• শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭
  • ||
শিরোনাম

বিয়েতে যে পোশাক পরবেন সৃজিত-মিথিলা

প্রকাশ:  ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০২
বিনোদন ডেস্ক

সৃজিত মুখার্জী কলকাতায় স্বনামধন্য চলচ্চিত্র পরিচালকদের একজন। তার পরিচালিত সবগুলো ছবিই আলোচিত হয়েছে। জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। সৃজিতের সাথে টালিউডের অনেক নায়িকার প্রেমের গুঞ্জন ছড়িয়েছে। তবে অবশেষে বাংলাদেশের মডেল-অভিনেত্রী মিথিলার সঙ্গেই চার হাত এক হচ্ছে তার। শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় তাদের বিয়ে।

এই সময় এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সৃজিত আর মিথিলার প্রেমপর্ব চলেছে বছরখানেক ধরে। সৃজিত-মিথিলা সাত পাকে বাঁধা পড়ছেন কবে, তা নিয়ে জল্পনার কোনও শেষ ছিল না শহর জুড়ে। আজ ৬ ডিসেম্বর সন্ধেবেলা রেজিস্ট্রি করেই একে অন্যের সঙ্গে সারাজীবন কাটানোর জন্য অঙ্গীকারবদ্ধ হচ্ছেন সৃজিত। মিথিলার বাবা-মা, পরিবারের লোকজন এসেছেন বাংলাদেশ থেকে। সৃজিতের মা, দিদি উপিস্থিত থাকছেন বিয়েতে। আর সৃজিত-মিথিলার প্রাণভোমরা মিথিলার মেয়ে আয়রা থাকছে। এছাড়াও উপস্থিত থাকছেন সৃজিতের টলিউডের পরিবার রুদ্রনীল, শ্রীজাত, ইন্দ্রদীপ, যিশু, নীলাঞ্জনা, অনুপম ও পিয়া।

জানা গেছে, বিয়েতে সৃজিত পরবেন পাজামা, পাঞ্জাবি, জহরকোট। মিথিলা পরছেন লাল জামদানি।

সৃজিতের কোন দিকটা তাঁকে সবচেয়ে আকর্ষণ করে? এমন প্রশ্নের উত্তরে মিথিলা বলেন, আমি আর সৃজিত দু’জনেই কাজপাগল। আবার আমরা ভীষণ অলস। এটা বলে বোঝানো যায় কি না জানি না। কিন্তু এতেই আমাদের আসল মিল।

ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, রেজিস্ট্রি ম্যারেজের পর টলিউডের সকল অতিথিদের নিয়ে বিশেষ পার্টি হবে। আজ মুখোপাধ্যায় বাড়িতে খাওয়াদাওয়া শুরু দুপুর থেকে। খাঁটি বাঙালি রান্না। সন্ধেবেলা বিরিয়ানি হবে। খোঁজ নিয়ে জানা গেল জামাইয়ের জন্য দু’ কেজি ওজনের চারটি ইলিশ এসেছে পদ্মা থেকে।

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী তাহসানের সঙ্গে মিথিলার বিয়ে হয় ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট। তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদ হয় ২০১৭ সালের জুলাই মাসে। অন্যদিকে সৃজিত এখনো সিঙ্গেল।

২০১০ সালে সৃজিতের প্রথম চলচ্চিত্র অটোগ্রাফ বাণিজ্যিকভাবে সফল হয় এবং সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়। তার 'জাতিস্মর' ছবিটি চারটি পুরস্কার জিতে নেয়। 'চতুষ্কোণ' সিনেমাটির জন্য তিনি সেরা পরিচালক এবং সেরা চিত্রনাট্য বিভাগে পুরস্কার জিতে নেন।

সৃজিতের পরিচালিত রাজকাহিনি চলচ্চিত্রটি হিন্দিতে বেগম জান শিরোনামে পুনঃনির্মিত হয়েছে।

সৃজিত প্রথমে প্রেসিডেন্সি কলেজ এবং পরে জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে পড়াশুনা করেছেন। তার বাবা সমরেশ মুখোপাধ্যায় একজন স্থাপত্যবিদ্যার অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক। তিনি ছিলেন একাধারে কবি, শিক্ষক, চিত্রশিল্পী। তার মা এনাটমি বিভাগের একজন শিক্ষক।

সৃজিত মুখোপাধ্যায় অর্থনীতিবিদ ও পরিসংখ্যানবিদ হিসেবে কাজ করার সময় দিল্লিতে ইংরেজি সার্কিট থিয়েটারের সাথে বেশ ভালোভাবে যুক্ত হন। তার কয়েকটি চলচ্চিত্র হলো 'বাইশে শ্রাবণ', 'হেমলক সোসাইটি', 'মিশর রহস্য, 'জাতিস্মর', 'চতুষ্কোণ', 'নির্বাক' ইত্যাদি।

পূর্বপশ্চিমবিডি/জিএম

চলচ্চিত্র পরিচালকদ,সৃজিত মুখার্জী,মডেল-অভিনেত্রী,মিথিলা,বিয়ে
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close