Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬
  • ||
শিরোনাম

লেখক শেখ আবদুল হাকিমের অভিযোগ

‘সেবা প্রকাশনীর কাজী আনোয়ার হোসেনের কাছে দুই কোটি টাকা পাই’

প্রকাশ:  ২৯ জুলাই ২০১৯, ০১:০৬ | আপডেট : ২৯ জুলাই ২০১৯, ০১:৩৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

স্বাধীনতার কয়েক বছর আগে থেকেই সাশ্রয়ী দামের পেপারপ্যাক বই প্রকাশ করে দেশে পাঠক তৈরিতে ভূমিকা পালন করে আসছে সেবা প্রকাশনী। এর স্বত্বাধিকারী কাজী আনোয়ার হোসেন মাসুদ রানা ও কুয়াশার থ্রিলার লিখে দেশজুড়ে পেয়েছেন খ্যাতি। এবার মাসুদ রানা ও কুয়াশা সিরিজের বেশিরভাগ বইয়ের লেখক হিসেবে নিজেকে দাবি করে সেবা প্রকাশনীর প্রতিষ্ঠাতা কাজী আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে দুই কোটি ১২ লাখ টাকা পাওনার দাবি জানালেন আরেক জনপ্রিয় লেখক শেখ আবদুল হাকিম।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সম্প্রতি লেখক ইফতেখার আমিন ‘দিন যায় কথা থাকে’ শিরোনামে এক পোস্টে সেবা প্রকাশনী ও কাজী আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে বেশ কিছু অভিযোগ তুলে ধরেন। সেসব অভিযোগকে ‘বর্ণে বর্ণে সত্যি’ বলে ইফতেখার আমিনের সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন শেখ আবদুল হাকিম। পরে লেখক নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ‘সেবা প্রকাশনীর স্বরূপ’ শিরোনামে দীর্ঘ পোস্টে শেখ আবদুল হাকিম বিস্তারিত অভিযোগ তুলে ধরেন কাজী আনোয়ার হোসেন ও তাঁর সেবা প্রকাশনীর বিরুদ্ধে।

‘কাজী সাহেব আমাদের মতো লেখকদের বেআইনিভাবে শোষণ করছেন’ দাবি করে শেখ আবদুল হাকিম স্ট্যাটাসে লিখেছেন, আমি ২৬০টার বেশি মাসুদ রানা লিখেছি, কুয়াশা সিরিজের বই লিখেছি ৪০ কি ৪২টা, আরো লিখেছি নিজেকে জানো সিরিজের গোটা দুই-তিন বই, রহস্যোপন্যাস গোটা আটেক, জুল ভার্নও পাঁচ-সাতটা অনুবাদ করেছি—সবই হয় কাজী আনোয়ার হোসেনের নামে, নয়তো তাঁর নিজের পছন্দের কোনো ছদ্মনামে (যেমন—বিদ্যুৎ মিত্র), তবে এসব বইয়ের একটারও কপিরাইট আমি কাজী সাহেবের কাছে বিক্রি করিনি।’ অথচ কাজী আনোয়ার হোসেন তাঁকে বলেছেন, ‘আমরা তাঁর নামে কোনো বই বা মাসুদ রানা লিখিনি, সব তিনি লিখেছেন।’

হাকিম আরও লিখেছেন, ‘কাজী সাহেব একটা চুক্তিপত্রও দেখাতে পারবেন না যে আমি তাঁকে লিখিতভাবে কপিরাইট অধিকার দিয়েছি, যার বলে তিনি আমার লেখা একেকটা বই দশবার-বিশবার রিপ্রিন্ট করে গত চল্লিশ বছরের বেশি সময় ধরে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন।’

তিনি লেখেন, ২০১০ থেকে ২০১৯ সালের মধ্য জুলাই পর্যন্ত এক টাকাও রয়্যালটি হিসেবে পাননি। কপিরাইট অফিসেও অভিযোগ করেছেন লেখক। কাজী আনোয়ার হোসেনের কাছে ‘কমপক্ষে দুই কোটি ১২ লাখ টাকা’ পাবেন বলেও দাবি তাঁর।

শেখ আবদুল হাকিমের পোস্টে সেবা প্রকাশনী ও কাজী আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ওঠার পর সামাজিক মাধ্যমে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি-এনই

সেবা প্রকাশনী,কাজী আনোয়ার হোসেন,শেখ আবদুল হাকিম
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত