• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯
  • ||

অর্থনীতির সব সূচকে আশার আলো দেখছে সরকার

প্রকাশ:  ১৮ এপ্রিল ২০২২, ০১:০৮
নিজস্ব প্রতিবেদক

বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতিতে একটা সময়ে জাতীয় অর্থনীতিতে ক্ষয়িষ্ণু প্রবণতা তৈরি হয়। সেই অবস্থা থেকে অর্থনীতিকে টেনে তুলতে চারটি মৌলিক নীতি-কৌশল বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এগুলো হলো- সরকারি ব্যয় বৃদ্ধি, প্রণোদনা প্যাকেজ গঠন ও বাস্তবায়ন, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি সম্প্রসারণ এবং অর্থের যোগান বাড়ানো।

সরকারের নেয়া সেসব পদক্ষেপ বাস্তবায়নের সুফল অর্থনীতিতে দৃশ্যমান হতে শুরু করেছে। আর এর ওপর দাঁড়িয়ে অর্থনীতির সব সূচকেই স্বস্তি দেখছে সরকার।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের ইতোমধ্যে ৯ মাস পার হয়ে গেছে। এই সময়ে রাজস্ব আয়, রপ্তানি, রিজার্ভ, রেমিটেন্স, আমদানি, মূলধনী যন্ত্রপাতি ও শিল্পজাত কাঁচামালের ঋণপত্র খোলার হার, বেসকারি ঋণ প্রবৃদ্ধি, সরকারি ব্যয়, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) বাস্তবায়ন হার, কৃষি ঋণ বিতরণ এবং সরাসরি বৈদেশিক নিট বিনিয়োগে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি উন্নতি ঘটেছে।

অর্থনীতির মানদণ্ড নির্ধারক এসব সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে মনে করছে সরকার। বলা হচ্ছে, এর ওপর দাঁড়িয়ে দেশ দ্রুতই ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধির কাতারে ফিরতে সক্ষম হবে।

সরকারের আর্থিক, মুদ্রা ও বিনিময় হার সংক্রান্ত কো-অর্ডিনেশনের কাউন্সিলের দ্বিতীয় বৈঠকে বিভিন্নভাবে উপস্থাপিত তথ্য-উপাত্ত থেকে দেশের অর্থনীতি এভাবেই মূল্যায়ন করা হয়েছে।

সূত্রমতে, রোববার অর্থ মন্ত্রণালয় আয়োজিত অর্থনৈতিক কো-অর্ডিনেশন কাউন্সিলের ভার্চুয়ালি এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বৈঠকে দেশের অর্থনীতির সার্বিক চালচিত্রের হালনাগাদ তথ্য তুলে ধরাসহ সেই আলোকে আগামী ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট কেমন হতে পারে তারও একটি সম্ভাব্য রূপরেখা অর্থমন্ত্রীর কাছে উপস্থাপন করেন অর্থ সচিব আবদুর রউফ তালুকদার।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, হালনাগাদ পাওয়া তথ্য-উপাত্ত এটাই স্পষ্ট করছে যে, রাশিয়া-ইউক্রেন চলমান যুদ্ধের নেতিবাচক প্রভাব জাতীয় অর্থনীতিকে কাবু করতে পারেনি। বরং করোনায় ক্ষয়িষ্ণু অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের অংশ হিসেবে সরকার যে দৃশ্যমান পদক্ষেপ নিয়েছে তা রুগ্ন দশা কাটিয়ে চলমান অর্থনীতিতে গতি সঞ্চার করেছে।

কর্মকর্তারা আরও জানান, চলমান অর্থনীতির এই মজবুত অবস্থান অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্ত শ্রীলঙ্কার মতো পরিস্থিতির ঝুঁকি থেকেও সরকারকে দুশ্চিন্তামুক্ত রেখেছে। তবে আগামীতে রিজার্ভ ব্যবহারে সতর্ক হবে সরকার। এর সঙ্গে মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রাখা গেলে দেশের অর্থনীতি সব ধরনের আশঙ্কামুক্ত থাকবে।

পূর্ব পশ্চিম/জেআর

অর্থনীতি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close