• মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

যুবলীগ চেয়ারম্যানের প্রশ্ন, র‌্যাব-পুলিশ কি আঙ্গুল চুষছিলেন?

প্রকাশ:  ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:২৯
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর ফকিরেরপুলে ইয়ংমেন্স ক্লাব নামে ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদকে আটক করেছে র‌্যাব। এদিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। তিনি বলেছেন, আপনারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী র‌্যাব-পুলিশ কি আঙ্গুল চুষছিলেন?

যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে বুধবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গ্রেপ্তারের আগে র‌্যাবের অভিযানের তোড়জোড়ের মধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান যুবলীগ চেয়ারম্যান।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আপনারা বলছেন, ৬০টি ক্যাসিনো আছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ৬০ জন কি আঙ্গুল চুষছিলেন? আপনারা কি আঙ্গুল চুষছিলেন? তাহলে যেই ৬০ জায়গায় ক্যাসিনো; সেই ৬০ জায়গার থানাকে অ্যারেস্ট করা হোক। সেই ৬০ জায়গায় যারা র‌্যাব ছিল; তাদের অ্যারেস্ট করা হোক।

ওমর ফারুক চৌধুরী আরও বলেন, আমাকে অ্যারেস্ট করবেন? করেন। আমি রাজনীতি করি। আমি একশ বার অ্যারেস্ট হব। আমি অন্যায় করেছি। আপনারা কী করেছেন? আপনারা অ্যারেস্ট করবেন। আমি বসে থাকব না। আপনাকেও অ্যারেস্ট হতে হবে। কারণ, আপনি প্রশ্রয় দিয়েছেন।

উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে ওমর ফারুক বলেন, পাঁচশ জায়গা নির্ধারণ করলেন ক্যাসিনো চলে, যুবলীগ চালায়। আপনি সাংবাদিক, আপনাকে বলতে হবে, সেই ক্যাসিনোগুলো কোথায়? কারা কারা জড়িত?

বুধবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টা ২৫ মিনিটের দিকে র্যাবের একটি দল গুলশানের নিজ বাসা থেকে খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে আটক করেন। এ সময় ওই বাসা থেকে অবৈধ অস্ত্র ও মাদক উদ্ধার করা হয়। সেই সঙ্গে ফকিরাপুলে অবস্থিত তার ক্যাসিনোতে অভিযান চালিয়ে ১৪২ জনকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজাও দেয়া হয়। উদ্ধার করা হয় ২০ লক্ষাধিক টাকা ও বিপুল পরিমাণ মাদক।

খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে আটকের প্রতিক্রিয়ায় যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক বলেন, ‘ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগ অত্যন্ত সুসংগঠিত একটি ইউনিট। তাদের বিরুদ্ধে এতদিন কোনো অভিযোগ এলো না, হঠাৎ কেন অভিযোগ আসল? আর অভিযোগ থাকলে এতদিন কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি?’ খালেদের গ্রেফতার দল ও যুবলীগকে পঙ্গু করার ষড়যন্ত্র কি-না, সে প্রশ্নও রাখেন যুবলীগের চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে তা আওয়ামী যুবলীগের নিজস্ব ট্রাইব্যুনালের মাধ্যমে তদন্ত করা হবে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে দলীয় কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তিনি এ সময় অনলাইন সাংবাদিকদেরও সমালোচনা করেন। বলেন, অনলাইন মিডিয়ায় আসল ৫শ’ জায়গায় ক্যাসিনো চলছে, তো ৫শ’ জায়গায় তো ক্যাসিনো একদিনে হয়নি। প্রিন্ট মিডিয়ায় আসলো না কেন?

পূর্বপশ্চিমবিডি/এস.খান

যুবলীগ চেয়ারম্যান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close