• রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি

মার্কিন আদালতে ফিলিপাইনের আরসিবিসি ব্যাংকের আবেদন খারিজ

প্রকাশ:  ২৩ মার্চ ২০২০, ১৯:৫১
নিজস্ব প্রতিবেদক
ফাইল ছবি

সাইবার হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশন (আরসিবিসি), সোলায়ার রিসোর্ট ও ক্যাসিনো, মাইডাস রিসোর্ট ও ক্যাসিনো এবং অন্যান্যদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের দায়েরকৃত মামলার বিপরীতে বিবাদীদের করা আবেদন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট খারিজ করেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, মামলার বিষয়বস্তু সংশ্লিষ্ট কোর্টের এখতিয়ার বহির্ভুত মর্মে আরসিবিসি ও অন্যরা যে আবেদন করে তা আদালত খারিজ করে দিয়েছেন। আদালতের আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে, এ চুরি নিউইয়র্কে অবস্থিত মার্কিন প্রতিষ্ঠান ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক হতে হয়েছিল এবং সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত যে, জালিয়াতির মাধ্যমে পেমেন্ট অর্ডার, বিভিন্ন করেসপন্ডেন্ট অ্যাকাউন্টে চুরিকৃত অর্থের লেনদেন এবং এসকল অ্যাকাউন্ট হতে দেশের বাইরে অর্থ প্রেরণ-সবই নিউইয়র্ক এ সংঘটিত হয়েছে।

সম্পর্কিত খবর

    আদালতের রায়ে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে, ফেডারেল রিজার্ভে ব্যাংক অব নিউ ইয়র্ক এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যানি বাউম তার ঘোষণায় দৃঢ়ভাবে উল্লেখ করেছেন যে, ফেডারেল রিজার্ভ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের মধ্যে একটি আনুষ্ঠানিক চুক্তি রয়েছে যাতে ফেডারেল রিজার্ভ বাংলাদেশ ব্যাংককে তার মামলা-মোকদ্দমার ক্ষেত্রে কারিগরি সহায়তা প্রদান করবে। এ সকল তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট বলেছে, জনস্বার্থের দিকগুলি বিবেচনায় নিউইয়র্ক-ই এ মামলা পরিচালনার জন্য যথাযথ ফোরাম যেখানে ডিস্ট্রিক্টের একটি ফেডারেল প্রতিষ্ঠান সাইবার হামলার শিকার হয়েছে।

    আদালত বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক Racketeer Influenced and Corrupt Organisations Act (RICO) এর আওতায় আরসিবিসি ব্যাংক ও জড়িত অন্যান্যদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগটি টেকনিক্যাল বিষয় বিবেচনায় ফেডারেল আদালতে বিচারের জন্য গ্রহণ করেনি। অর্থাৎ এ সিদ্ধান্তের ফলে আরসিবিসি, সোলায়ার, মাইডাস এবং অন্যান্য বিবাদীদের বিরুদ্ধে প্রতারণা, চুরি, রূপান্তরের ষড়যন্ত্র এবং অন্যান্য অভিযোগগুলির বিষয়ে সাউদার্ন ডিস্ট্রিক্ট কোর্ট (এসডিএনওয়াই) এর পরিবর্তে নিউইয়র্ক স্টেট আদালতে মামলা দায়ের করা যাবে। এক্ষেত্রে মামলাটি নিউইয়র্ক এর আদালতের বিচারিক এখতিয়ারভুক্ত প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক আরসিবিসি এবং অন্যান্য বিবাদীদের থেকে ক্ষয়ক্ষতি আদায়ের জন্য পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সক্ষম হবে।

    এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেবে এবং গণমাধ্যমকে একটি আনুষ্ঠানিক ব্যাখ্যাও দেবে।

    পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close