• রোববার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
  • ||

পীর হাবিব অসভ্য মূর্খমুক্ত রাজনীতি চাইলেন টকশোতে

প্রকাশ:  ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:৪৯ | আপডেট : ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:১১
নিজস্ব প্রতিবেদক

অসভ্য ও মূর্খদের হাত থেকে রাজনীতিকে মুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান।

তিনি বলেন, শহীদ নূর হোসেন গরিবের সন্তান ছিলেন, কিন্তু একটা আগুনে লেখা পোস্টার ছিল তার বুকে-পিঠে। সেটা হলো ‘স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’। নূর হোসেনের যে আত্মাহুতি সেটা বৃথা যায়নি, কারণ সামরিক শাসনের অবসান ঘটেছে। তার সম্পর্কে জাপা মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙা যে মন্তব্য করেছেন- এটা অসভ্যতা। আসলে ‘বাইচান্স’ নেতা রাঙ্গা আজকে রাজনীতিতে। এই ধরনের অশিক্ষিত, অসভ্য ও মূর্খ রাজনীতিবিদের হাত থেকে জনগণ মুক্তি চায়।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) রাতে বেসরকারি টিভি- ‘চ্যানেল আই’-এর সাংবাদিক মতিউর রহমানের সঞ্চালনায় টকশোতে তিনি এসব কথা বলেন।

সাংবাদিক পীর হাবিব ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে যে ক্ষতি হয়েছে তাতে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, এটি ছিল হৃদয় বিচারক ঘটনা। গোটা জাতি একটা আশঙ্কার মধ্যে ছিল ঘূর্ণিঝড় বুলবুল নিয়ে। এখানে সরকার ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছিল। ১৮ লাখ মানুষকে সরকার নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়েছিল। সেখানে যে প্রাণহানি হওয়ার আশঙ্কা ছিলো, সেটা ঘটেনি। আমাদের সুন্দরবন বুলবুলের আরো ভয়াবহ তাণ্ডব তথা প্রাকৃতিক আঘাতকে মোকাবিলা করে আমাদের রক্ষা করেছে, জানমাল রক্ষা করেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় পীর হাবিব বলেন, এই রেল নিয়ে কিছুদিন আগেই সংসদে আলোচনা হয়েছে, রেল লাইনে লোহার বদলে বাঁশ পাওয়া যায়। আমাদের ইঞ্জিনগুলো অনেক পুরনো এবং ট্রেন ঘটনা আজ নতুন নয়। কতদিন পরপর আমাদের ট্রেন দুর্ঘটনা হয়। মানুষ কোথায় মরছে না?

তিনি বলেন, যাতায়াতের জন্য ট্রেনকে মানুষ সবচেয়ে নিরাপদ মনে করে। সেই ট্রেনে ঘুমন্ত অবস্থায় মানুষ মৃত্যুবরণ করছে। ১৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে এবং শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। এখানে শোকের মাতম চলছে। ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা করে সরকার মৃতদের পরিবারকে দিয়েছেন। আহতদের ১০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে, চিকিৎসা চলছে। কয়েকটি তদন্ত কমিটি হয়েছে, এরমধ্যে ইতিমধ্যে মহাপরিচালক বলেছেন, তূর্ণার চালক কুয়াশার কারণে দেখতে পাননি। তাহলে আর তদন্ত করার দরকার কী?

পীর হাবিব বলেন, নেহেরুর রেলমন্ত্রী লালবাহাদুর শাস্ত্রী যিনি নেহেরুর মৃত্যুর পর ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। তিনি রেল দুর্ঘটনার জন্য নৈতিক দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। কিন্তু আমাদের দেশে এ রকম পদত্যাগের কোনো ঘটনা কখনো নেই। জহিরুদ্দিন খান ছাড়া কেউ স্বেচ্ছায় কখনো কোনো দুর্ঘটনায় পদত্যাগ করেনি।

এই নির্বাহী সম্পাদক বলেন, আমি তো এই প্রফেশনে বিত্ত বৈভবের জন্য আসি নাই। আমি সরকার থেকে ন্যূনতম কোনো সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করি নাই। তো আমি কী চেয়েছিলাম, আমি মানিক মিয়া হতে চেয়েছিলাম, কিন্তু হতে পারিনি, পারবোও না- সময় এবং বাস্তবতা আমার হাত-পা আঁকড়ে ধরেছে। এই যে মানুষের কথা বলা এবং সাহস নিয়ে কথা বলা- এখনো যেটুকু বলি- মনে করি বুকের ভেতরে একটা শক্তি সাহসের নাম সেটা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এখনো এই জাতির মানুষের হৃদয়ে স্পন্দিত কোনো সাহসের নাম যদি থাকে তাহলে সেটা তিনি।

পীর হাবিব বলেন, আমরা আর কত মৃত্যু এ রকম দেখবো, নৌপথে মৃত্যু, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসেনি, সেতুমন্ত্রী বলেছেন, শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। দুর্নীতি বিরোধী একটা অভিযান ঘটেছে। ক্যাসিনো তছনছ হয়েছে। এখন যদি পরিবহন সেক্টরে অভিযানটা চালাতো মানুষ হয়তো খুশি হতো। সেখানে দেখা যেতো মাফিয়াদের হাতে মানুষ এবং প্রশাসন কীভাবে জিম্মি হয়ে আছে।

তিনি বলেন, সিলেট-সুনামগঞ্জের মানুষ পরিবহন চায় না, পায়ও না। সেখানে জনপ্রতিনিধিরা মিলে বিআরটিসি এসি বাস চালু করলেন। সেই এসি বাস চলতে দেবে না এরকম হুমকি দেয় বেসরকারি পরিবহন মালিকরা। এসব তাদের ক্ষমতার দম্ভ এবং ঔদ্ধত্য।

পীর হাবিব সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উদ্দেশে বলেন, জনগণের ট্যাক্স-ভ্যাটের টাকা পাইপাই করে হিসাব করে নেবেন, না হয় দুদকে তলব করবেন আর নিরাপদ ভ্রমণের দায়িত্ব নেবেন না- এটা হতে পারে না। মাঝে মাঝে উন্নাসি কথা বলেন- তখন বলতে ইচ্ছা করে মাথাটা নিচু করে কথা বলেন। কারণ আমি তোমার মনিব, আমার এ সংবিধান জনগণকে মালিক বানিয়েছে। ক্ষমতার মালিক জনগণ। জনগণের কাছে নত হও, জনগণের স্বার্থেই রাজনীতি, সবকিছু।

তিনি বলেন, আজকে পেঁয়াজের দাম নিয়ে মানুষ নির্বিকার, যেভাবেই হোক পিঁয়াজ দেয়া উচিত ছিলো। ওয়ান-ইলেভেনের সরকার তছনছ হয়ে গেছে চালের মূল্য বৃদ্ধির কারণে। পেঁয়াজ রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশের ইতিহাসে। এমন বাণিজ্যমন্ত্রীও আসেনি বাংলাদেশে কখনো।

ভিডিও সৌজন্য: চ্যানেল আই

পূর্বপশ্চিমবিডি/ পিআই/এআর

পীর হাবিবুর রহমান,টেকশো,চ্যানেল আই
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত