• বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নাড়ীর টানে ঘরমুখো মানুষ

প্রকাশ:  ০৪ জুন ২০১৯, ১৫:৫১
নিজস্ব প্রতিবেদক
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্বজনদের কাছে ছুটে যাচ্ছে ঘরমুখো মানুষ। ছবি: চট্টগ্রাম রেল স্টেশন থেকে

পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের লক্ষ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্বজনদের কাছে ছুটে যাচ্ছে ঘরমুখো মানুষ। যারা বাসের টিকেট পাননি তারা এখন অতিরিক্ত যাত্রী হয়েই বাড়ি যাচ্ছে। কেউবা লঞ্চ, বাস ও ট্রেনের ছাদে আবার কেউবা ইঞ্জিন কভারে বসেই ছুটে যাচ্ছে স্বজনদের কাছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) সকালে রাজধানীর কমলাপুর স্টেশনে এ চিত্র দেখা গেছে। ট্রেনের ভেতরে জায়গা না পেয়ে ছাদে চড়ে ঢাকা ছাড়ছেন ঘরমুখো যাত্রীরা। আবার অনেককেই ইঞ্জিনে চেপেও ঢাকা ছাড়তে দেখা গেছে। অন্যদিকে একই চিত্র চট্টগ্রাম রেল স্টেশনেও দেখা গেছে বলে জানান চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।

পবিত্র কদর থেকে শুরু করে অনেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে ছুটে চলেছে নাড়ীর টানে। এভাবে ছুটে চলার শেষদিন (মঙ্গলবার) আজ। এখন মানুষহীন রাজধানী।

রাজধানীর কমলাপুর স্টেশন থেকে একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটির ভেতর ও ছাদ যাত্রীতে ছিল পরিপূর্ণ । জায়গা না থাকায় আগে থেকেই ট্রেনের বেশকিছু দরজা বন্ধ করে দেয় ভেতরের যাত্রীরা। জোর করে কিছু যাত্রী উঠতে গেলে ভেতরে যাত্রীরা কেউ কেউ আঘাতও পাচ্ছে।

শেষ পর্যন্ত ট্রেনের ভেতরে উঠতে না পেরে অনেকেই ছাদে ওঠার চেষ্টা করেন। তবে সেখানেও জায়গা হচ্ছিল না অনেকের।

এছাড়া কেউ কেউ ভেতরে ও ছাদে জায়গা না পেয়ে ট্রেনের দুই বগির মাঝখানে এবং ইঞ্জিন বগিতে দাঁড়িয়ে যাত্রা করেন। বারবার নিষেধ করার পরও তারা কর্ণপাত করেননি।

জীবনের ঝুকি নিয়ে ইঞ্জিনে উঠেছেন কেন জানতে চাইলে সাদেকা পূর্বপশ্চিমকে বলেন, আগামীকাল ঈদ। পরিবারের সবাই দেশের বাড়িতে। সবার সাথে ঈদ করতে তো হবে। ছাদে উঠতে না পেরে শেষ পর্যন্ত ইঞ্জিনে উঠলাম। যাই হোক যেতেতো হবে।

ঈদে বাড়ি ফিরতে সবচেয়ে বেশি বিড়ম্বনায় পড়ছেন মহিলা যাত্রীরা। পুরুষ যাত্রীরা হুড়োহুরি করে গাড়ি, ট্রেন, বাস বা লঞ্চে উঠে সিট নিয়ে বসতে পারলেও মহিলা যাত্রীরাই এক্ষেত্রে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।


পিপিবিডি/কেএম

ঈদযাত্রা,ঘরমুখো মানুষ,ট্রেন স্টেশন,বাস স্টেশন,বাংলাদেশ রেলওয়ে
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত