• বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৮ আশ্বিন ১৪২৭
  • ||

টিকটকে বাংলাদেশের অধিকাংশ গানই আমার: শরীফ উদ্দিন

প্রকাশ:  ০৭ আগস্ট ২০২০, ২০:০২
পূর্বপশ্চিম ডেস্ক
শরীফ উদ্দিন। ফাইল ছবি

মাজার ভিত্তিক গান গেয়ে জনপ্রিয়তা পাওয়া শিল্পী শরীফ উদ্দিনের মতে, মূল ধারার শিল্পীরা বেঁচে থাকবেন আজীবন। বিকল্প মাধ্যমে আসা শিল্পীদের গান তিন পর আর কেউ শোনে না। একমাস পর তো হারিয়েই যায়। এই জনপ্রিয়তা ক্ষণস্থায়ী।

বিকল্প বিনোদন অর্থাৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে ফান ভিডিওগুলো পাওয়া যাচ্ছে এগুলোর জনপ্রিয়তা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এগুলোর জনপ্রিয়তা ভালো। তবে আমি মনে করি, মান ভালো না। সঙ্গীত করতে হলে জানতে হয়, অভিজ্ঞতা থাকতে হয়। এখন তো একটা ক্যামেরা ধরে, এরপর গান গাইল তারপর শিল্পী হয়ে গেল। আমি এদের ভালো শিল্পী মনে করি না। এটার একটা নিয়ম নীতি করলে ভালো হবে।

সম্পর্কিত খবর

    তার মাজার ভিত্তিক গানগুলো জনপ্রিয় হয়ে উঠা নিয়ে তিনি বলেন, আমার জনপ্রিয়তা সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত। আমার গানগুলো দর্শক পছন্দ করেছে এই কারণে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আমিও পরিশ্রম করেছি অনেক। আমি বিভিন্ন ধরনের গান করেছি। মাজারের গান করেছি, জারি গান করেছি, মাটির গান করেছি। আমি আসলে সব ধরনের গানই করেছি। এই কারণে হয়তো জনপ্রিয়তা পেয়েছি।

    এছাড়াও আরো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ডয়চে ভেলের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন শিল্পী শরীফ উদ্দিন।

    সর্বশেষ কতদিন আগে গান করেছেন? সেই গান কতটা জনপ্রিয় হয়েছে?

    আমি নয় মাস আগে সর্বশেষ গান করেছি। সেটাও ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে৷ ইউটিউবে ৩১ লাখ মানুষ সেই গান দেখেছেন, শুনেছেন।

    টিকটকসহ বিদেশী প্লাটফরমের কনটেন্টগুলো অধিক জনপ্রিয়, দেশী প্লাটফরমের কনটেন্টগুলো কতটা জনপ্রিয়তা পাচ্ছে?

    আমি মনে করি, আমাদের দেশের এগুলোও জনপ্রিয়তা পাচ্ছে৷ এগুলোও বহু মানুষ দেখে। আমার মেয়ে তো ইউটিউবে সারাদিন এসব দেখে। টিকটকে বাংলাদেশের অধিকাংশ গানই আমার।

    কোন সিনেমায় আপনার গান গেছে?

    হ্যাঁ, তোমাকে বউ বানাবো সিনেমায় আমার গান গেছে। ওই সিনেমার নায়ক ছিলেন শাকিব খান।

    মূল ধারার শিল্পীদের এই প্লাটফরমে খুব একটা দেখা যাচ্ছে না। অনেক অপরিচিত শিল্পী এখানে জনপ্রিয়তা পাচ্ছেন৷ এর কারণ কি?

    এখন ধরেন নতুন একটা গান বেরুলো খায়রুন লো লম্বা মাথার কেশ এটা কিন্তু নতুন কথা দিয়ে বানানো গান। আবার ধরেন ফাইটা যায়, ফাইটা যায় এটাও নতুন কথা, এটাও হিট হইছে। মূল ধারার শিল্পীরা তো মৌলিক গান করেন। তাদের গান একটা জনপ্রিয় হলে আজীবন থাকবে। আর এখন যারা জনপ্রিয় হচ্ছে তাদের গান মানুষ তিন দিন শোনে। সর্বোচ্চ এক মাস পর্যন্ত এই গানগুলো মানুষ শোনে। এরপর কিন্তু এই গান আর কেউ শোনে না।

    মূল ধারার শিল্পীরা বিকল্প বিনোদনের এই প্লাটফরমের শিল্পীদের কিভাবে দেখেন?

    মূল ধারার শিল্পীরা নতুন এই শিল্পীদের কোন শিল্পীই মনে করে না। কারণ এরা তো ইউটিউবের শিল্পী। এদের তো ওস্তাদের কাছ থেকে কোন শিক্ষা নেই।

    সামাজিক মাধ্যমে দর্শকদের জনপ্রিয়তা পেয়ে অনেকেই নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন। আসলে তারা কতটা গুরুত্বপূর্ণ?

    আগে যারা জনপ্রিয় হয়েছেন তাদের তুলনায় এখন যারা জনপ্রিয় হচ্ছেন তারা কিছুই না। এখনকার জনপ্রিয়তা ক্ষণস্থায়ী। আজকে একটা গান হিট হলেও একমাস পর সব শেষ। যেমন ধরেন আসিফ ভাই মৌলিক গানের শিল্পী। কতদিন আগে তার গান হিট হইছে, অথচ এখন তার সেই সব গান মানুষ শোনেন। মনির খানের গানও তাই কতদিন আগে হিট হইছে, এখনও বাজারে তার গান চলে। তাই মৌলিক শিল্পী যারা তাদের গান আগেও হিট হয়েছে, এখনো চলে। এখনকার শিল্পীদের গান দুই দিন পরই আর থাকবে না।

    পূর্বপশ্চিমবিডি/জেডআই

    শরীফ উদ্দিন
    মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
    cdbl
    • সর্বশেষ
    • সর্বাধিক পঠিত
    close