• শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮
  • ||

যে ৫ কারণে আগুন লাগে ফোনে

প্রকাশ:  ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:২৭ | আপডেট : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২২
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক

ফোনে আগুন লেগে আহত হওয়ার কিছু ছবি মাঝে মাঝে স্যোশাল মিডিয়ায় দেখা যায়। এর কিছু সত্য, কিছু ভুয়া। তবে ফোনে আগুন লাগা বা ছোটখাট বিস্ফোরণের ঘটনা কিন্তু ঘটতেই পারে। এর পেছনে আছে কিছু কারণ।

ক্ষতিগ্রস্ত ফোন

সম্পর্কিত খবর

    উঁচু থেকে পড়ে বা কোনও কারণে ভেতরের যন্ত্রাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হলেও দেখা যায় অনেক ফোন সচল থাকে। এক্ষেত্রে ফাটা ডিসপ্লে দিয়ে ঢুকে পড়তে পারে পানি বা ঘাম। আর ওই অবস্থায় চার্জারে ঢোকাতে গেলেও ঘটতে পারে শর্ট সার্কিট। এ কারণে আগুন ধরে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। তাই ফোন দুমড়ে মুচড়ে যাওয়ার পরও যদি সচল থাকে তবে তা ব্যবহার না করাই ভালো।

    নকল চার্জার ও ব্যাটারি

    বাজারে নকল চার্জারে সয়লাব বাজার। বিশেষ করে ফাস্ট চার্জিংয়ের নামে কিছু নকল চার্জারও এখন চুটিয়ে ব্যবসা করছে। এ ধরনের চার্জার যদি ঠিকমতো তৈরি করা না হয়, তবে তা দ্রুত ব্যাটারির ওপর চাপ বাড়ায়। এতে ব্যাটারি আচমকা ফেটে বা গলে গিয়ে ঘটতে পারে দুর্ঘটনা।

    নকল চার্জারের মতো নকল ব্যাটারিও দেদার বিক্রি হচ্ছে। মানহীন লিথিয়াম আয়ন কিন্তু গরম হয়ে গেলে বিস্ফোরিত হতে পারে। বিস্ফোরণের মাত্রা কম হলেও ফোনটা যদি কানের কাছে ধরা থাকে তবে বড় ঝুঁকি কিন্তু রয়েই যায়।

    গরম হলে

    ফোন দ্রুত গরম হয়ে যাওয়া মানে কোথাও না কোথাও গলদ আছে। আর ওই অবস্থাতেও যদি কথা চালিয়ে যান বা গেম খেলতে থাকেন তবে সেটা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠে। তাই ফোন বেশি গরম হলে ওটাকে যাবতীয় সংযোগমুক্ত করে রেখে দিন।

    অতিরিক্ত চার্জ

    সারারাত চার্জারে কানেক্ট করে রাখাটাও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। এতে করে ব্যাটারির মান ভালো না হলে সেটা গলে যেতে পারে, কিংবা তাতে আগুন ধরে যেতে পারে। সবচেয়ে ভালো হয় ব্যাটারি ৯০ শতাংশ চার্জ হলেই চার্জার খুলে ফেলা।

    কড়া রোদে চার্জ নয়

    ফোন চার্জে রেখে সেটাকে কড়া রোদে ফেলে রাখতে যাবেন না। এতেও ব্যাটারি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়। ভেতরের ছোটখাট পার্টসও হতে পারে ক্ষতিগ্রস্ত। আর ক্ষতিগ্রস্ত ফোন মানেই পকেটে একটা ঝুঁকি বয়ে বেড়ানো।

    পূর্বপশ্চিমবিডি/এআই

    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close