• শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

সহস্র সুমন ও মুন্নীর কবিতার লড়াই

প্রকাশ:  ১৯ এপ্রিল ২০২০, ১০:১৫
বিনোদন ডেস্ক

করোনাভাইরাস মহামারিতে বদলে যাওয়া জীবনের উপলদ্ধির কথা কবিতায় জানালেন দর্শকপ্রিয় ২১ জন প্রবাসী শিল্পী। দিলেন বিশেষ বার্তা। যে বার্তাটি তারা মূলত পাঠালেন মাতৃভূমির কাছে। চলমান করোনাকালে তারা নিজ নিজ ঘরে থেকে তৈরি করলেন এই কবিতা-ভিডিও। যে কবিতার পরতে পরতে রয়েছে করোনাকাল জয় করে বাঁচার আকুতি। বাঁচলে কে কী করবেন, সেই শপথটুকুও করেছেন তারা।

কবিতার কথাগুলো এমন- এ যাত্রায় বেঁচে গেলে, ভীষণ করে বাঁচবো/ সবাইকে জড়িয়ে ধরে, অনেক করে কাঁদবো/ এ যাত্রায় রেহাই যদি পাই, অন্যের কথা ভাববো/ যার যেখানে অংশ আছে, হিসাবগুলো চুকিয়ে দেবো...।

এই কাজটিতে অংশ নেওয়া প্রবাসী শিল্পীরা আশি ও নব্বই দশকের ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখগুলো। তাদের সবাই এখন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করছেন। বিশ্বের নানা প্রান্তে থেকেও একটি সুতায় মালার মতো এক হয়েছেন তারা।

আবৃত্তিতে অংশ নেওয়া শিল্পীরা হলেন—তানিয়া আহমেদ, মোনালিসা, রুমানা, জামাল উদ্দিন হোসেন, মিলা হোসেন, শামীম শাহেদ, শিরিন বকুল, শ্রাবন্তী, কাজী উৎপল, তমালিকা কর্মকার, ডলি জহুর, শামসুল আলম বকুল, প্রিয়া ডায়েস, মহসিন রেজা, হিল্লোল, আফরোজা বানু, নওশীন নাহরিন মৌ, খাইরুল ইসলাম পাখি, রওশন আরা, টনি ডায়েস ও লুৎফুন নাহার লতা।

প্রত্যেক শিল্পী নিজ নিজ ঘরে থেকে কবিতা আবৃত্তির ফুটেজ পাঠিয়ে দেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী টনি ডায়েসের কাছে। নওশীন নাহরিন মৌয়ের পরিকল্পনায় সেসব ফুটেজ নিয়ে তৈরি হয়েছে একটি ভিডিও।

শনিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে ফেসবুকে উন্মুক্ত করা হয়েছে কবিতা-ভিডিওটি। করোনা সংকটে যারা সামনে থেকে যুদ্ধ করছেন তাদেরকে এটি উৎসর্গ করা হয়েছে। সেই সঙ্গে সকল বাংলাদেশিদের জন্য এটি উপহার বলে জানিয়েছেন টনি ডায়েস।

এদিকে ভিডিওটি প্রকাশের পরই কবিতার রচনাকারীকে নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই কবিতা নিয়ে ইতোমধ্যে লড়াই শুরু হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

টনি ডায়েসের প্রকাশ করা ভিডিওতে বলা হয়েছে কবিতাটি রচনা করেছেন সহস্র সুমন। আর এই সহস্র সুমনকে নিয়েই অভিযোগ উঠেছে তিনি কণ্ঠশিল্পী দিনাত জাহান মুন্নীর লেখা কবিতা চুরি করেছেন। চালিয়েছেন নিজ নামে।

বসুধা বিল্ডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল জাববার খান ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বিশ্বত্রাস ভাইরাস করোনার ভয়ে সারাদেশের মানুষ দীর্ঘ দিন ধরেই ঘরবন্দি সময় কাটাচ্ছে। আতংক এবং হতাশা ছড়িয়ে পড়েছে চারদিকে। এই আতংক কে পরাজিত করে বিখ্যাত কন্ঠশিল্পী দিনাত জাহান মুন্নী লিখে ফেললেন তার জীবনের প্রথম কবিতাটি। কবিতার শিরোনাম, ‘এ যাত্রায় বেঁচে গেলে’। ফেসবুকে তার টাইমলাইনে কবিতাটি পড়েই আমি তাকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছিলাম। অসাধারণ হৃদয়গ্রাহী একটি কবিতা। এজন্য তার অসংখ্য ভক্ত শুভেচ্ছায় সিক্ত করেছেন তাকে।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘হৃদয়গ্রাহী কবিতা লেখার ফল পেলেন হাতে হাতে। চুরি হয়ে গেলো এটি। চোর অবশ্য বড় কাজেই লাগিয়েছে। দীর্ঘদিন প্রবাসে থাকা অভিনেতা টনি ডায়েসের ডিরেকশনে তৈরি করা হয়েছে খুব সুন্দর মানের একটি আবৃত্তির ভিডিও। এতে কণ্ঠ দিয়েছেন খ্যাতনামা সব শিল্পীবৃন্দ। করোনা'র এই সময়টাতে ঘরে থাকার আহ্বান সমৃদ্ধ ভিডিও। চমৎকার একটি কাজ হয়েছে।’

আবদুল জাববার খান লিখেছেন, ‘সব ঠিক আছে। কিন্তু কবি'র নাম লেখা রয়েছে সহস্র সুমন। এটা কি ঠিক হলো? এই চৌর্যবৃত্তি কি সমর্থনযোগ্য? একজন কবি'র ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি আরেকজন চুরি করে যতো ভালো কাজেই লাগাক, সেটা কি মেনে নেয়া যায়? মুন্নী'র কাছে চাইলে কি তিনি অনুমতি দিতেন না?

‘কবিতা চোর সহস্র সুমনকে এই অপরাধের কারণে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। ভিডিওটিতে প্রয়োজনীয় সংশোধন দাবি করছি।’

তানভীর তারেক নামের একজন লিখেছেন, ‘দিনাত জানান মুন্নী ভাবীর লেখা এই কবিতাটি আবেগী হয়েই সাথে সাথে স্টুডিওতে মাত্র ৩ ঘণ্টায় মিউজিক করে গান করি। এরপর জাস্ট কিছু ছবি দিয়ে স্লাইড শো পোস্ট দিই। অনেকেই প্রশংসা করেছে গানটির। আজ দেখলাম প্রবাসী প্রিয় বড় ভাই প্রবাস যাপিত প্রিয় সব তারকার মাধ্যমে হুবহু গানটির লিরিক, বলা ভাল মুন্নি ভাবীর দারুন এই কবিতার থিমটা হুবহু মেরে দিয়েছে। প্রথমে প্রিয় সব মুখদের দেখে ভালোই লাগল। পরে ভিডিওটা দেখে টাসকিত হলাম। কবির নাম দেখলাম সহস্র সুমন।

তিনি আরও লিখেছেন, ‘টনি ডায়েস ভাই এই কবির সাথে পরিচিত হতে চাই!! প্লিজ একটু পরিচয় করায়ে দিয়েন। সহস্র সুমনের চৌর্যবৃত্ত কাব্য মেধাকে আমার সহস্র সালাম। আর কিছু বলার নেই। এবার যদি বেঁচে যাই - সহস্র সুমনকে একটু স্ব চক্ষে দেখবার চাই — এবার যদি বেঁচে যাই..’

সমালোচনার জবাবে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন সহস্র সুমন। তিনি লিখেছেন, ‘এ মাসে ৮ তারিখ আমি 'এ যাত্রায় যদি বেচেঁ যাই' কবিতাটি লিখি। ১০ তারিখে একটি ভিডিও হ আপলোড দেই। আমার ফেসবুকের বন্ধু মহল খুব পছন্দ করে এটি শেয়ার করতে থাকে। ১২ তারিখে আমি জানতে পারি রংপুরের এসপি বিপ্লব সরকার মহোদয় আমার কবিতাটি শেয়ার করেছে কিন্তু নিচে আমার নামটি ব্যবহার করেনি। আমি এসপি মহোদয়কে ইংল্যান্ড থেকে মেসেজ পাঠালে উনি দ্রুত আমাকে ফোন করেন। কবিতার প্রশংসা করেন। ভদ্র মানুষ, দ্রুত নিচে আমার নাম দিয়ে দেন। এর মধ্যে কবিতা ব্যাপক ভাইরাল হয়। টনি ডায়েস দাদার সাথে কথা হয়, ওনারা এটা ব্যবহার করে ছোট্ট একটা ভিডিও বানান। আজ জানতে পারছি দিনাত জাহান মুন্নি এই ধরণের একটি কবিতা লিখেছেন। তার কবিতাটি আমি দেখি। কবিতা দুটোতে তেমন কোন মিল নেই, তবে ভাবে মিল আছে। কাব্য ও সাহিত্যে এমন অনেক আছে। তবে আমাকে যেভাবে কটূক্তি করে আপনি পোস্ট দিয়েছেন আমি সত্যিই মর্মাহত হয়েছি। আপনার কবিতা ও আমার কবিতা অনেক আলাদা। আমি শেয়ার করেছি ১০ তারিখ, আপনি ১২ তারিখ। আমার কবিতা দ্বারা আপনি প্রভাবিত হওয়ার সুযোগ আছে, উল্টোটা নেই। আপনি জীবনে শখ করে একটা কবিতা লিখেছেন, আমি ছোট বেলা থেকে লিখি। কবি ও কবিতার প্রতি আমার অগাধ সম্মান। ভালো থাকুন। ভুল ত্রুটি হলে মার্জনা করবেন। তারিখ প্রমাণের জন্য স্ক্রিন শট দিয়ে দিলাম।’

সহস্র সুমন যদিও দাবি করেছেন তিনি দিনাত জাহান মুন্নীর আগেই ফেসবুকে কবিতাটি শেয়ার করেছেন। বাস্তবে তার প্রমাণ মেলেনি। দিনাত জাহান মুন্নীর ফেসবুক প্রোপাইল ঘুরে দেখা গেছে তিনি কবিতাটি ৮ এপ্রিল পোস্ট করেছিলেন। সেদিনই কবিতাটিতে সুর করেছিলেন তানভীর তারেক। একই দিন দিনাত জাহান মুন্নীর কবিতাটি আবৃত্তি করে ভিডিও আঁকারে পোস্ট করেন বিপ্লব সাহা নামের একজন।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

দিনাত জাহান মুন্নী,সহস্র সুমন,কবিতা,কবিতা ভিডিও,প্রবাস,করোনা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close