Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||
শিরোনাম

সেদিন কেয়ামত থেকে ফিরে এসেছিলাম: সুলতান মনসুর

প্রকাশ:  ২১ আগস্ট ২০১৯, ১৪:০৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

২১ আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার কথা স্মরণ করতে গিয়ে আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, ডাকসুর সাবেক ভিপি ও মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেছেন, সেই বিভৎস দৃশ্য আর পাষণ্ডদের হিংস্র তাণ্ডব আজও যেন চোখের সামনে স্পষ্ট হয়ে ভাসে। মৃত্যু আর রক্তস্রোতের সেই ভয়ঙ্কর স্মৃতি আজও তাড়া করে। আমরা যেন জীবিত থেকেও মৃত। মৃত্যুযন্ত্রণায় কাতর সেই সময়কার মুখগুলো এখনো আমাকে তাড়া করে। হয়তো আমৃত্যু তাড়া করেই যাবে। কারণ চোখের সামনেই সেদিন আমি কেয়ামত দেখেছিলাম। প্রিয় মানুষদের এভাবে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ার দৃশ্য দেখে নিজের আহত হওয়ার কথাও ভুলে গিয়েছিলাম। পরবর্তীতে আকস্মিক জ্ঞান ফিরলে জানলাম আমি আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। চিকিৎসকরা আমাকে জানালেন, নিবেদিতপ্রাণ নেতাকর্মীদের কয়েকজন অজ্ঞান অবস্থায় আমাকে ধরে নিয়ে এসেছেন।

গ্রেনেড হামলায় অনেকের সাথে গুরুতর আহত হয়েছিলেন সুলতান মনসুর। গ্রেনেডের স্প্রিন্টার আজও তার শরীরে। এর যন্ত্রণা কিছুটা কমে আসলেও মানসিক যন্ত্রণা আজও তার সঙ্গী। সেদিন শহীদ হন আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নারী নেত্রী আইভী রহমানসহ ২৪ জন নেতাকর্মী। নিবেদিত কর্মীরা তাৎক্ষণিক মানবপ্রাচীর তৈরী করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেন।

দিনটি ছিল শনিবার। বিকেলে বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউয়ে সন্ত্রাস ও বোমা হামলার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের সমাবেশ। সমাবেশ শেষে সন্ত্রাসবিরোধী মিছিল হওয়ার কথা। তাই মঞ্চ নির্মাণ না করে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে একটি ট্রাককে মঞ্চ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

সমাবেশে অন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের বক্তব্যের পর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্যের শেষপ্রান্ত। তখন আনুমানিক বিকেল সাড়ে ৫টা। হঠাৎ করেই শুরু হয়ে গেল নারকীয় গ্রেনেড হামলা। বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হতে লাগল একের পর এক গ্রেনেড । বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ মুহূর্তেই পরিণত হলো মৃত্যুপুরীতে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই মুহুর্মুহু গ্রেনেড হামলার বীভৎসতায় মুহূর্তেই রক্ত-মাংসের স্তুপে পরিণত হয় সমাবেশস্থল। দলের অনেক নেতাকর্মী এদিন প্রাণে বেঁচে গেলেও এখনো দেহে অসংখ্য ঘাতক স্পিন্টারের তীব্র যন্ত্রণা নিয়ে পথ চলছেন তাঁরা।

২১ আগস্টের ভয়াবহ গ্রেনেড হামলায় ঘটনাস্থলেই নিহত হওয়া ২৪ জন নেতাকর্মীদের কথা স্মরণ করে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন সুলতান মনসুর।

নারী নেত্রী আইভি রহমানের নিহত হওয়ার কথা বলতে গিয়ে তিনি কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, প্রায় আড়াই দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে ২৪ আগস্ট মারা যান শ্রদ্ধেয় আইভি আপা। আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় নেতা ও ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ হানিফ আহত হওয়ার পর প্রায় দেড় বছর মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে নিয়তির কাছে হেরে যান।

গ্রেনেড হামলা আওয়ামী লীগের জাতীয় নেতৃবৃন্দকে হত্যা করার একটি পরিকল্পিত গভীর ষড়যন্ত্র ছিল বলে মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

সুলতান মনসুর,২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত