Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬
  • ||

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে নেই যানজট 

প্রকাশ:  ০৯ আগস্ট ২০১৯, ১৮:১০
গাজীপুর সংবাদদাতা
প্রিন্ট icon

আর মাত্র দুদিন পর পবিত্র ঈদুল আজহা। প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে নাড়ির টানে যান্ত্রিক নগরী ঢাকা ছেড়ে বাড়ি ফিরছেন মানুষ। এ কারণে ঘরমুখো হাজারও মানুষের চাপ বেড়েছে গাজীপুর দিয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে।

বৃহস্পতিবারের তুলনায় শুক্রবার গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত মহাসড়কে ট্রাকসহ অন্যান্য গাড়ির চাপ কমলেও বেড়েছে বাসের চাপ। কিন্তু এখনও মহাসড়কের কোনো অংশে যানজট নেই।

ময়মনসিংহগামী আলম এশিয়া পরিবহনের চালক আমিনুল ইসলাম জানান, ঢাকা থেকে বের হওয়ার পর টঙ্গী, ষ্টেশন রোড, মিল গেট, চেরাগ আলী, কলেজ গেট, হোসেন মার্কেট, গাজীপুরা, তারগাছ, বড়বাড়ি, বোর্ড বাজার, হারিকেন ফ্যাক্টরি ও মালেকের বাড়িতে থেমে থেমে যানজট হচ্ছে। এতে সময় নষ্ট হওয়ায় পাশাপাশি বেড়েছে দুর্ভোগ।

ইসলাম পরিবহনের বাস চালক সোহেল রানা জানান, টঙ্গী থেকে জয়দেবপুর পর্যন্ত প্রায় ১৩ কিলোমিটার সড়কে জুড়ইে চলছে বিআরটি প্রজেক্টের কাজ। ওই অংশের মহাসড়ক খানাখন্দে ভরে গেছে। এতে দ্রুতগতির গাড়িগুলো ধীরে ধীরে চলছে। আর লোকাল বাসগুলো মহাসড়কের ওপর দাঁড়িয়ে যাত্রী ওঠানামা করানোয় যানজট বাড়ছে।

ময়মনসিংহগামী যাত্রী মমিনুল ইসলাম বলেন, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক দুই লেন থেকে চার লেনে উন্নীত হলেও সড়ক ব্যবস্থাপনা জোরালো না করায় কোথাও কোথাও থেমে থেমে যানজটের দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। মহাসড়কে যত্রতত্র লোকাল বাস দাঁড়নো, মহাসড়কের পাশে ট্রাক দাঁড় করিয়ে রাখায় যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। এতে সড়কে দুর্ঘটনার পাশাপাশি ছোট-বড় যানজট পোহাতে হচ্ছে। পুলিশ যদি আরও দায়িত্বশীল ভাবে কাজ করতো তাহলে দুর্ভোগ ছাড়াই ঘরে ফিরতে পারতেন ঈদে ঘরে ফেরা যাত্রীরা।

কোনাবাড়ী হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, অন্যান্য বছর ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কোনাবাড়ী ও চন্দ্রা ত্রিমোড় এবং ঢাকা-ময়মনসিংহ সড়কের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকার যানজটের বিড়ম্বনা ঈদ আনন্দকেই মাটি করে দিতো। তবে কোনাবাড়ী ও চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় উড়ালসড়ক নির্মিত হওয়ায় পরিস্থিতি পাল্টে গেছে। এখন অনেকটাই নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরছেন মানুষ। মহাসড়কে আগের মতো আর যানজট নেই।

তিনি আরও জানান, কোনাবাড়ী উড়াল সড়ক চালু হওয়ায় এবং জয়দেবপুর থেকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা পর্যন্ত চার লেন সড়ক খুলে দেওয়ায় উত্তরাঞ্চলের চালক ও যাত্রীদের দুর্ভোগ কমে গেছে।

মাওনা হাইওয়ে ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) সূজন পন্ডিত জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের নাওজোড়, মাস্টারবাড়ী এলাকা ছিল যানজট প্রবণ। প্রতি বছর ঈদযাত্রায় এসব স্থানের যানজট ঘরমুখো যাত্রীদের জন্য ছিল অভিশাপ। এ সড়ক দিয়ে ময়মনসিংহসহ ছয় জেলার লোকজন চলাচল করে থাকে। যানজট না থাকায় এবার যাত্রীরা নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরছেন।

সালনা হাইওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ একেএম কাওসার জানান, রাজেন্দ্রপুর থেকে ভবানীপুর পর্যন্ত কোনো অংশে যানজটের লেশমাত্র নেই। যানজট ঠেকাতে প্রত্যেকটি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে পুলিশ মোতায়েন ও টহল পুলিশ রাখা হয়েছে।

ঢাকা-ময়মনসিংহ,মহাসড়ক,যানজট
apps
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত