• শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

মোবাইলে ইমার্জেন্সি এলার্ট: নিউইয়র্কে স্বাস্থ্যসেবা ভেঙে পড়েছে, ডাক্তার নার্স অসুস্থ

প্রকাশ:  ০৪ এপ্রিল ২০২০, ০৬:৫৮ | আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২০, ০৭:২৫
নিউইয়র্ক থেকে রওশন হক
রওশন হক। ফাইল ছবি

বিকেল সাড়ে ৫টায় হঠাৎ করেই মোবাইলে ইমার্জেন্সি এলার্টের কান ফাটানো শব্দ। এলার্ম বেজেই চলছে। চেয়ে দেখি নিউইয়র্ক সিটি হেলথ থেকে ইমার্জেন্সি বেসিসে লাইসেন্সধারী ডাক্তার নার্স সব ধরণের স্বাস্থ্যকর্মীর জন্য সাহায্য চাইছে। নিউইয়র্ক গভর্নর পুরো আমেরিকার থেকে নিউইয়র্কের হাসপাতালগুলোর জন্য জরুরি ভিত্তিতে স্বাস্থ্যকর্মীর চেয়ে রেড এলার্ট জারি করে সবার ফোনে মেসেজ দিয়েছেন। এতে কেউ যদি ভলানটেরিও করতে চায় এ সময়ে তা করতে পারবে।

পরিষ্কার কথা হলো নিউইয়র্কের স্বাস্থ্যসেবা ভেঙে পড়েছে। হাসপাতালগুলোতে রোগী রাখার জায়গা নেই। ভেনটিলেটর তো দূরের কথা পর্যাপ্ত মাস্ক গ্লাভসও এখন নেই। কুইন্স হাসপাতাল এবং এলমহার্স্ট হাসপাতালের মেঝেতে রোগী রাখতে দেখা গেছে। ম্যানহাটন প্রেসবিটেরিয়ান হাসপাতালে সব জায়গায় করোনা রোগীতে ভর্তি। ডাক্তার নার্স ১২/১৬ ঘন্টা কাজ করে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। ডাক্তার বন্ধুদের সাথে কথা বলে জেনেছি তাদের একজনকে ২০/২৫ জন রোগীকে দেখতে হচ্ছে।

নিউইয়র্ক নগরীতে বর্তমানে ১১টি সরকারি হাসপাতাল, ৫টি নার্সিংহোম, ৬টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও চিকিৎসা কেন্দ্র এবং ৭০টিরও বেশি কমিউনিটি-ভিত্তিক প্রাথমিক সেবা যত্নকেন্দ্র রয়েছে। করোনা মহামারির সময়ে বর্তমানে ২২ হাজার ডাক্তার নার্স সরকারি হাসপাতালে কাজ করছেন। নিউইয়র্ক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বর্তমানে ৫৫ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীর প্রয়োজন। সার্জিক্যাল মাস্ক বা অন্যান্য মেডিকেল-গ্রেডের মাস্ক পরার বিরুদ্ধে নিউইয়র্ক বাসিন্দাদের সতর্ক করেছেন মেয়র বিল ডি ব্লাসিও। তিনি আশঙ্কা করে বলেছেন, এমনিতেই এখন হাসপাতালগুলোতে এসব সরঞ্জামের ঘাটতি রয়েছে , সেখানে যারা সুস্থ থেকে ব্যক্তিগত সুরক্ষার জন্য এসব সার্জিক্যাল বা ক্লিনিকাল মাস্ক ব্যবহার করছেন তাদের কারণে হাসপাতালগুলোতে এসব অতি প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের আরও সংকট বাড়বে।

আরও পড়ুন: ‘ট্রাম্পের করোনা সঙ্কট অস্বীকার ছিলো ভয়ঙ্কর, এখন মানুষ মরছে’

মেয়র বলেন, আমাদের স্বাস্থ্যসেবা কর্মী এবং প্রথম সারিতে থেকে যারা সরাসরি হাসপাতালগুলোতে আছেন এগুলো তাদের প্রয়োজন। এসব খুবই মূল্যবান যা এই সময়ে আমারা অনেক কষ্ট করে সরবরাহ করে আনছি। এই ক্লিনিক্যাল মাস্ক ও পিপিইগুলো তাদের জন্য যারা সামনের লাইনে থেকে দেশের রোগীদের সরাসরি সেবা করছেন। তাই নগরবাসীকে বাইরে যাওয়ার সময় তাদের মুখ ঢেকে যেতে বলেছেন মেয়র। স্কার্ফ ব্যবহার করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

মার্কিন জরুরি বিভাগ প্রশাসনের কাছে লাশ রাখার জন্য এক লাখ ব্যাগ প্রস্তুত রাখার চাহিদাপত্র পাঠিয়েছে। এই ব্যাগ জোগান দেওয়ার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ। এই যখন অবস্থা, তখনো প্রশাসনের পক্ষ থেকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়নি। যদিও জনসমাগমের ওপর আরোপ করা হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। কিন্তু এটিকে যথেষ্ট বলে মনে করছেন না স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, জনসমাগমস্থলগুলো বন্ধ করা এবং ১০ জনের বেশি জমায়েত হওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার মধ্য দিয়ে অর্থনীতির বিভিন্ন ক্ষেত্রে এরই মধ্যে লকডাউন জারি হয়ে গেছে। আক্ষরিক অর্থেই থমকে গেছে অর্থনীতি। লাখ লাখ মানুষ এরই মধ্যে কাজ হারিয়েছেন।

আরও পড়ুন: মহাপ্রতাপশালী হোয়াইট হাউজ অসহায়, প্রশ্নবিদ্ধ ট্রাম্প প্রশাসন

পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএস

নিউইয়র্ক,করোনাভাইরাস
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close