• বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬
  • ||

এবার কোয়ারেন্টাইনে তাহসান

প্রকাশ:  ১৮ মার্চ ২০২০, ১১:৫৫
বিনোদন ডেস্ক
তাহসান খান। ফাইল ছবি

মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান খান। জাপান থেকে ফেরার পর তিনি নিজ বাসায় কোয়ারেন্টাইনে থাকছেন।

জাপান থেকে দেশে ফেরার পর গত ১৪ মার্চ ফেসবুকে এক পোস্টের মাধ্যমে তিনি লেখেন, প্রিয় প্রযোজক, পরিচালক ও কনসার্টের আয়োজক- আমি আমার সব কাজ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সামাজিক বিচ্ছিন্নকরণ হলো এ মুহূর্তে সবচেয়ে বড় সমাধান। আশাকরি, আপনারা বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন।

জানা যায়, বুধবার (১৮ মার্চ) তার একটি নাটকের শুটিংয়ে অংশ নেয়ার কথা ছিল। আগামী সপ্তাহেও তার নাটকের কাজ ছিল। তবে পরিচালকদের তিনি নিজের অপারগতার কথা জানিয়েছেন। তাহসান বলেছেন, এখন কাজের সময় নয়; নিজেদের বাঁচানোর সময়।

বিশ্বজুড়ে করোনার পরিস্থিতি নিয়ে তিনি আরও বলেন, এখন নিজেকে আলাদা করে রাখাটা আপনার-আমার সবার দায়িত্ব। একমাত্র এর মাধ্যমেই এ সঙ্কট মোকাবিলা করা সম্ভব।

জনপ্রিয় এই তারকা জানান, বাসায় এভাবে দিনের পর দিন সময় কাটানো তার জন্য কষ্টকর হয়ে উঠছে। তারপরও এভাবেই থাকতে চান। বাসায় বসে অনলাইন, টিভি ও নিজের কাজের চর্চা করেই সময় কাটাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওন যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে ঢাকায় ফিরেছেন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে করোনাভাইরাসের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর ধানমন্ডির বাসায় অবস্থান করছেন তিনি।

আপাতত নিজ ঘরেই হোম কোয়ারেনটাইনে আছেন বলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে জানিয়েছেন হুমায়ূনপত্নী।

অভিনেত্রী শাওন কোয়ারেন্টাইনে

এ কথা জানিয়ে ফেসবুকে দেওয়া তার স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো:

বেশ আগে প্রতিশ্রুতি দেয়া একটি বইমেলায় অংশ নিতে আমেরিকায় গিয়েছিলাম। ওয়াশিংটনে প্রকোপ থাকলেও নিউইয়র্কে করোনা ভাইরাসের প্রকাশ পায়নি তখনও। ভাইরাসটির সংক্রমণ বাড়ার পরপরই আমেরিকার বিভিন্ন স্টেটে সতর্ক বার্তা জারি হয়ে যায়। তারপর ঘর থেকে বের হইনি একদম। এ বছর মে মাসের ৩০, ৩১ তারিখে নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিতব্য হুমায়ূন আহমেদ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্মেলন ২০২০ এর সংবাদ সম্মেলন বাতিল এবং মূল অনুষ্ঠানের তারিখ স্থগিত করা হয় তৎক্ষনাৎ। প্রতি মুহূর্তের খবর দেখছিলাম আর ভাবছিলাম বাচ্চাদু’টোর কাছে ফিরতে যেতে পারবো তো?

পরম করুণাময়ের অশেষ কৃপায় গতকাল দেশে ফিরেছি। ঢাকা এয়ারপোর্টে স্বাস্থ্য বিষয়ক সতর্ক অবস্থান দেখে ভালো লাগলেও দুবাই থেকে ফেরার ফ্লাইটে মধ্যপ্রাচ্যের যাত্রীদের গনহারে প্যারাসিটামল কিংবা প্যানাডল খেয়ে “জ্বর যেন না ওঠে তাইলে মেশিনে আটকায়ে দিবে” ধরনের আচরণ খুব আশঙ্কাজনক লেগেছে! ‘কোয়ারেন্টাইন’ শব্দটার প্রতি এক অজানা ভীতিতে সবাই। “মাত্র ১৪টা দিন নিয়ম মেনে আলাদা থাকলে পরিবারের অন্য সদস্যরা করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের ঝুঁকিমুক্ত থাকবে” এই কথা ৪/৫ জনকে বোঝাবার চেষ্টা করে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছি আমি। তবে নিজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছিলাম নিউইয়র্ক থেকে রওনা হওয়ার একদিন আগেই। আব্বু আম্মুর সাথে কথা বলে রেখেছিলাম- তারা দুইজন সায় দিয়েছেন। নিনিত এবং নিষাদ দু’জনকেই বুঝিয়ে বলেছেন। পুত্রদ্বয়ও বিষয়টা সুন্দরভাবেই গ্রহণ করেছে।

আমি গতকাল থেকে আমার ধানমন্ডির বাসায় সবার থেকে আলাদা (হোম কোয়ারেন্টাইন শব্দটিতে আমারও ভয় লাগে!) আছি। আমার মা’র বাড়িতে থাকা পুত্রদের সাথে ঘণ্টায় ঘণ্টায় ভিডিও কলে কথা হচ্ছে। বাসায় ফেরার পর গতকাল রাতে প্রতিবেশী স্বর্ণা ভাবী জড়িয়ে ধরে শুভেচ্ছা জানাতে চাইলে তাকে বারণ করেছি। তিনি বুঝতে পেরেছেন এবং ৩/৪ হাত দূরে দাঁড়িয়ে খাবার দিয়ে গেছেন। দখিণ হাওয়া’য় আমার বাসার দরজা প্রথমবারের জন্য তালাবন্ধ রাখা হয়েছে!

আমি ভালো আছি। জ্বর, কাশি, গা ব্যথা কিছুই নেই।

আপাতত আগামী সাড়ে ১৩ দিন (আধাদিন পার হয়ে গেছে) কি কি করবো তার তালিকা করছি।

১/ বিশ্রাম

২/ বিশ্রাম

৩/ বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির খবর দেখা

৪/ বিশ্রাম

৫/ বাংলাদেশের খবর দেখা

৬/ আবারও বিশ্রাম

৭/ নেটফ্লিক্স

৮/ নেটফ্লিক্স

৯/ নেটফ্লিক্স

১০/ বিশ্রাম

১১/ ফেসবুক স্ক্রল করা

১২/ ভিডিও কলে আড্ডা

১৩/ কিঞ্চিৎ লেখালেখির চেষ্টা

চাইলে আপনারাও কিছু যোগ করতে পারেন তালিকায়।

সবাই ভালো থাকবার চেষ্টা করবেন। অন্যদের ব্যপারেও সচেতন থাকবেন।


পূর্বপশ্চিমবিডি/এসএম

কোয়ারেন্টাইন,করোনাভাইরাস,তাহসান খান
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close