• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

একান্ত সাক্ষাৎকারে বিপাশা কবির

‘আমার জন্যই অনেক দর্শক টিকেট কেটে সিনেমা হলে যায়’

প্রকাশ:  ০৩ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫০ | আপডেট : ০৩ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:২৮
আসিফ আলম

লাক্স তারকা বিপাশা কবির। বড় পর্দায় বেশ দাপটের সাথেই আইটেম গান করেছেন। ২০১২ সালে ভালোবাসার রঙ ছবিতে আইটেম গানে অংশ নিয়ে রুপালি পর্দায় যাত্রা শুরু করেন বিপাশা কবির। এরপর বেশ কয়েকটি ছবিতে আইটেম গানে পারফর্ম করে আলোচনায় আসেন তিনি। শোবিজে পথচলার সহ নানা বিষয়ে কথা হলো পূর্বপশ্চিমের প্রতিবেদকের সঙ্গে । জানালেন তার নানা অজানা কথা।

পূর্বপশ্চিম : কেমন আছেন?

বিপাশা: এই তো আপনাদের দোয়া আর সবার ভালোবসায় ভালোই আছি।

পূর্বপশ্চিম: প্রথমেই জানতে চাই আপনার শৈশব সম্পর্কে?

বিপাশা: আমার ছোট বেলা কেটেছে মতিঝিলে আমার নানা-নানুরকাছে। সেখানে অনেক দিন থাকার পর চলে যাই খিলগাঁও গোড়ানে। সেখানেই বড় হওয়া। আর পরাশোনা করেছি দক্ষিন বনশ্রী মডেল হাই স্কুলে। কলেজ জীবন কেটেছে সেন্ট্রাল উইমেন্স কলেজে আর ভার্সিটিতে জীবন কেটেছে এশিয়া প্যাসিফিকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট এ।

পূর্বপশ্চিম: সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং সাবজেক্ট এ পড়াশোনা করে ঐ পেশায় না গিয়ে মিডিয়াতে কেন?

বিপাশা: আমি যখন ভার্সিটি তে পড়ি তখন আমার সাথের অনেক বন্ধু-বান্ধবি বলতো আমি নাকি অনেক ফটো জেনিক। আর তাই পড়াশোনার ফাঁকে লাক্স চ্যানেল আই’র সুপার স্টার প্রতিযোগিতায় অংশ নেই আর এভাবেই শুরু হয়ে যায় আমার মিডিয়াতে কাজ করা।

পূর্বপশ্চিম: আপানারকে বেশীভাগ ছবিতেই আইটেম গান করতে দেখা যায়। তবে কিছু ছবিতে মূল নায়িকা হিসেবে দেখা গিয়েছে। সে ক্ষেত্রে কোন বিষয়টি বেশী উপভোগ করছেন?

বিপাশা: আমি আইটেম গানে জনপ্রিয়তা পেয়েছি ঠিকই। এমনও অনেক দেখা গেছে আমি যে ছবিতে আইটেম গানে পারফর্ম করি তখন শুধু আমার জন্যই অনেক দর্শক টিকেট কেটে সিনেমা হলে যায়। তবে বড়পর্দার মূল নায়িকা চরিত্রে কাজ করতে বেশী আগ্রহী। সেই ডাকের অপেক্ষায় থাকি সবসময়। এরইমধ্যে মূল অভিনেত্রীর ভূমিকায় কাজও করেছি। তাই বর্তমানে চিন্তাটা ভিন্ন।

পূর্বপশ্চিম: আইটেম গানে জনপ্রিয়তা পেলেও মূল নায়িকা চরিত্রে যে ছবি গুলো করেছেন সে গুলো তেমন ব্যবসা সফল হয়নি। বিষয়টি আপনি কিভাবে দেখছেন?

বিপাশা: দেখেন একটা কথা মানতেই হবে যে কখন কোন ছবি সফলতা পেয়ে যায় তা বলা কঠিন। হ্যাঁ এটা সত্যি যে বছর আমার মূল নায়িকা হিসেবে যে দুইটি ছবি মুক্তি পেয়েছে তার মাঝে খাস জমিন ছবিটি নিয়ে বেশী আশাবাদী ছিলাম কিন্তু ছবিটি তেমন ভাবে ব্যবসায়িক ভাবে সফল হয়নি। তবে দর্শদের যে ভালবাসা পেয়েছি তা সত্যি আমাকে নতুন করে কাজ করার উৎসাহ দেয়।

পূর্বপশ্চিম: কখনো হলে গিয়ে দর্শকদের সাথে সিনেমা দেখেছেন?

বিপাশা: অবশ্যই দেখেছি। কেননা সাথে একসাথে ছবি দেখার মজাই অন্যরকম। একটা কথা না বললেই নয় যে আমার দর্শক বা ভক্তরা তারা বারবারই আমাকে বলছে আপু তুমি নায়িকা হিসেবে কন্টিনিউ করো, অনেক ভালো করবা। দর্শকদের কাছ থেকে এমন মন্তব্য আমার জন্য আর্শীবাদ স্বরূপ।

পূর্বপশ্চিম: আইটেম গান ছেড়ে পুরোপুরি কি মূল নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করতে চান?

বিপাশা: না, যেহেতু আইটেম গান দিয়েই আমার পরিচিতি সো এটা ছাড়ছি না। তবে খুব বেঁছে বেঁছে করবো। ভালো বাজেটের ছবির ভালো গান পেলে মাঝে মাঝে আইটেম গানেও দেখা যাবে আমাকে। তবে আমার টার্গেট প্রধান নায়িকা চরিত্রে কাজ করা।

পূর্বপশ্চিম: মিডিয়াতে কি আরো আদর্শে চলেন বা কাউকে আইডল হিসেবে মানেন?

বিপাশা: না আমি মিডিয়াতে কারো আদর্শ নিয়ে চলিনা বা কাউকে আইডল হিসেবে মানিনা। তবে হ্যাঁ মিডিয়াতে শাবানা ম্যাডাম ও শাবনূর আপার অভিনয় আমার অনেক ভালো লাগে।

পূর্বপশ্চিম: বর্তমান সময়ের নায়িকাদের মাঝে কাকে আপনার বেশী ভালো লাগে বা কাড় অভিনয় আপনার বেশী পছন্দ?

বিপাশা: বর্তমান সময়ে নায়িকাদের মাঝে বলতে গেলে পরীমণিকে আমার বেশ ভালো লাগে ব্যক্তিগত জীবনেও যেমন ভালো মনের মানুষ ঠিক তেমনি অভিনয়েও পাকা।

পূর্বপশ্চিম: বর্তমান কর্মব্যস্ততা জানতে চাই।

বিপাশা কবির: বর্তমানে বেশ কিছু মিউজিক ভিডিওর কাজ করেছি। আরও কিছুর কথা চলছে। পাশাপাশি ওয়েব সিরিজের কাজ শেষ করালাম কয়েকটির।

বিপাশা কবির মনতাজুর রহমান আকবরের ‘তবুও ভালোবাসি’, শাহীন সমুনের ‘অন্যরকম ভালোবাসা’, রাজু চৌধুরীর ‘রোমিও ২০১৩’, জাকির হোসেন রাজুর ‘এর বেশি ভালোবাসা যায়না’, শাহীন সুমনের ‘জটিল প্রেম’, বদিউল আলম খোকনের ‘নিষ্পাপ মুন্না’সহ আরও বেশ কয়েকটি ছবিতে আইটেম গার্ল হিসেবে পারফর্ম করেছেন।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এএ

ইঞ্জিনিয়ারিং,বিপাশা,মিডিয়া,চলচ্চিত্র
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত