Most important heading here

Less important heading here

Some additional information here

Emphasized text
  • শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬
  • ||

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পেলেন জামালপুরের দোকানি, নাটোরের কৃষক

প্রকাশ:  ৩০ মে ২০১৯, ১৬:২০ | আপডেট : ৩০ মে ২০১৯, ১৬:২৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট icon

ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি ফ্রি! এ যেন অবিশ্বাস্য! এই বিষয়টিই বাস্তব দেশের শীর্ষ ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ফ্রিজ ক্রেতাদের ক্ষেত্রে। প্রতিষ্ঠানটির ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-৪ এর আওতায় ফ্রিজ কিনে এবার গাড়ি পেলেন জামালপুরের মনোহারি দোকানদার মো. জয়নাল আবেদিন জয় এবং নাটোরের কৃষক মো. মোন্তাজ মোল্লা।

গত ২৫ মে মাদারগঞ্জ উপজেলার ‘সেবা ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স’ থেকে ২৪,৮০০ টাকা দিয়ে ১১ সিএফটির ফ্রিজ কিনে গাড়ি পান জয়নাল। আর পরের দিন গুরদাসপুর ওয়ালটন প্লাজা থেকে ২৭,০০০ টাকা দিয়ে ১৩ সিএফটির ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে আরেকটি গাড়ি পান মোন্তাজ মোল্লা। নতুন গাড়ি পেয়ে উভয় পরিবারের আনন্দের বন্যা। ওয়ালটন তাদের ভাগ্য খুলে দিয়েছে বলে মহাখুশি জয়নাল এবং মোন্তাজ।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে, বিক্রয়োত্তর সেবা অনলাইনের আওতায় আনার লক্ষ্যে সারা দেশে এই ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে তারা। এর আওতায় ফ্রিজ, টিভি, এসি এবং ওয়াশিং মেশিন কিনে রেজিস্ট্রেশন করলেই রয়েছে নতুন গাড়ি। থাকছে ফ্রিজ, টিভি ও এসিসহ অসংখ্য পণ্য ফ্রি পাওয়ার সুযোগ। আছে কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারও।

গত মঙ্গলবার (২৮ মে, ২০১৯) মাদারগঞ্জের বালিজুরিবাজারের ওয়ালটন পণ্যের পরিবেশক শোরুম ‘সেবা ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স’ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে জয়নালের কাছে নতুন গাড়ি হস্তান্তর করা হয়। তার হাতে গাড়ির চাবি তুলে দেন ওয়ালটনের ডেপুটি ডিরেক্টর মো. মিরাজুল হক মিনা, পুলিশের ময়মনসিংহ রেঞ্জের এএসপি মো. সামিউল আলম, ‘সেবা ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স’ এর স্বত্বাধিকারী মো মোস্তাফিজুর রহমান এবং ওয়ালটনের এরিয়া ম্যানেজার রেজওয়ানুর রহমান চৌধুরী।

অন্যদিকে, এর পরের দিন গুরদাসপুর ওয়ালটন প্লাজা আয়োজিত আরেকটি অনুষ্ঠানে কৃষক মোন্তাজ মোল্লার কাছে নতুন গাড়ি হস্তান্তর করা হয়। তার হাতে গাড়ির চাবি তুলে দেন নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আনোয়ার হোসেন, গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোজাহারুল ইসলাম এবং ওয়ালটনের এরিয়া ম্যানেজার আকতার হামিদ খান সূর।

গাড়ি হাতে পেয়ে জয়নাল আবেদিন বলেন, দোকানের জন্য একটি ফ্রিজ প্রয়োজন ছিলো। ওয়ালটন পণ্য ভালো সার্ভিস দেয় তাই তাদের পণ্য কিনি। কিন্তু সেই ফ্রিজ কিনে যে নতুন গাড়ি পেয়ে যাবো, তা স্বপ্নেও ভাবি নাই। ড্রাইভিং শিখে গাড়িটি আমি নিজেই চালাবো।

এদিকে, নতুন গাড়ি পেয়ে যেন ঘোর কাটছে না ৬৫ বছর বয়সী ভূমিহীন কৃষক মোন্তাজ মোল্লার। ওয়ালটনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি বলেন, এই গাড়ি আমার আর্থিক কষ্ট দূর করবে।

জানা গেছে, ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে এ সিজনে নতুন গাড়ি পেয়েছেন আরো বেশ কয়েকজন ক্রেতা। তাদের মধ্যে রয়েছেন কিশোরগঞ্জের বর্ডার গার্ড বাংলাদেশে (বিজিবি) সদস্য আব্দুল মমিন বাচ্চু ও নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার বাসিন্দা মো. মহিন উদ্দিন। এছাড়া, ওয়ালটন টিভি কিনে গাড়ি পেয়েছেন ঢাকার নারী উদ্যোক্তা তানিয়া মেসবাহ।

পিপিবিডি/আরএইচ

ওয়ালটন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত