়ারের ম্যানেজার আলমাস আলী, কমিউনিটি এক্টিভিস্ট হাসান আলী, প্রধান সমন্বয়কারী এ ইসলাম মামুন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার সৈয়দ সাঈদুল হক সুমন আরও বলেন, বাংলাদেশের এখন যে অবস্থা আল্লাহ যেন আমাকে মন্ত্রী বানিয়ে বেইজ্জত না করার চেয়ে ব্যারিস্টার সুমন হিসেবে যদি রাখেন তাতে আমি বেশি কৃতজ্ঞ থাকবো। বাংলাদেশে হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টানরা সংখ্যালঘু নয়। বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হচ্ছে সৎলোক। দেশে নেতার অভাব নেই কিন্তু সৎলোকের অভাব। সৎলোকের অভাবের কারণেই বাংলাদেশ এত পিছিয়ে আছে।

অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার সুমন আরও বলেন, যারা বাংলাদেশের ভাল চায় তারা বেঁচে থাকতে পারেননি। আমিও বাংলাদেশের ভাল চাই। তাই আমাকেও মেরে ফেলতে পারে। প্রধান আলোচক মোহাম্মদ এন মজুমদার মানবতার সেবায় ব্যারিস্টার সুমনের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে ব্যারিস্টার সাঈদুল হক সুমনকে আয়োজকদের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। তিনি আয়োজকদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সব সময় তার এলাকাসহ বাংলাদেশের দরিদ্র-অসহায়দের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের শীতার্তদের সাহায্যার্থে অর্থ সংগ্রহ করা হয়। শীতার্ত তহবিলে প্রায় এক হাজার ডলার সংগৃহীত হয়।

পরে সাংস্কৃতিক পর্বে প্রবাসের জনপ্রিয় শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন। শিল্পীদের অসাধারণ পরিবেশনা দর্শকদের দারুণভাবে মুগ্ধ করে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

ব্যারিস্টার,সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন,আমেরিকা,ব্রঙ্কস-বাংলাদেশি কমিউনিটি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত