• সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

কেন্দ্রে ভোটার নেই, সিইসির বড়শিতে মাছ ধরা পড়েছে!

প্রকাশ:  ০৫ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:৪৪ | আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০১৯, ১৯:৩৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
ইসির লেকে মাছ শিকার করছেন সিইসি কেএম নূরুল হুদা

জাতীয় পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এখন চলছে গণনা। দিনভর ভোটগ্রহণ করা হলেও অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিতি দেখা যায়নি।

উপ-নির্বাচন নিয়ে স্থানীয়দের কোনো আগ্রহ নেই। তবে ভোটারের উপস্থিতি কম হলেও ভাল ভোট হয়েছে বলে মনে করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইতোমধ্যে বিএনপির প্রার্থী রিটা রহমান অভিযোগ তুলেছেন ভোটের আগের রাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী প্রার্থী সমর্থকদের বাড়িতে হানা দিয়েছে। আবার, ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার অন্তত দুই ঘণ্টা আগে মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাদ এরশাদ শতভাগ জয় পাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

তবে নির্বাচন কমিশনকেও ভোটের পুরোটা সময় ফুরফুরে মেজাজেই দেখা গেছে। মাছ শিকার করে সময় কাটিয়ে ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার আগে তারা নির্বাচন ভবন ছেড়েছেন।

এই অবস্থায় আগারগাঁওয়ে অবস্থিত কার্যালয়ে দেখা গেল মাছ শিকারে নেমেছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) কর্মকর্তারা।

শনিবার (০৫ অক্টোবর) দুপুরে কর্মচারীরা লেক চত্বর সাজাতে থাকেন। সেখানে আসে সোফা, চেয়ার। একটু পরই আনা হয় ছয়টি বরশি। বানানো হয় মাছের টোপ।

তিন-সোয়া তিনটার দিকে নির্বাচন ভবন থেকে নেমে আসেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, ইসি সচিব মো. আলমগীর, অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমানসহ অনেকে।

ইসির লেকে বরশি ফেলেই প্রথমে টোপ খাইয়ে মাছ তুলে আনেন সিইসি। অন্যরা যখন একটাও ধরতে পারেনি, সিইসি একাই ততক্ষণে তিনটি তুলে নিয়েছেন নিজের ঝুলিতে। কমিশনার শাহাদাত হোসেন, সচিব আলমগীর ততক্ষণে একটি করে মাছ আটকাতে পেরেছেন।

উল্লেখ্য, আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবন ও নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মাঝে একটা লেক তৈরি করা হয়েছে। ভেতরে আছে ফোয়ারাও। আর এতেই দেশি-বিদেশি নানা প্রজাতির মাছ চাষ করছে ইসি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর এই লেক থেকেই মাছ তুলে বারবিকিউ পার্টি করেছে কমিশন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ওআর

রংপুর,রংপুর-৩,এরশাদের আসন,ভোট,উপ-নির্বাচন,এরশাদ পুত্র সাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close