• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
  • ||

বাণিজ্য মেলা বন্ধ করার বিষয়ে যা জানা গেলো

প্রকাশ:  ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৪৮
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর অদূরে পূর্বাচলে মাসব্যাপী চলমান ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা বন্ধের কোনো নির্দেশনা নেই বলে জানিয়েছেন ইপিবির সচিব ও মেলার পরিচালক ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার রাতে তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বাণিজ্য মেলা বন্ধের সুপারিশ করেছে করোনাবিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। কিন্তু এখনো মেলা বন্ধের কোনো নির্দেশনা আসেনি। আর মাত্র বাকি তিন-চারদিন, এ সময়ে মেলা বন্ধ হবে বলে তো মনে হয় না।

ইফতেখার আহমেদ বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে মেলায় দর্শনার্থীদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। একটি কোম্পানির সৌজন্যে মেলার প্রবেশপথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা হচ্ছে। যন্ত্র দিয়ে তাপমাত্রা পরীক্ষা করে মেলায় প্রবেশ করানো হচ্ছে দর্শনার্থীদের।

তিনি আরও বলেন, সবার মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেউ কেউ মেলায় প্রবেশের সময় মাস্ক পরলেও ভেতরে মুখ থেকে মাস্ক খুলে ফেলেন, তাদের সচেতন করা হচ্ছে। তারা যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন, সেজন্য মেলায় ভ্রাম্যমাণ টিম বসানো হয়েছে। গত তিন-চার দিনে ২৫-৩০জনকে টিম জরিমানা করেছে।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে মেলায় বেচাকেনা কেমন হচ্ছে— জানতে চাইলে তিনি বলেন, মেলায় দর্শনার্থী আসা কমেছে। তবে যারাই আসছেন তারা হাতে কিছু না কিছু নিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিদ্ধান্তের আলোকে আমরা বাণিজ্য মেলা পরিচালনা করছি। এখন স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে পূর্বাচলে চলছে। তবে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ বৈঠক করে যদি মেলা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়, আমরা বন্ধ করে দেব।

বাণিজ্য মেলায় গত ২৬দিনে মোট টিকিট বিক্রি হয়েছে সাড়ে ৭ লাখ। তাতে আয় হয়েছে ২ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। মেলার ইজারাদার ও মেসার্স মীর ব্রাদার্সের অপারেশনাল ম্যানেজার ছায়েদুর রহমান (বাবু) এ তথ্য জানান।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আবারও বেড়ে যাওয়ার পর গত মঙ্গলবার বাণিজ্য মেলা বন্ধের সুপারিশ করে করোনাবিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। একইসঙ্গে আসন্ন বইমেলাও আরও পিছিয়ে দেওয়ার সুপারিশ করে।

পিপি/জেআর

বাণিজ্য মেলা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close