Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||

‘গবেষণা নিয়ে হুমকি দিলে শিক্ষকরা উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে’

প্রকাশ:  ১২ জুলাই ২০১৯, ০০:১৩
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট icon

বাজারে প্রচলিত সাতটি পাস্তুরিত দুধে মানবচিকিৎসায় ব্যবহৃত ক্ষতিকর এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পেয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ সেন্টার ও ফার্মেসি অনুষদের গবেষকরা। এ ফলাফল প্রকাশের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আবম ফারুককে অবমাননার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

তারা বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক গবেষণা করবেন। কিন্তু সে গবেষণার ফল নিয়ে যদি যাছাই-বাছাই না করে হুমকি দেওয়া হয়, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জনস্বার্থে গবেষণা করবেন কিভাবে?’

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে ফার্মেসি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এস এম আবদুর রহমান বলেন, প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বনামধন্য প্রফেসরের গবেষণা নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন সেটা খুবই অপমানজনক। ওই শিক্ষকের গবেষণার ফল সত্য, না মিথ্যা তা পরীক্ষার জন্য আরেকটি গবেষণা দরকার। তা প্রমাণ না করে কেউ মন্তব্য করতে পারে না। সচিবের চেয়ে একজন শিক্ষক বেশি জানেন গবেষণা কীভাবে করতে হয়। তথ্য-প্রমাণ ছাড়া সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তি হিসেবে সচিবের মন্তব্য করা বিধি সম্মত না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশে গবেষণাগুলো হবে সমস্যা সম্পর্কিত এবং জনস্বার্থ নির্ভর গবেষণা। কিন্তু এভাবে যদি গবেষণার জন্য সরকারের কর্মকর্তারা শিক্ষকদের হুমকি দেন তাহলে তো শিক্ষকরা উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে।

মানববন্ধনে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী চয়ন বড়ুয়া বলেন, শিক্ষকদের কাজই হলো গবেষণা করা। কিন্তু তাদের গবেষণাকে নিজেদের স্বার্থে বিতর্কিত করে ঢালাও মন্তব্য করা ঠিক নয়। এসময় তিনি ওই কর্মকর্তার শাস্তির দাবি জানান।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ জুন ঢাবির বায়োমেডিক্যাল রিসার্স সেন্টারের পরিচালক আ ব ম ফারুকসহ ফার্মেসি অনুষদের কয়েকজন শিক্ষক পাস্তুরিত দুধে এন্টিবায়োটিক ও ডিটারেজেন্ট পাওয়া বিষয়ক একটি গবেষণার ফল প্রকাশ করেন। এরপরের দিন সংসদের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য ওই গবেষণার ফলকে মিথ্যা বলে মন্তব্য করেন। এরপর গত ৯ জুলাই গবেষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,শিক্ষক গবেষণা,অপরাজেয় বাংলা,মানববন্ধন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত