• শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

চলে গেলেন সংগীতজ্ঞ আজাদ রহমান

প্রকাশ:  ১৬ মে ২০২০, ১৯:১৪
বিনোদন ডেস্ক
ফাইল ছবি

চলে গেলেন বরেণ্য সংগীতজ্ঞ আজাদ রহমান। শনিবার (১৬ মে) রাজধানী শ্যামলীতে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন তিনি। ইন্নালি ল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

তার মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন আজাদ রহমানের বোন মাসুমা মান্নান লীনা। তিনি জানান, শুক্রবার (১৫ মে) হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চিকিৎসা চলছিলো। শনিবার বেলা সাড়ে ৪টায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন আজাদ রহমান। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী এবং তিন মেয়ে রেখে গেছেন।

১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলায় জন্মগ্রহণ করেন আজাদ রহমান। তিনি ভারতের রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে খেয়ালে অনার্স সম্পন্ন করেন। ফোক, কীর্তন, ধ্রুপদী সঙ্গীত, খেয়াল, টপ্পা গান, তুমড়ি, রবীন্দ্রসংগীত, অতুল প্রসাদের গান, দিজেন্দ্র গীতি, রজনীকান্তের গানও চর্চা করেন। আজাদ রহমান পশ্চিমবঙ্গ থেকে বাংলাদেশে এসে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা শুরু করেন।

১৯৬৩ সালে কলকাতায় ‘মিস প্রিয়ংবদা’র সংগীত পরিচালনার মধ্য দিয়ে আজাদ রহমানের চলচ্চিত্রে আগমন। সেই চলচ্চিত্রে তার সুরে কণ্ঠ দেন মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায়, আরতি মুখার্জি ও প্রতিমা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে তার সুরকৃত প্রথম চলচ্চিত্র বাবুল চৌধুরীর ‘আগন্তুক’।

আজাদ রহমানের সুর ও তার কণ্ঠে গাওয়া ‘এপার ওপার’ চলচ্চিত্রের ‘ভালোবাসার মুল্য কত’, ‘ডুমুরের ফুল’-এর ‘কারো মনে ভক্তি মায়ে’, ‘দস্যু বনহুর’-এর ‘ডোরা কাটা দাগ দেখে বাঘ চেনা যায়’ গানগুলো সত্তরের দশকে জনপ্রিয়তা লাভ করে। তিনি কালজয়ী দেশাত্মবোধক গান ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মা গো’-এর সুরকার। তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ অনেক স্বীকৃতি আছে তার ঝুলিতে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জেআর

আজাদ রহমান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
Latest news
close