• সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

প্রেম-পরকীয়া ও বিয়ে-বিরহের কাব্যগন্থ ‘জোছনা দেবো চন্দ্রমুখে’

প্রকাশ:  ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:০৬
নিজস্ব প্রতিবেদক

সমকালীন বাংলা সাহিত্যের অন্তপ্রাণ কবি সাবিত সারওয়ার। দেড়যুগ ধরে লেখালেখি করছেন। ছড়া-কবিতা, গল্প, প্রবন্ধ-নিবন্ধসহ সাহিত্যের নানা শাখায় তার বিচরণ।

দেশের প্রথম সারির জাতীয় দৈনিকসহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লিখছেন তিনি। গান, ডকুমেন্টরি ও টিভি নাটকের স্ক্রিপ্টও তৈরি করেন। ব্যক্তি জীবনে খানিকটা অন্তর্মুখী এই লেখক। এ জন্য পেশাগত ব্যস্ততাও কিছুটা দায়ী। বতর্মানে বেসরকারি টিভি চ্যানেল সময় সংবাদের বার্তাকক্ষে কর্মরত। সংবাদ সম্পাদনার পাশাপাশি সংবাদ উপস্থাপনাও করছেন নিয়মিত।

সম্পর্কিত খবর

    একুশে বই মেলায় প্রকাশিত হয়েছে তার কাব্যগন্থ ‘জোছনা দেবো চন্দ্রমুখে’। ছন্দবদ্ধ কবিতার বই। প্রেমের কবিতা। প্রেম-পরকীয়া ও বিয়ে-বিরহ। নারী-পুরুষের ভেতরগত ভাব-ভাবনাকে কেন্দ্র করে লেখা। সরল শব্দে দ্বন্দ্ব-জটিল সম্পর্কের সহজ বর্ণনা।

    ‘তোমার আমার দূরত্বটা

    দুই পাহাড়ের পথ

    তাই দু’জনের বিয়ের পিঁড়ি

    হয়নি তো একমত।’

    প্রেম সময়ের উত্তেজনা মাত্র। প্রেমের সার্থক পরিণতি বিয়ে। বিয়ে মানে যৌথ জীবনের যাত্রা। সমাজসিদ্ধ এই রীতি চির সুন্দর- স্বীকৃত। শিল্প সমৃদ্ধ সেই উপলব্ধি ধরা পড়ে কবির কলমে। চিত্রিত হয় বিশ্বাসের মুচলেকা।

    ‘মাটির মঞ্চে মুচলেকা দাও

    শর্তবিহীন শর্তে

    আসতে পারো নির্জনতায়

    সাড়ে তিন হাত মর্ত্যে।

    এর বাইরে যা কিছু তা সহজ নয়। কঠিন। ভেতরও সরল তা বলা যায় না। তবে স্বস্তির। তৃপ্তির। বাকি সব অস্থিরতার উৎস। এই উৎসে শান্তি নেই। সাময়িক সুখ হয়তো আছে। তবুও কৈশর-তারুণ্যের উচ্ছ্বাস উপচে পড়ে রন্ধ্রে রন্ধ্রে। ফেলে আসা সময়ের পদধ্বনি ধ্বনিত হয় অনুভবে। অতীতকে ফিরে পেতে ব্যাকুল হয় বারোয়ারি মন।

    ‘ললনার চোখে ছলনার ছবি

    সন্দেহ খোঁজে ছেলে

    দু’জোড়া দৃষ্টি সুখ খুঁজে ফেরে

    অতিতের অতিথি পেলে’

    শান্তির বলয় যৌথ জীবনের ফ্রেমে বন্দি। সন্ধ্যায় ঘরে ফেরা পাখির মতো। দিন শেষে প্রত্যেকের ফিরতে হয় আপন আশ্রয়ে। অপেক্ষারত দু’টি চোখের দৃষ্টিসীমায়। এই প্রত্যাবর্তনেই সুখ- সমৃদ্ধি- শান্তি এবং তৃপ্তি। এই উপলব্ধি থেকেই গড়ে উঠেছে ‘জোছনা দেবো চন্দ্রমুখে’ কাব্যগ্রন্থ।

    চিত্রশিল্পী ঢালী তমালের প্রচ্ছদে বইটি প্রকাশ করেছে সরলরেখা প্রকাশনা সংস্থা। মূল্য-১২০ টাকা মাত্র। পাওয়া যাবে বইমেলার ৬১৮ নম্বর স্টলে। অনলাইনে পাওয়ার ঠিকানা- রকমারি ডটকম। বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে ইয়াসমিন আখতারকে।

    পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close