• মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

প্রশাসক বসছে জিপি-রবিতে

প্রকাশ:  ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২০:৩৪
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকা পাওনা দাবি আদায়ে শেষ পর্যন্ত জিপি-রবিতে প্রশাসক পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে সরকার। প্রশাসক বসানোর অনুমতি চেয়ে বিটিআরসির পাঠানো চিঠির বিষয়ে সম্মতিসূচক সিদ্ধান্ত দিতে যাচ্ছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছেন, মন্ত্রণালয় বিটিআরসিকে দুই অপারেটরে প্রশাসক নিয়োগের জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। বিটিআরসি সব দিক বিবেচনা করে যোগ্য ব্যক্তিকে প্রশাসক নিয়োগ করবেন।

তিনি জানান, অপারেটরদের যে কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি। ওই সিদ্ধান্ত অনুমোদনের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে পাঠানোটা মূলত একটি আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া। বিটিআরসি যখন কোন সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করে সেটা মন্ত্রণালয় অনুমোদন করবে সেটাই স্বাভাবিক। অপারেটরদের কাছে যে টাকা পাওয়া যাবে সেটা জনগণের টাকা। এ পাওনা আদায়ের ব্যবস্থা হিসেবে দুই অপারেটরে প্রশাসক নিয়োগের জন্য ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ থেকে বিটিআরসিকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিটিআরসি সূত্র জানায়, নির্দেশনা অনুযায়ী গ্রামীণফোন ও রবিতে চারজন করে মোট আটজন প্রশাসক নিয়োগ দেওয়া হবে। এ দিকে প্রশাসক নিয়োগের চূড়ান্ত চিঠি পাঠানোর আগেই বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) উচ্চ আদালত বিটিআরসি'র পাওনা আদায় প্রক্রিয়ার উপর দুই মাসের অর্ন্তবর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন উচ্চ আদালত।

বিটিআরসি'র অডিট আপত্তি অনুযায়ী গ্রামীণফোনের কাছে পাওনা ১২ হাজার ৫৭৯ কোটি টাকা এবং রবির কাছে পাওনা ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা। এই বকেয়া পাওনা আদায়ে চলতি বছরের ২ এপ্রিল প্রথম চিঠি দেয় বিটিআরসি। এরপরও বকেয়া পাওনা পরিশোধ না করায় প্রশাসক নিয়োগের পদক্ষেপে যাচ্ছে বিটিআরসি।


পূর্বপশ্চিমবিডি/কেএম

গ্রামীণফোন ও রবি,প্রশাসক,নিয়োগ,বিটিআরসি,ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত