• শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৫ মাঘ ১৪২৭
  • ||

পরিবেশ রক্ষায় কর্মস্থল ও বাসস্থানে গাছ লাগান: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ:  ২০ জুন ২০১৯, ১১:৫০ | আপডেট : ২০ জুন ২০১৯, ১২:১৬
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ছবি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভ্যতার বিকাশের পাশাপাশি পরিবেশ রক্ষার দিকেও নজর দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, প্রত্যেকেই নিজের কর্মস্থল ও বাসস্থানে গাছ লাগাবেন। বনজ, ফলজ, ভেষজ গাছ লাগাবেন। ছেলে-মেয়েদেরও বৃক্ষরোপণ শেখাতে হবে। শুধু গাছ লাগালেই হবে না, পরিচর্যাও করতে হবে। প্রত্যেকে নিজের এলাকায় যতো ইচ্ছে গাছ লাগাবেন। এতে কয়েকবছর পর টাকাও পাওয়া যায়, বছর বছর ফল পেলেও খুশি লাগে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকালে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান সরকার দেশের মোট ভূমির ৩০ ভাগ বনায়ন করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। সুন্দর রক্ষায় নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধিতেও পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

এসময় পরিবেশ দূষণে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, আমরা নিজেরা আর ক’দিন থাকবো। কিন্তু আমাদের বংশধররা যেন সুন্দরভাবে বাঁচতে পারে, টিকে থাকতে পারে, সেজন্য শতবর্ষব্যাপী ডেল্টা প্ল্যান নিয়ে কাজ করছি।

সরকার প্রধান সুন্দরবন রক্ষণাবেক্ষণে সরকারের কর্মসূচির কথা তুলে ধরেন। বলেন, সুন্দরবন পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ ম্যানগ্রোভ বন। এই বন রক্ষণাবেক্ষণে ব্যাপক কর্মসূচি নিয়েছি। সুন্দরবনের পরিবেশ রক্ষায় রয়েল বেঙ্গল টাইগারের বড় ভূমিকা রয়েছে। কারণ বনে বেশি বাঘ থাকলে অনেকে ভেতরে গিয়ে বনের ক্ষতিকর কিছু করার সাহস পায় না।

শেখ হাসিনা বলেন, সুন্দরবনকে রক্ষায় নদীর লবণাক্ততা দূর করতে হবে। লবণাক্ততা দূর হলে হোগলা বন বেড়ে যায়। আর হোগলা বনে বাঘের বিচরণ বেড়ে যায়। নদীর নাব্যতা বাড়ানোরও কাজ করা হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার কারণে পাহাড়ি বনাঞ্চল আজ ধ্বংসের পথে।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

প্রধানমন্ত্রী,শেখ হাসিনা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত