• শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

‘চুপ থাক, না হলে তোকেও ইনজেকশন দিয়ে শুইয়ে দেব’

প্রকাশ:  ১৫ আগস্ট ২০২০, ১২:১৭
বিনোদন ডেস্ক

বলিউডের চলচ্চিত্র পরিচালক-প্রযোজক মহেশ ভাট সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন প্রয়াত অভিনেত্রী জিয়া খানের মা রাবিয়া খান। সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের কাছে তিনি জানান জিয়ার শেষকৃত্যের দিন তাকে হুমকি দিয়েছিলেন মহেশ ভাট।

মহেশ ভাট নাকি সেদিন বলেছিলেন, ‘চুপ থাক। না হলে তোকেও ইনজেকশন দিয়ে শুইয়ে দেব।’

রাবিয়ার এই বিস্ফোরক মন্তব্যে নতুন করে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে বলিউডে। এই সাক্ষাৎকারে বলিউডের মাফিয়া এবং তাদের ক্ষমতার সম্পর্কেও কথা বলেছেন রাবিয়া। বলেছেন এই বলিউড মাফিয়ারা এখনো সুরজ পাঞ্চোলিকে সাহায্য করছে।

২০১৩ সালে মুম্বাইয়ের বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া জিয়া খানের দেহ। জিয়া খানের সঙ্গে তখন সম্পর্কে ছিলেন অভিনেতা সুরজ পাঞ্চোলি। সুরজের বিরুদ্ধেই জিয়ার পরিবার অভিযোগ এনেছিল।

সুশান্তের মৃত্যু সম্পর্কে রাবিয়া বলছেন, আমি প্রথমেই বলেছিলাম সুশান্তকে খুন করা হয়েছে। জিয়ার ঘটনার সঙ্গে বহু মিল রয়েছে। দুই ক্ষেত্রেই তাদের সঙ্গীরা ভালোবাসায় ফাঁসিয়ে, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে, টাকা পয়সা লুট করেছে। পরিবার-পরিজনদের থেকে দূরে রেখেছে। আমার হাসি পায় মুম্বাই পুলিশকে দেখে। তারা সত্যিটা খুঁজে বের করতে এত সময় লাগিয়ে দিচ্ছে।

জিয়া সম্পর্কে রাবিয়া বলছেন, সুরজ জিয়াকে মারধর করতো। আমি পুলিশকে বলেছিলাম যে আমার মেয়েকে খুন করা হয়েছে। সুরজের নারকো টেস্ট করা হোক। কিন্তু তারা শোনেনি। পুলিশের ওপর বলিউড মাফিয়াদের চাপ ছিল। বলিউডের একজন আইকন বলেছিলেন, যাতে সুরজকে জিজ্ঞাসাবাদ না করা হয়। কারণ সেই সময় তারা সুরজকে নিয়ে ছবি বানাচ্ছিলেন।

তবে এখনো ঈশ্বরের উপর বিশ্বাস রাখেন জিয়ার মা। মনে করেন একদিন ঠিক সত্যিটা সামনে আসবে এবং তারা বিচার পাবে। জিয়ার ক্ষেত্রেও বলা হয়েছিল যে তিনি অবসাদে ভুগছিলেন।

এই প্রসঙ্গে রাবিয়া বলছেন, একমাত্র মহেশ ভাট ছাড়া আর কে বলেছে যে জিয়া অবসাদগ্রস্ত? জিয়ার শেষকৃত্যের দিন তিনি আমার কাছে এসে বললেন যে ও নাকি অবসাদে ভুগছিল। আমি তখন বললাম, মাফ করবেন স্যর। ও কখনই অবসাদগ্রস্ত ছিল না। তখনই উনি বলেন, ‘চুপ করে যা। না হলে তোকেও ইনজেকশন দিয়ে শুইয়ে দেব।

পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

বলিউড,চলচ্চিত্র,পরিচালক,মহেশ ভাট,অভিনেত্রী,জিয়া খান,রাবিয়া খান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close