• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
  • ||

অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে সানিকে বিয়ের প্রস্তাব দেন ড্যানিয়েল

প্রকাশ:  ১৭ আগস্ট ২০২০, ০১:৫৯
বিনোদন ডেস্ক

সানি লিওনি। বলিউডের এই অভিনেত্রীর নামেই নাকি উষ্ণতা, এমনই বলেন অনেকে। তার পেশাগত জীবন নিয়ে তুমুল বিতর্ক রয়েছে। কিন্তু ব্যক্তি জীবনে স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবার এবং তিন ছেলেমেয়ে নিশা, আয়ার ও নোয়াকে নিয়ে সানি একজন সুখী গৃহিণী। প্রত্যেকের প্রতিই অত্যন্ত যত্নশীল তিনি। স্বামীও ভাগ করে নিয়েছেন দায়িত্ব।

কিন্তু ড্যানিয়েলের সঙ্গে সানির পরিচয় হয়েছিল কীভাবে? কারোই জানতে বাকি নেই, বলিউডে আসার আগে বিশ্বের প্রথম সারির পর্ন তারকা ছিলেন এই সানি লিওনি। বহু বছর ধরে চলা ওই ইন্ডাস্ট্রির বদ্ধমূল ধারণা ধীরে ধীরে ভাঙতে চেয়েছিলেন নায়িকা। কখনো সফল হয়েছে, কখনো এসেছে ব্যর্থতা। কিন্তু লড়াইটা প্রথম থেকেই বেশ কঠিন ছিল। তেমনই এক সময়ে সানির আলাপ হয় ড্যানিয়েলের সঙ্গে।

ড্যানিয়েলের ব্যান্ড দলের এক সতীর্থের মাধ্যমে আমেরিকার লাস ভেগাসে আলাপ হয়েছিল দুজনের। সুদর্শন ড্যানিয়েলকে দেখে সানির প্রথমে ভালো লাগলেও মনে হয়েছিল মানুষটি সম্পূর্ণ তার বিপরীত। সানি বলেন, ড্যানিয়েলের সঙ্গে পরিচয় হতেই তার সেই ভুল ভাঙে। ড্যানিয়েলও বলেন, তার জন্য সানি ‘লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’। কিন্তু সানির জন্য নয়। প্রথম পরিচয়ে তাদের খুব কমই কথা হয়েছিল।

কথা কম হলেও সানির ফোন নম্বর এবং ই-মেল আইডি জোগাড় করে ফেলেছিলেন ড্যানিয়েল। কিন্তু ফোন করেননি। বরং ই-মেল করে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, সানির সঙ্গে কীভাবে কথা বলতে পারেন তিনি। এটা সানির খুব ভালো লেগেছিল। ড্যানিয়েলের বা়ড়ি নিউ ইয়র্কে। প্রথম ডেটে সানির পৌঁছাতে একটু দেরি হয়েছিল। কিন্তু ড্যানিয়েল অপেক্ষা করেছিলেন। ধৈর্য হারাননি।

প্রথম ডেটের পর ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে সানি জানিয়েছিলেন, ‘সারা রেস্তোরাঁ তখন ফাঁকা, কেউ নেই, শুধু আমরা দুজন। মনে হচ্ছিল কেউ যেন পেছন থেকে বেহালা বাজাচ্ছে।’ তিন ঘণ্টা কথা বলার পর সানির মনে হয়েছিল, বহু বছর ধরে যেন চেনেন ড্যানিয়েলকে। খাবার অর্ডার করতেও নাকি ভুলে গিয়েছিলেন। শুধু ওয়াইন খাচ্ছিলেন। প্রথমে তারা পরস্পরকে চিনতে চেয়েছিলেন।

কাজের সূত্রে একবার ওমানে ছিলেন সানি। তখন একটা সিডি মিক্স করে সঙ্গে ফুল পাঠিয়েছিলেন ড্যানিয়েল। এরপর সারাক্ষণ ফোনে কথা হত তাদের। সানি পর্ন ছবিতে অভিনয় করতেন সে সময়। পরে ড্যানিয়েলও তার সঙ্গে কাজ শুরু করেন। নিজেরা একটা সংস্থাও তৈরি করেন। সানির পাশে সবসময় ছিলেন তিনি, কখনও অসম্মান করেনি, এমনই বলেন বলিউডের ‘বেবি ডল’।

ড্যানিয়েলের সঙ্গে পরিচয়ের কয়েক মাসের মধ্যে সানির মা মারা যান। নায়িকা ভেবেছিলেন, হয়তো ড্যানিয়েল সে সময় আবেগ বুঝতে পারবেন না। কিন্তু সানিকে আগলে রেখেছিলেন তিনি। সানির পরিবারেরও সেটা অসম্ভব ভালো লেগেছিল। তিন বছর ড্যানিয়েলের সঙ্গে লিভ-ইন রিলেশনের পর তারা বিয়ে করেছিলেন। এটা যেকোনো নারীর জীবনে লম্বা সময় বলে মনে করেন সানি।

একদিন অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে সানি একটা বাক্স খুঁজছিলেন। হাতের আংটি খুলে রাখবেন বলে। তখন ড্যানিয়েল তার দিকে একটা বাক্স এগিয়ে দেন। বাক্সের মধ্যে লেখা ছিল, ভালোবাসাসহ ড্যানিয়েল। তার পরই তিনি সানির অনামিকায় আংটি পরিয়ে দেন। এই গোটা ঘটনাটাই নাকি ঘটেছিল তাদের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে। অর্থাৎ, যৌন মিলনের সময়ে।

আংটি পরানোর সঙ্গে সঙ্গেই নাকি সানি ‘হ্যাঁ’ বলে নাকি চিৎকার করে উঠেছিলেন। কারণ তিনি ড্যানিয়েলের সঙ্গেই সারাটা জীবন কাটাতে চেয়েছিলেন। একদম সহজ সরল বিয়ের প্রস্তাব ছিল ড্যানিয়েলের। সানিও সেটাই চেয়েছিলেন।

সানি-ড্যানিয়েলের বিয়ের ৯ বছর পেরিয়ে গেছে। তবুও তাদের প্রেমে কোথাও খামতি ঘটেনি। জীবনের প্রতিটা মুহূর্তে ড্যানিয়েলকে পাশে পেয়েছেন সানি। দুজনের ব্যক্তিগত সম্পর্ক বেশ ভালো। দুই ছেলে এক মেয়ে নিয়ে নিজেদের মতো করেই দিন কাটাচ্ছেন তারা। করোনার মধ্যেও এর অন্যথা হয়নি। কখনো মাস্ক বানিয়ে, কখনো ওয়ার্কআউট করে, আবার কখনো বা তিন সন্তানের সঙ্গে খুনসুটি করে দিন কাটছে সানি-ড্যানিয়েলের।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জেআর

সানি লিওন
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close