• রোববার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
  • ||

‘গন্তব্য’ নিয়ে এলিনা শাম্মীর আক্ষেপ

প্রকাশ:  ০১ নভেম্বর ২০১৯, ১৬:৪৪
বিনোদন প্রতিবেদক

স্বপ্ন ছিল, সিনেমার নির্দেশক হবেন। সেই স্বপ্নের পথেই পা বাড়াচ্ছিলেন তরুণ পরিচালক অরণ্য পলাশ। ছবির প্রযোজক মাঝপথেই পালিয়ে যান। তাতে কী! নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে নিজেই টাকা জোগাড় করতে উদ্যোগ নেন অরণ্য।

জানা যায়, নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে দেশাত্মবোধক একটি ছবির কাজ শুরু করেছিলেন পরিচালক অরণ্য পলাশ। তবে মাঝপথেই ছেড়ে চলে যান ছবির প্রযোজক। ছবি বানানোর টাকা জোগাড় করতে স্ত্রী তার জমি বিক্রি করে দেন অরণ্যকে। তবে তাতেও পুরো টাকা না উঠায় ঋণও নেন তিনি। ‘গন্তব্য’ নামে এই ছবির কাজ শেষ হলেও শেষ পর্যন্ত ছবিটি মুক্তি দিতেই পারেননি। এমনকি একটি টিভি চ্যানেলের কাছে ছবিটি বিক্রির কথা হলেও শেষ পর্যন্ত সেটি বিক্রি করা সম্ভব হয়নি।

‘গন্তব্য’ সিনেমাটি প্রযোজনা করেন এলিনা শাম্মী। অরণ্য পলাশ ও এলিনা শাম্মী সম্পর্কে স্বামী-স্ত্রী। সিনেমা প্রযোজনা করতে গিয়ে এলিনার ঋণ করতে হয়। ঋণ বাবদ প্রতি মাসে কিস্তি দিতে হতো এলিনা শাম্মীকে। এখনও ঋণ বাবদ প্রতি মাসে এলিনাকে কিস্তি দিতে হচ্ছে। অরণ্য পলাশ ব্যবসা বা চাকরি করতেন না। যে কারণে বাসা ভাড়া থেকে শুরু করে সব খরচ বহন করতেন স্ত্রী এলিনা। সম্প্রতি এলিনা টাকা দেওয়া বন্ধ করলে খবরের শিরোনামের আসেন অরণ্য পলাশ।

এদিকে কৌশলে চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতিতে সিনেমাটি নিজের নামেও নিবন্ধন করান অরণ্য পলাশ। কিছুদিন পর স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে ভাটা পড়ে। তখন নিবন্ধনের অভিযোগ তুলে সিনেমা থেকে সরে দাঁড়ান এলিনা। তারপরই বিপাকে পড়েন অরণ্য পলাশ। বাধ্য হয়ে তাকে হোটেল বয়ের কাজ করতে হচ্ছে। অন্যদিকে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হচ্ছে অরণ্য পলাশ ও এলিনা শাম্মী দুজনে স্বামী-স্ত্রী। কিন্তু বিষয়টি অস্বীকার করলেন শাম্মী।

আক্ষেপ করে এলিনা বলেন, প্রথমে সিনেমাটির প্রযোজক অন্য কেউ ছিল। তিনি পালিয়ে গেলে আমি জমি বিক্রি করে ৪৫ লক্ষ টাকা দেই। অরণ্য অল্প কিছু টাকা তার বাবার কাছ থেকে এনে কাজ শেষ করেছেন। কিন্তু আমার সর্বস্ব শেষ করে সিনেমাটির জন্য টাকা দেই। বিভিন্ন জায়গা থেকে সুদে ঋণ নিয়ে সিনেমার কাজ শেষ করেছি। তবে এত টাকা দিয়েও প্রযোজকের জায়গায় নিজের নামটি জায়গা পেল না। যাই হোক না কেন, প্রযোজকের খাতায় নিজের নাম না থাকলেও এখন মনে প্রাণে চাই ছবিটি মুক্তি পাক। এই ছবিটা করতে গিয়ে তো মূলত আমি নিঃস্ব হয়েছি। ৪৫ লাখ টাকা কিন্তু মুখের কথা না। এ ছবির নায়ক ফেরদৌস ভাই নিজের পারিশ্রমিক নেননি। আমরা তাকে সাইনিংয়ের সময় একটি সম্মানী দিয়েছি। তিনিও চেয়েছেনে কাজটি সুন্দর ভাবে শেষ হোক। ছবির সাথে অনেকেই যুক্ত টাকা পাবেন। সবাই আমার সাথে যোগাযোগ করছেন। অনেক দিন হয় সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্রও পেয়েছে। একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সিনেমাটি বিক্রি করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তারা যা দাম বলছে তা যথেষ্ট নয়।

প্রসঙ্গত, ‘গন্তব্য’ সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক ফেরদৌস, আইরিন, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, কাজী রাজু, আফফান মিতুলসহ অনেকে। সিনেমাটির জন্য এই শিল্পীরা নামে মাত্র পারিশ্রমিক নিয়েছেন। কেউ কেউ বিনা পারিশ্রমিকে সিনেমায় কাজ করেছেন বলেও জানা গেছে।

পূর্বপশ্চিমবিডি/ এএ

গন্তব্য,চলচ্চিত্র,আক্ষেপ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত