• শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ২৭ আষাঢ় ১৪২৭
  • ||

সাংবাদিক সুমন হত্যাচেষ্টায় জড়িতরা চার দিনেও গ্রেফতার হয়নি

প্রকাশ:  ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০২:৩৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
ফাইল ফটো

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) ও ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য এবং আগামীনিউজ ডটকমের সাংবাদিক মোস্তাফিজুর রহমান সুমন সিটি নির্বাচনের দিন পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হওয়ার চার দিন পার হলেও হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এর মধ্যে হাসপাতালে গিয়ে সুমনকে হুমকি দিয়েছে অভিযুক্ত ঢাকা উত্তরের ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকন। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সুমন জীবনের ঝুঁকিতে রয়েছেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারি দুপুরে মোহাম্মদপুরের রায়েরবাজার জাফরাবাদ এলাকায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ হোসেন খোকনের সশস্ত্র বাহিনীর মহড়ার ছবি তোলায় সুমনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় সন্ত্রাসীরা। পরে সহকর্মী ও স্থানীয়দের সহায়তায় প্রথমে তাকে শিকদার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং পরে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ডিএনসিসি’র ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত খোকন ও তার সহযোগীদের আসামি করে মোহাম্মদপুর থানায় একটি হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করা হয়।

ঘটনার দিনই দুপুরে র‍্যাব ফোর্সেস মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ গুরুতর আহত সাংবাদিক সুমনকে দেখতে ঢামেক হাসপাতালে যান। সেসময় তিনি আশ্বাস দেন, ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে আসামিদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। এর পরদিন অভিযুক্ত কাউন্সিলর খোকন ঢামেক হাসপাতালে গিয়ে সুমনকে হুমকি দেন। বলেন, বেশি বাড়াবাড়ি করলে সুমনকে দেখে নেবেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল লতিফ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা হামলাকারীদের বেশকিছু ছবি ও ভিডিও ফুটেজ হাতে পেয়েছি। ছবি দেখে তাদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে। আশা করছি, খুব শিগগিরই হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হবে। তেজগাঁও বিভাগের ডিসি স্যারও এই বিষয়ে তৎপর রয়েছেন। তার নির্দেশেই অভিযান চলছে।

এদিকে, মঙ্গলবার (৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) ও ঢাকাস্থ রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতি (আরডিজেএ)। সংগঠন দুটির নেতারা বলেন, সাংবাদিক হত্যাচেষ্টার মামলায় কাউন্সিলর খোকন ও তার সহযোগীদের কেউ এখনও গ্রেফতার হয়নি। তবে গত ৩ ফেব্রুয়ারি রামপুরা থানায় পুলিশের বিশেষ শাখা—এসবির এক পরিদর্শককে মারধরের অভিযোগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত নবনির্বাচিত কাউন্সিলর সাখাওয়াত হোসেন শওকতসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়। আমরাও চাই সুমনের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী একই রকম তৎপরতা দেখাক।

সমাবেশে ডিইউজে সভাপতি আবু জাফর সূর্য, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সভাপতি আবুল খায়ের, ডিইউজের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, ডিআরইউ-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুক্কুর আলী শুভ, রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মোকছুদার রহমান মাকসুদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক যুগ্ম সম্পাদক অমিয় ঘটক পুলক, সাব-এডিটরস কাউন্সিলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ কে এম ওবায়দুর রহমান, আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। প্রসঙ্গত, সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন। দোষীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা না হলে কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

সাংবাদিক,মোস্তাফিজুর রহমান সুমন,সিটি নির্বাচন,ঢামেক হাসপাতাল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close