• বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
  • ||

কথা রাখলেন বাদশা, রতন কাহারকে দিলেন ৫ লাখ টাকা 

প্রকাশ:  ০৭ এপ্রিল ২০২০, ১৬:২৬
বিনোদন ডেস্ক

ভারতে লকডাউনের সময় বলিউডের জনপ্রিয় র‌্যাপার বাদশার গাওয়া ‘বড় লোকের বেটি লো’ নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে। তার উপর সরাসরি অভিযোগ তিনি রতন কাহারের এ গানটি নিজের নামে চালিয়ে দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে কয়েকদিন চুপ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ খুলেছিলেন বাদশা। বলেছিলেন, লকডাউন শেষ হলেই রতন কাহারের সাথে দেখা করবেন, অর্থসাহায্যও করবেন। কিন্তু লকডাউন শেষ হবার আগেই টাকা পৌঁছে গেল তার অ্যাকাউন্টে।

সোমবার (৬ এপ্রিল) বীরভূমের লোকশিল্পীকে ৫ লাখ টাকা পাঠালেন বাদশা। কয়েকদিন আগে রতন কাহারের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছিলেন তিনি। তখনই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, রতন কাহারের পাশাপাশি তার নাতি-নাতনির পড়াশোনার জন্যেও আর্থিক সাহায্যে করবেন। তিনি যে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দেননি, দু’জনের মধ্যেই তা প্রমাণ করে দিলেন।

মুক্তির পর থেকেই চার্টবাস্টারে প্রথমের দিকেই রয়েছে ব়্যাপার বাদশার ‘গেন্দাফুল’। কিন্তু জনপ্রিয়তার পাশাপাশি সমালোচনার শিকার হতে হয় বাদশাকে। নেটিজেনরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন, ‘বড়লোকের বিটি লো’ গানটি বাংলার শিল্পী রতন কাহারের সৃষ্টি। অথচ তাঁর নাম উল্লেখ নেই কোথাও। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে মঙ্গলবার অর্থাৎ ৩১ মার্চ ‘গেন্দাফুল’ গান এবং বাংলার রতন কাহার প্রসঙ্গে মুখ খুলতে বাধ্য হন বাদশা।

জানান, এই গানটি যে রতন কাহারের লেখা সেটা তিনি জানতেন না। এর আগে বহুবার এই গান তিনি শুনেছেন এবং ইউটিউবে এই গানের বহু রিমেকও রয়েছে। তার মূল কারণ, সব ক্ষেত্রেই শুধু উল্লেখ রয়েছে, এটি ‘বাংলার লোকগীতি’, কিন্তু কোনওটাতেই গানের রচয়িতার নাম নেই।

প্রসঙ্গত, দুবছর আগে একটি বাণিজ্যিক বাংলা ছবিতেও এই গানের কথা নিয়ে রিমিক্স করা হয় এবং সেখানেও রতন কাহারের কোনও নাম ছিল না। স্বাভাবিকবশতই মূল সত্যিটা বাদশারও নজরের আড়ালেই রয়ে যায়।

তবে ‘গেন্দাফুল’ বাজারে হিট হতেই বাদশার নামে গান চুরির অভিযোগ ওঠে। তারপরই বিভিন্ন জনের সঙ্গে কথা বলে, রীতিমতো নেট ঘেঁটে বাদশা রতন কাহার সম্পর্কে জানতে পারেন। তাকে নিয়ে যে তথ্যচিত্র রয়েছে, সেটাও দেখেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/অ-ভি

টাকা,রতন কাহার,কথা লেন বাদশা,,বাদশা
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close