Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

আদালতে কান্নায় ভেঙে পড়ে যা বললেন রিশার মা 

প্রকাশ:  ১০ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৪০ | আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৪৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশা (১৫) হত্যা মামলার রায় ঘোষণার সময় শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আদালতে ছিলেন মা তানিয়া হোসেন ও বাবা রমজান আলী। আদালতে যতক্ষণ অবস্থান করেন রিশার মা তার চোখ ছিল অশ্রুসিক্ত, তুলনামুলক শান্ত ছিলেন নিহতের বাবা। তাদের সঙ্গে আদালতে ছিল রিশার ছোট ভাই ও বোন।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে আসামি ওবায়দুলের মৃত্যুদণ্ডের রায় শোনার পর রিশার মা নিজেকে আর সামলে রাখতে পারেননি। আদালত চত্বরে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। এসময় রিশার বাবাকে দেখা তাকে জড়িয়ে ধরে সান্তনা দিতে। তবে তার চোখ থেকে এসময় ঝরছিল পানি।

পরে সাংবাদিকরা রায়ের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে চোখ মুছে রিশার মা তানিয়া হোসেন বলেন, এই রায়ে আমরা সন্তুষ্ট। আমরা চাই রায়টা যেন উচ্চ আদালতে বহাল থাকে। ফাঁসির রায় যেন দ্রুত কার্যকর করা হয়। আমার মতো যেন আর কোনো মায়ের কোল খালি না হয়।

রায় শুনতে এদিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবুল হোসেন ও গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান আরেফুর রহমান টিটু। তারাও রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে তা দ্রুত কার্যকরের দাবি জানান। রিশা হত্যা মামলার রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেন, ঠান্ডা মাথায় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রিশা স্কুলে যাওয়ার পথে আসামি ওবায়দুল খান রিশাকে চাকু দিয়ে পেটের বাঁ পাশে আঘাত করলে আঘাতটি তার পিঠের পেছনে গিয়ে লাগে। এই আঘাতে রিশার মৃত্যু হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২৪ আগস্ট দুপুরে রিশাকে ছুরিকাঘাত করা হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৮ আগস্ট তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় রিশার মা তানিয়া হোসেন বাদী হয়ে রমনা থানায় মামলা দায়ের করেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি-এনই

রিশা হত্যা,রিশা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত