• শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ২ মাঘ ১৪২৭
  • ||

সুশান্তর টাকা নিয়ে মুম্বাই-বিহার পুলিশের টানাপোড়েন

প্রকাশ:  ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৫:২৯
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে কিছুদিন ধরে মুম্বাই ও বিহার পুলিশের মধ্যে টানাপোড়েন চলছে। সোমবার (৩ আগস্ট) তা আরও তিক্ত মোড় নিল।

বিহারের ডিরেক্টর জেনারেল অব পুলিশ গুপ্তেশ্বর পান্ডে মুম্বাই পুলিশকে সরাসরি প্রশ্ন করেন, কেন তারা সুশান্তর টাকা তছরুপের দিকটা খতিয়ে দেখছেন না?

সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, গত চার বছরে সুশান্তর ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৫০ কোটি রুপি জমা পড়েছিল। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে পুরো টাকাটাই সেই অ্যাকাউন্ট থেকে তুলে নেওয়া হয়েছে। এক বছরে তার অ্যাকাউন্টে ১৭ কোটি রুপি জমা পড়েছিল। এর মধ্যে ১৫ কোটিই তুলে নেওয়া হয়েছে। এটা কি তদন্তের দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট নয়? আমরা কিন্তু চুপ করে বসে থাকব না। আমরা মুম্বাই পুলিশকে প্রশ্ন করছি, কেন এই ধরনের লিড ধামাচাপা দেওয়া হচ্ছে।

সুশান্তর মৃত্যু তদন্তে সিবিআইয়ের হস্তক্ষেপ চেয়ে ইতোমধ্যে সরব হয়েছেন পরিবার-অনুরাগীরা, এমনকি রাজনৈতিক নেতারাও। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়ার সুপারিশ করলেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। প্রয়াত অভিনেতার বাবা কেকে সিং-এর সঙ্গে কথা বলার পর এই প্রস্তাব দেন তিনি।

নীতীশ কুমার জানান, তিনি সুশান্তর বাবার সঙ্গে কথা বলেছেন। তার পরিবার চায় না এই মামলার তদন্ত পুলিশ করুক। তারা চায় সিবিআইয়ের তদন্ত। সুশান্তর মৃত্যুর তদন্তে যাওয়া বিহারের আইপিএস অফিসারকে জোর করে মুম্বাইয়ে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন বিহার পুলিশের ডিজি। সেই ঘটনায় তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন নীতীশ কুমার।

এ দিকে সুশান্তর বাবা কে কে সিং একটি ভিডিও বার্তায় চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছেন। মুম্বাই পুলিশের তদন্তে চরম গাফিলতির অভিযোগ এনে বলেন, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি বান্দ্রা পুলিশকে জানিয়েছিলাম আমার ছেলের জীবন বিপদের মুখে। ১৪ জুন ও মারা গেছে এবং আমি গত ২৫ ফেব্রুয়ারি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আরজি জানিয়েছিলাম। ছেলের মৃত্যুর ৪০ দিন পরেও পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। তাই আমি পাটনাতে এফআইআর দায়ের করেছি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/এইচ

সুশান্ত সিং রাজপুত,বলিউড
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
cdbl
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close