• সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭
  • ||

অরুপের কাছে চিঠি তিন

প্রকাশ:  ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:১৭ | আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:১৮
শরদিন্দু ভট্টাচার্য্য টুটুল
শরদিন্দু ভট্টাচার্য্য টুটুল

অরুপ আজ আমি কোথাও যাবো না, তোমার কাছেও যাবো না, তার কাছেও যাবো না

আকাশের রং বদলে যায়, তোমার রংও বদলে যায়, তার রংও বদলে যায়

শুধু আমি পারিনা তোমাদের মতো বদলে যেতে, আমি বিষন্ন মনে এদিকে ওদিকে ঘুরে বেড়াই

আমি জানি আমাকে দেখে ওরা হাসে, তুমিও হাসো, তোমার হাসি দেখে সেও হাসে।

তোমাদের মনে শ্রাবণের জলধারা খেলে যায়, তোমরাও যেন রূপালী মাছের মত

খেলে যাও, কেবলই খেলে যাও, অন্যকে নিয়ে তোমাদের খেলতে বড়ো ভালো লাগে, তোমাদের

খেলার মাঝে কোনো নিয়ম রীতি নেই, তোমরা তোমাদের ইচ্ছে মত গোল্লাছুট খেলতে পারো,

তোমাদের কেউ কিছু বলে না, অথচ দেখ আমি যদি ভুল করে একবার নিয়মের রেখা পার হয়ে

যাই, তখন তোমাদের মাঝে আলোড়ন ওঠে, গেল গেল বলে তোমরা চিৎকার করে ওঠো, শুধুই

চিৎকার করে ওঠো, যেন বাঘে মানুষ ধরেছে, তোমাদের মতো তোমাদের ছায়া আমাকে কি

সব কথা বলে যায়, তোমার ছায়ার কথা আমার কায়া বুঝতে পারে না, কিংবা ধরো, তোমার কায়ার

কথা আমার ছায়া বুঝতে পারে না। তবুতো আমি ধৈর্য্য ধরে বেকার যুবার মতো বসে আছি, যদি

কোনো দিন তোমার ছায়া আর তার কায়া, আমাকে বলে আমি হলাম জীবনে পড়ন্ত বেলার খেলার

সাথী। তুমিতো জানো, আমার মনে সাগরের ঢেউ উঠে বিশালতার চিত্র এঁকে।

অরুপ আমার কোনো কথা নেই, আমার নিজস্ব কোনো বেদনা নেই, আমি তোমার, তার বেদনার

বোঝা বয়ে বেড়াই, শুধুই বয়ে বেড়াই। তাই বুঝি আমাকে সবাই কলুর বলদ বলে গালি দিতে

থাকে।মানুষের মুখের অশ্রাব্য কথাবার্তা আমি শুনি আর হাসি, বোকা মানুষের লোভ দেখে মনে হয়,

মানুষ গুলো যেন বদলে যেতে যেতে রোবটের হৃদপিন্ড হয়ে লোকালয়ে ঘুরে বেড়ায় মানুষের সম্ভাব

নিয়ে। ভুলে যেতে যেতে মানুষ কি তবে অমানুষ হয়ে যাবে, না কি মানুষ আবার মানুষের মতো

হবে? আমি তা জানি না, তুমি কি তা জানো, যেমন জানে মৌমাছিরা কোথায় কোন শস্য ক্ষেতের

শস্য ফুলে মধু এসেছে, বলো তোমার কি সব কথা মনে আছে, কি কথা হয়েছিল আমাদের মাঝে

অরুপ শীতের ফসল গুলি এখনতো আর আগের মতো নেই, সবকিছু হাইব্রিড হয়ে গেছে,

তুমিও কি সকলের মতো জীবনের সব কিছু ভুলে হাইব্রিড হয়ে গেছ, দেখ তুমি আমাকে কখনো

বলো না, আমিও যেন তোমার মতো হাইব্রিড ফসলের কণা হয়ে যাই, এখনও তো সাগর পাড়ে গাং

চিলেরা আগের মতো উড়াউড়ি করে, মাঝিদের সাথে সাগরের অনেক গভীরে যায়,

নীলাভ আকাশ জুড়ে সোনালী চিলেরা কেঁদে কেঁদে মরে, ওরাতো ওদের মতো

আছে, ওরাতো বদলে যায়নি, তবে কেন তুমি আর তোমার ছায়া বদলে যায়, আমি আর আমার

কায়া এখনো গোলাপের সুবাস শুঁকে মনে মনে বলি এইতো মানব জীবন, এইতো ভোরের আলোর

নিবিড় স্পন্দন, এইতো চেতনার সুগন্ধী বিলাস, তুমি দেখ আমি কোনো দিন বদলাবো না, তোমাদের

নির্লজ্জ কথার কোনো উত্তর দেবোনা, তুমি মনে রেখো আমি আমিই রবো, আমার আমাকে বদলাবে

এমন ক্ষমতা কার আছে বলো, আমি জানি পারবেনা কেউ আমাকে বদলাতে তোমাদের মতো

অরুপ আমিতো মানুষ, আমিতো কৃত্রিম মানুষ নই, আমিতো রোবট নই, আমি কেন বদলাবো

আমি চিরদিন মানুষ হয়েই রবো, আমিতো হাইব্রিড নই, তাই আমি আমার মতো গান গেয়ে যাবো।

লেখক: আইনজীবী, কবি ও গল্পকার

কালীবাড়ী রোড, হবিগঞ্জ।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

শরদিন্দু ভট্টাচার্য্য টুটুল
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close